বই Talkহোমপেজ স্লাইড ছবি

যেভাবে শুরু হয় অমর একুশে বইমেলা

বাশার আল আসাদ: অমর একুশে বইমেলা আমাদের প্রাণের মেলা। বাংলাদেশে হাজারো মেলার মাঝে বইমেলার গুরুত্ব সবচেয়ে বেশি। দীর্ঘ সময় ধরে আমাদের সাহিত্য ও বুদ্ধিবৃত্তিক বিকাশ ঘটছে মূলত এ মেলাকে কেন্দ্র করে। বাঙালীর ভাষা, সংস্কৃতি বোধ ও ঐতিহ্য হলো অমর একুশে বই মেলার ভিত্তি। লেখক, পাঠক এবং প্রকাশকদের কাছে অমর একুশে বইমেলা এক সেরা উৎসব। সবারই মিলন মেলা বাংলা একাডেমির বই মেলা। এদেশের সকল শ্রেণীর পাঠক সারা বছর অপেক্ষা করে থাকে কখন বসবে অমর একুশে বইমেলা কবে বসবে বাঙালীর মিলন মেলা।

ভাষা আন্দোলন, বাংলা একাডেমি আর একুশের বইমেলা একই সুত্রে গাঁথা। একুশের ভাষা আন্দোলনের অন্যতম প্রধান ফসল বাংলা একাডেমি। একুশে বইমেলা বিকশিত হয়েছে বাংলা একাডেমিকে কেন্দ্র করে। নবগঠিত বাংলাদেশে সাংস্কৃতিক সাহিত্যিক জাগরণের প্রথম প্রকাশ ‘অমর একুশে বইমেলা’। প্রতিবছর ফেব্রুয়ারী মাসে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গ্ণে বইমেলার আয়োজন করা হয়। ভাষা আন্দোলনের গৌরবের স্মৃতিকে অম্লান করে রাখতেই বইমেলার নামকরণ করা হয় ‘অমর একুশে বইমেলা। বইমেলার ইতিহাস দীর্ঘদিনের। এ ইতিহাসের সাথে যে নামটি ঘনিষ্ঠভাবে জড়িয়ে আছে তিনি চিত্তরঞ্জন সাহা। ১৯৭২ সালের ৮ ফেব্রুয়ারী চিত্তরঞ্জন সাহা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বর্ধমান হাউজ প্রাঙ্গণে বটতলায় এক টুকরো চটের উপর কলকতা থেকে আনা ৩২ টি বই দিয়ে বইমেলার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। ১৯৭৮ সালে বইমেলা একটি পূর্নাঙ্গ মেলায় রুপান্তরিত হওয়ার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে। তৎকালীন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক ড.আশরাফ সিদ্দিক বাংলা একাডেমিকে বইমেলার সাথে সর্ম্পৃক্ত করার ঘোষণা প্রদান করেন। তখন থেকেই বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বাঙালীর প্রাণের মেলা শক্ত ভিত্তির উপর প্রতিষ্ঠিত হয়।

ফেব্রুয়ারি আসতে শুরু করলেই বাঙালী বইপ্রেমীদের নাকে যেন এক অদ্ভূত ধরনের বইয়ের ঘ্রাণ আসতে শুরু করে। অস্থির ভাবে দিনক্ষণ গুনতে থাকে এ জাতি। শৈশবে ঈদ আসার আগে যেমন মনের ভিতরে এক অদ্ভুত আনন্দ হতো। কবে,কখন ঈদ আসবে তার দিন তারিখ হিসাব নিকেশ করতে থাকে শিশু, কিশোরেরা। একুশে বই মেলা আসার আগে ঠিক তেমনই একটা অনুভূতি কাজ করে নগরবাসীর ভিতরে। নগরবাসীর পঞ্জিকা গুনতে থাকে কবে, কখন আসবে বাঙালি জাতির সেই গৌরবের, ঐতিহ্যের প্রাণের বই মেলা। শুরু হওয়ার পর থেকে অমর একুশে বইমেলা বাঙালীর কাছে প্রাণে জোয়ার সৃষ্টিকারী এক মেলায় পরিণত হয়েছে। বাঙালী লেখক, প্রকাশক এবং পাঠকদের কাছে বইমেলা এক মিলনমেলা। বইমেলায় জড়ো হতে থাকে দুর-দুরান্তের চেনা মুখগুলি। ভাষা আন্দোলনের মাস ফেব্রুয়ারী পার হলে ভাঙে এ মিলন মেলা। বইমেলা আমাদের অন্তরে যে বন্ধন তৈরি করে তা ভাঙে না কখনোই। দেশের প্রতি ভালোবাসা সৃষ্টি করে। অনুপ্রেরণা জোগায়। বাঙালি অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে ‘অমর একুশে বইমেলা’আবার কবে ফিরে আসবে এই অপেক্ষায়।

 

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker