বই Talkসাহিত্য

ইতিহাসের সবচেয়ে ছোটগল্পের পেছনের গল্প

রবিউল করিম মৃদুল: ছোটগল্পের ইতিহাসে সবচেয়ে ছোটগল্পগুলোর মধ্যে বিখ্যাত একটি হলো আর্নেস্ট হ্যামিংওয়ের গল্পটা। মাত্র ৬ শব্দের গল্প। গল্পটা প্রায় সকলেরই জানা। হ্যামিংওয়ে গল্পটা লিখেছিলেন বাজি ধরে। কার সাথে বাজি ধরেছিলেন? প্রচলিত আছে বাজি ধরেছিলেন অপর দুই মহারথীর সাথে।

এক গ্রীষ্মে বোটে করে মাছ ধরতে গিয়েছেন তিনজন। হ্যামিংওয়ে, ফিদেল ক্যাস্ত্রো আর চে গুয়েভরা। অনেকক্ষণ বড়শি নিয়ে বসে থেকেও কোনো মাছের দেখা না পেয়ে বিরক্ত হয়ে উঠছেন সবাই। বিরক্তি কাটাতে চে গুয়েভরা বললেন- আরে ধূর! মাছে খায় না তো কী হয়েছে? আমরা তো খেতে পারি। বলতে বলতে তিনি স্ন্যাক্সের প্যাকেট খুলে খাওয়া শুরু করলেন। হ্যামিংওয়ে আর ক্যাস্ত্রোই বা আর বসে থাকবেন কেন। খাওয়া শুরু করলেন তারাও। খেতে খেতে ফিদেল ক্যাস্ত্রো হ্যামিংওয়েকে বললেন- তা কী এমন গল্প লেখো? এখন একটা গল্প লিখে দেখাও তো। হ্যামিংওয়ে বললেন- এখন? এই মাঝ নদীতে গল্প লিখব কী করে? নোটবুক খাতাপত্র তো সব রেখে এসেছি।

চে গুয়েভরা তখন খাওয়া শেষে টিস্যু পেপারে হাত মুছতেছিলেন। হাত মোছা বন্ধ করে তিনি টিস্যু পেপারটা হ্যামিংওয়ের দিকে এগিয়ে দিয়ে বললেন- এই নাও টিস্যু পেপার। ইচ্ছে থাকলে এখানেও লেখা যায়। হ্যামিংওয়ে হাত বাড়িয়ে টিস্যু পেপারটি নিলেন। খাওয়া বন্ধ করে কিছুক্ষণ তাকিয়ে থাকলেন নদীর শান্ত স্বচ্ছ জলের দিকে। তারপর লিখলেন ৬ টি শব্দ। এই ৬টি শব্দ পরবর্তীতে পৃথিবীতে বিখ্যাত হয়ে গেল সবচেয়ে ক্ষুদ্র ছোটগল্প হিসেবে। তিনি লিখলেন-

For sale. baby shoes. never worn’
‘বিক্রির জন্য। শিশুর জুতো। ব্যবহৃত নয়’।

গল্পটির ভাবার্থ এইরকম ”বাচ্চার জন্য জুতো কেনা হয়েছিল, কিন্তু সেই বাচ্চাটা পৃথিবীর আলোই দেখেনি, মায়ের গর্ভেই শিশুটির মৃতু হয়” ৬ শব্দে গর্ভে মারা যাওয়া শিশুর জন্য মায়ের অনুভূতি! এ ধরনের গল্পকে বলা হয় ‘ফ্ল্যাশ ফিকশন’ বা অণুগল্প। মাইক্রো শর্ট স্টোরি নামেও ডাকা হয় এসব গল্পকে। গল্পটি দারুণ পছন্দ হলো ফিদেল ক্যাস্ত্রো এবং চে গুয়েভরা দু’জনেরই। ক্যাস্ত্রো সাথে সাথে ১০ ডলার বের করে বকশিশ দিলেন হ্যামিংওয়েকে।

উল্লেখ্য, গল্পটার রচনা নিয়ে আরো একটি গল্প চালু আছে। হ্যামিংওয়ে একদিন তার অফিসের ৬ কলিগদের সাথে গল্প করছিলেন। হঠাৎ তিনি বললেন- মাত্র ৬ টি শব্দ দিয়ে তিনি একটি চমৎকার গল্প লিখতে পারবেন। তার কলিগরা হেসেই উড়িয়ে দিলো। বললো, ঠিক আছে। ১০ ডলারের বাজি। হ্যামিংওয়ে গল্পটা লিখলেন এবং বাজিতে জিতে গেলেন।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker