বিনোদনসিনেমা ও টেলিভিশনহোমপেজ স্লাইড ছবি

পরিণত অভিষেক এবং ‘দ্য বিগ বুল’

অভিষেককে নিয়ে লিখতে গেলে সবার আগে তার বাবার মুখ ভেসে উঠে। এই যে তাকে নিয়ে লিখতে গেলে সবার আগে তার বাবার মুখ ভেসে উঠার ব্যাপারটি ঘটে যায়, এটা আসলে আমাদের সাব-কনশাস মাইন্ডে প্রভাব বিস্তার করে দিয়েছে মিডিয়া। মিডিয়া অমিতাভ বচ্চনের সাথে ছেলে অভিষেক বচ্চনের কম্পারিজানটা এতো এতো বছর ধরে খুব স্বযত্নে করে এসেছে, এখান থেকে আপনি বা আমি সচেতনভাবেই বের হয়ে আসতে পারিনা। মানে ব্যাপারটা এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে যে অভিষেককে নিয়ে লিখতে গেলে তার বাবার কথা আনাটা আমাদের দায়িত্ব।

অথচ বর্তমান স্টারকিডদের দিকে তাকিয়ে দেখেন, দেখবেন অন্তঃসারবিহীন সুদৃশ্য চিপসের প্যাকেট। যারা দেখতেই ভীষণ স্মার্ট কিন্তু অভিনয়ের কোনো বালাই নেই। অথচ যে লোকটি অভিষেকের কঠিন হেটার্স, সেও স্বজ্ঞানে বলতে পারবেনা অভিষেক অভিনয় করতে জানেনা। যাইহোক এই আলোচনা সেই ওর ক্যারিয়ারের শুরু থেকে চলে এসেছে, এখনো চলছে সামনেও চলবে। তাই আলোচনা না বাড়িয়ে প্রাসঙ্গিক আলাপে যাই।

সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া অভিষেকের মুভির নাম হলো The Big Bull(2021), হারশাদ মেহতার জীবনী নিয়ে নির্মিতব্য এই মুভিটি নির্মাণে এগিয়েছে সুপারস্টার অজয় দেবগণ। তিনি তার প্রোডাকশন হাউজ থেকে মুভিটি বানিয়েছেন। এর আগেও একসাথে অভিষেকের সাথে কাজ করেছেন অজয়। যদিও অভিষেকের মার্কেট ভ্যালু অনেক কম। ওকে নিয়ে মুভি বানালে ফ্লপ হবার সম্ভাবনাই বেশি। তবু অজয় অভিষেককে নিয়ে মুভি বানিয়েছেন। সামনে শাহরুখ খানও অভিষেককে নিয়ে মুভি বানাচ্ছেন। যাইহোক মুভির ডিরেকশন যিনি ছিলেন Kookie Gulati, আমি গুলাটি বলতে শুধুমাত্র ডক্টর মশুর গুলাটিকেই চিনি। এই মুভির ডিরেক্টরের কাজ সম্পর্কে আমার কোনো আইডিয়া নেই। কিন্তু মোটামুটি চেষ্টা রেখেছেন। মুভির স্ক্রিনপ্লে করেছেনও তিনিই, তার সাথে আরেকজন ছিলো। স্ক্রিনপ্লে বেশ স্পিডি ছিলো। কিন্তু গল্পের গভীরতা রাখেন পারেন নি পরিচালক।কেননা এখানেও তার নাম জড়িয়ে আছে।

তবে ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর যে ব্যাক্তিটি করেছেন Sandeep Shirodkar, তিনি যথেষ্টই জমিয়ে কাজ করেছেন। অভিনয়ের দিকে তাকালে সোহম শাহকে অনেকদিন পরে দেখলাম। এই লোকের বয়স এতো বেড়ে যায় কেন কিভাবে বুঝলাম না। তাকে শেষ দেখেছিলাম তুম্বার মুভিতে। কিন্তু শীপ অফ থেসিয়াস থেকেই তাকে দুর্দান্ত লাগে। এই মুভিতেও তার অভিনয় বেশ ভালোই ছিলো। বাদবাকি সাপোর্টিং কাস্টে ইলিয়ানা খারাপ না আবার ভালোও না, শহীদ কাপুরের আম্মা সুযোগই পান নি, মহিলা মারাত্মক অভিনয় করেন। এদিকে অনেকদিন পর রাম কাপুরকে দেখলাম। যদিও স্ক্রিনটাইম খুবই কম ছিলো তার। ও সৌরভ শুক্লা তার চরিত্রে ভালো ছিলো। কিন্তু এমন জাত অভিনেতাদের গুরুত্বহীন চরিত্রে দেখলে কষ্ট লাগে। বাদবাকি যা ছিলো অভিষেক শো। কিন্তু ওর অভিনয়ের কথায় পরে আসি।

এই এভারেজ মুভিটি একটু বেশি করে হাইলাইট পেয়েছে একটি ওয়েবসিরিজের জন্য। Scams 1992(2020) ওয়েব সিরিজ, একই ব্যক্তির উপর নির্মিতব্য এই ওয়েব সিরিজটি গতবছরের সেরা ওয়েব কন্টেন্ট কাজ। ওয়েব সিরিজটি পরিচালনাও করেছেন একজন বাঘা পরিচালক, তিনি হান্সাল মেহতা। হান্সালের এটাই ছিলো প্রথম ওয়েব ভিত্তিক কাজ। এই লোক তার মুভির চরিত্রের জন্য কতটা খেটে খুটে সময় নিয়ে কাজ করেন, তার প্রমাণ রেখেছেন Shahid (2013), City Lights (2014), Aligarh (2016), Omerta (2018) মুভিগুলো তে। যদিও আমি ওয়েব সিরিজটি এখনো দেখিনি, কিন্তু হান্সাল মেহতার পূর্বের কাজ মাথায় রেখে সহজেই বলা যায় তিনি ডিরেকশনের দিক থেকে সেরা কাজটিই করেছেন।

আমার সাব-কনশাস মাইন্ড ওয়েব সিরিজের সাথে মুভির কম্পারিজান করতে শুরু করে দিয়েছে। যা একেবারেই অনুচিত। কারণ একটা ১০পর্বের পূর্ণাঙ্গ ওয়েব সিরিজ, আর এটা জাস্ট আড়াই ঘন্টার পূর্ণাঙ্গ মুভি। আর হারশাদ মেহতার যে বিতর্কিত জীবনী সেই জীবনী তুলে ধরতে ১০ পর্বের ওয়েব সিরিজটিই মানানসই।

মুভিটি দেখলাম। গল্পের দিকে শুরু থেকে আমার তেমন আগ্রহ ছিলো না। কারণ গল্পে প্রচুর অসামঞ্জস্যতা আছে। আর গল্পও তেমন স্ট্রং নয়। কিন্তু আমার আগ্রহ জুড়ে ছিলো অভিষেকের অভিনয়। আহা কী অসাধারণ সাবলীল অভিনয়। যেন একেবারে চরিত্রের সাথে নিজেকে পুরোপুরি ঢুকিয়ে নিয়েছে। লোকটার হাঁটার স্টাইল, হাসির স্টাইল, ঝুঁকে চলার স্টাইল, কথা বলার স্টাইল, এক্সপ্রেশান দেয়ার স্টাইল দেখে মনে হয়েছে আমি অভিষেককে নয়, হারশাদ মেহতাকেই সেলুলয়েড পর্দায় দেখছি। এখানেই অভিষেকের অভিনয় সফল। এমন নয় এমন চরিত্রে অভিষেক আগে কখনো অভিনয় করেনি।

অলমোস্ট সেইম চরিত্রে ওর ক্যারিয়ারে আরেকটি মুভি আছে, মুভিটির নাম Guru(2007), যে মুভিটির অভিনয় ওর ক্যারিয়ারের সবচেয়ে উপরের দিকে থাকে। কিন্তু এই মুভিটি দেখার পর আমার কাছে মনে হলো, আমি গুরুর পরিণত মানুষকে দেখছি। এ খুবই পরিণত একজন অভিনেতা। যে মুভির প্রতিটি ফ্রেমকে জাস্ট অভিনয় দিয়েই মাতিয়ে রাখতে জানে। তাই আমার কাছে মুভির থেকে অভিষেকের অভিনয় চোখে লেগে আছে। অভিষেক এই মুভি দিয়ে আবারও প্রমাণ রাখলো সে একজন জাত অভিনেতা। তাই যারা এখনো মুভিটি দেখেন নি, চাইলে দেখতেও পারেন আবার নাও দেখতে পারেন। অবশ্য অভিষেকের অভিনয়ের জন্য চাইলে দেখতে পারেন।

  • বৃষ্টি বিন্দু

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker