arts | natunbarta.com | Top Online Newspaper in Bangladesh
বৃহস্পতিবার, ৩০ মার্চ ২০১৭
webmail
রুবাইদা গুলশান দমকা আঁচল উড়ায়ে আকাশে এলোকেশী মেয়ে একলা দাঁড়ায়ে এদিক সেদিক তাকায়ে খোঁজে; জোনাকির রঙ নিভে আর জ্বলে সেটুকু আলোয়, সে পথ চলে। অতঃপর উদ্দাম হাওয়ায় এলোমেলো শাড়িখানা, ফুল আনবে ছিনিয়ে সে, ফুল আনবে সে চক্ষুতে তার অগ্নিস্ফুলিঙ্গ, মূল্য হোক যেটা। ছুটে চলে সে প্রতি পদে পদে, নতুন ফুলের খোঁজে। সেই ফুল ফোটে এই জীবনের প্রতি ভাঁজে ভাঁজে স্পর্শে দুঃখী মানুষগুলো
ঢাকা: সাংবাদিকদের অধিকার বিষয়ক প্রথম বই ‘রাইট টু প্রেস’ সাংবাদিকদের মধ্যে বেশ সাড়া জাগিয়েছে। সাংবাদিক ও আইনজীবী মিয়া হোসেনের লেখা বইটি প্রকাশ করেছে সৃজনশীল প্রকাশনা সংস্থা ‘প্রতিভা প্রকাশ’। বইটির মূল্য ১৬০ টাকা, তবে বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকায়। প্রতিভা প্রকাশের ২০১ ও ২০২ নাম্বার স্টলে ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির ৭৩ নাম্বার
ঢাকা: বাংলা একাডেমির এবারের বইমেলায় প্রকাশ হয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আবদুল মান্নানের লেখা বই ‘সক্রেটিসের জল্লাদ’। বেশ কয়েকজন বিশ্ববিখ্যাত কিংবদন্তি নিয়ে বইটিতে লেখক নানা তথ্য তুলে ধরেছেন। লেখাগুলোর মাধ্যমে সর্বকালের কীর্তিমান কিছু স্মরণীয় মানুষকে নতুন প্রজন্মের কাছে পরিচয় করিয়ে দেয়ার প্রয়াস আছে। এ বইয়ের প্রবন্ধ, নিবন্ধ বা গল্পগুলো সহজ
ঢাকা: অমর একুশে বইমেলায় এসেছে তরুণ কবি জিয়া হক ও তানজিলা তাসনিমের শুভবিবাহে নিবেদিত ম্যারেজ মেমোরেন্ডাম ‘খোঁপায় তারার ফুল’। ম্যাগাজিনটি প্রকাশ করেছে ‘যুক্তপ্রকাশ’। প্রচ্ছদ করেছেন বিপ্লব বিপ্রদাশ। নামলিপি (ক্যালিগ্রাফি) আরিফুর রহমান। বইমেলার লিটল ম্যাগ চত্বরের উন্মুক্ত ১৩ (সময়ের জানালা) নং স্টলে পাওয়া যাবে ‘খোঁপায় তারার ফুল’। জিয়া হক ও তানজিলা তাসনিমকে শুভেচ্ছা
ঢাকা: বাংলাদেশে ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথমদিন থেকে শুরু হবে মাসব্যাপী অমর একুশে বই মেলা। একে বলা হয় বাঙ্গালীর চেতনা এবং সংস্কৃতির একটি গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ। বই এর উৎসবে প্রকাশিত হবে হাজারো নতুন বই। কিন্তু তার মধ্যে নারী লেখকদের বই থাকে কতগুলো? কেমন প্রকাশ ও বিক্রি হয় তাদের লেখা? প্রকাশকদের কাছ থেকে কতটা পৃষ্ঠপোষকতা
রুবাইদা গুলশান যে সবুজ ঘাসে হাঁটার কথা ছিল সেখানে ঘাস ধুলোয় পড়ে আছে, একপাশেতে ঘাস মিটিয়ে চলছে উদ্যোগ নতুন এক ইট পাথরের এক শুষ্ক মাঠ।কেমন করে বাঁধি বল, যে কথা ছিল না বলার সেই কথা বলা হয়ে গেল এক নিমিষে। যখন কেউ ডাকে তখন যে তাকে উপেক্ষা করা অতি সহজ নয়।
বিয়ে মানেদেহ-মনের স্বাচ্ছন্দ এবং বন্ধু-স্বজনদের একটি দিনের আনন্দ-উৎসবের কলোরব। বাজি-বাজনা, রঙের ছড়াছড়ি, বেহুদা হাসি-ঠাট্টা-তামাসায় মাতামাতি। মাইকে গান বাজে, ‘পেয়ার কি বাহার লেকে দিলকা লেকে আজা রে আজা  পরদেশিয়া।’ আমাদের দেশে বিবাহ উৎসব সাধারণত; এভাবেই অনুষ্ঠিত হতে দেখা যায়। আমরা বলি শুভবিবাহ। শাদী মোবারক বলার রেওয়াজটা প্রায় উঠে গেছে মুসলমানদের সমাজ
মুম্বাই: বলিউডের নামী অভিনেতা ঋষি কাপুর। ভারতীয় চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেতা রাজ কাপুরের এই ছেলে অভিনয়ের পাশাপাশি পরিচালক ও প্রযোজক হিসেবেও নাম কুড়িয়েছেন। সম্প্রতি তিনি ‘খুল্লাম খুল্লা’ নামে একটি আত্মজীবনী লিখেছেন। সেই বইয়ে নিজের জীবনের বর্ণিল সব ঘটনার পাশাপাশি লিখেছেন বাবা রাজ কাপুরের পরকীয়ার কথাও। এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে সেসব। বলিউডের
কলকাতা: আপনি যখন পাঠাগারটির ভেতরে ঢুকবেন তখন চারপাশের সবকিছু দেখে বিস্ময়ে আপনার দম বন্ধ হয়ে আসতে পারে। যতোই ভেতরে যাবেন ততোই আপনার চোখে পড়বে একটার পর একটা বিশাল বিশাল বুকশেলফ, সারি সারি করে সাজানো। একেকটা শেল্ফ মেঝে থেকে ছাদ পর্যন্ত উঠে গেছে। মনে হতে পারে যে, আপনি হয়তো বইয়ের ঝর্ণার
কাজী জহিরুল ইসলাম যারা ক্ষমতার আশে-পাশে থাকেন তাদের সম্পর্কে অনেক আজে-বাজে কথা শোনা যায়। কবি মাহবুবুল হক শাকিল সম্পর্কে তেমন কথা কখনোই শুনি নি। শুধু শুনেছি তিনি কবিদের ভালোবাসেন, লেখকদের ভালোবাসেন। রাষ্ট্রও যেন কবিদের ভালোবাসে নিরন্তর সেই প্রচেষ্টায়ই নিয়োজিত ছিলেন। এ বছর ২৮ আগস্ট নিউ ইয়র্কে বসবাসরত কবি শহীদ কাদরী মারা
ঢাকা: প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিল ১৬ ঘন্টা আগে তার ফেসবুক ওয়ালে এই স্ট্যাটাসটা দেন। এলা, ভালবাসা, তোমার জন্য কোন এক হেমন্ত রাতে অসাধারণ সঙ্গম শেষে ক্লান্ত তুমি, পাশ ফিরে শুবে। তৃপ্ত সময় অখন্ড যতিবিহীন ঘুম দিবে। তার পাশে ঘুমাবে তুমি আহ্লাদী বিড়ালের মতো, তার শরীরে শরীর ছুঁয়ে ছুঁয়ে, মাঝরাতে। তোমাদের দরজায় দাঁড়িয়ে থাকবে এক প্রগাঢ়
মায়ের বুকে যার মুখ লুকানোর কথা তার মুখ কেনো মাটির বুকে? এ কেমন ব্যথা, মানবতা! ও যখন শেষ বার মুখ খুলেছিল তখন হয়তো গোঙানি দিয়ে বলেছিল মা মা মা হায় বাছা! যদি তুমি বুঝতে তোমার মা সাগরতলে ঘুমিয়ে গেছে বাবার দেহ হাংগরের পেটে। ও সোনা মানিক! তুমি যদি বলতে পারতে হ্যালো সেক্রেটারি জেনারেল! মি :প্রেসিডেন্ট! ডিয়ার প্রধানমন্ত্রী! তবে কি তুমি বাঁচতে? তবে কেউ শোনেনি অব্যশই তুমি
আসাদের শার্ট গুচ্ছ গুচ্ছ রক্তকরবীর মতো কিংবা সূর্যাস্তের জ্বলন্ত মেঘের মতো আসাদের শার্ট উড়ছে হাওয়ায় নীলিমায় । বোন তার ভায়ের অম্লান শার্টে দিয়েছে লাগিয়ে নক্ষত্রের মতো কিছু বোতাম কখনো হৃদয়ের সোনালী তন্তুর সূক্ষতায় বর্ষীয়সী জননী সে-শার্ট উঠোনের রৌদ্রে দিয়েছেন মেলে কতদিন স্নেহের বিন্যাসে । ডালীম গাছের মৃদু ছায়া আর রোদ্দুর- শেভিত মায়ের উঠোন ছেড়ে এখন সে-শার্ট শহরের প্রধান সড়কে কারখানার চিমনি-চূড়োয় গমগমে এভেন্যুর
শহরটির নাম ন্যাচেজ (Natchez)। আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপি রাজ্যে মিসিসিপি নদীর তীরে পুরনো শহর। তবে কলম্বাসের খুঁজে পাওয়া নতুন পৃথিবীর হিসেব কিনা, এই হিসেবে তিনশো কি চারশো বছর  হলেই বলে ঢের পুরনো। এই ন্যাচেজ শহর প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ফরাসি ঔপনিবেশিকদের দ্বারা, ১৭১৬ খ্রিস্টাব্দে। মিসিসিপি নদীর দক্ষিণাংশের উপত্যকার প্রধান পুরনো শহরগুলোর মধ্যে এই শহর
ঢাকা: সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মঙ্গলবার বিকাল ৫টা ২৫ মিনিটে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। নতুন বার্তা পাঠকের জন্য সৈয়দ হকের কাব্য ‘পরানের গহীন ভিতর’ তুলে ধরা হলো- ১ জামার ভিতর থিকা যাদুমন্ত্রে বারায় ডাহুক, চুলের ভিতর থিকা আকবর বাদশার মোহর, মানুষ বেবাক চুপ,
ওরে হত্যা নয় আজ ‘সত্যাগ্রহ’ শক্তির উদবোধন ! দুর্বল! ভীরু ! চুপ রহো, ওহো খামখা ক্ষুব্ধ মন ! ধ্বনি উঠে রণি’ দূর বাণীর, – আজিকার এ খুন কোরবানীর ! দুম্বা-শির রুম্-বাসীর শহীদের শির সেরা আজি !- রহমান কি রুদ্র নন ? ব্যাস ! চুপ খামোশ রোদন ! আজ শোর ওঠে জোর “খুন দে, জান দে , শির
কুলি-মজুর দেখিনু সেদিন রেলে, কুলি ব’লে এক বাবু সা’ব তারে ঠেলে দিলে নীচে ফেলে! চোখ ফেটে এল জল, এমনি ক’রে কি জগৎ জুড়িয়া মার খাবে দুর্বল? যে দধীচিদের হাড় দিয়ে ঐ বাষ্প-শকট চলে, বাবু সা’ব এসে চড়িল তাহাতে, কুলিরা পড়িল তলে। বেতন দিয়াছ?-চুপ রও যত মিথ্যাবাদীর দল! কত পাই দিয়ে কুলিদের তুই কত ক্রোর পেলি বল্? রাজপথে তব চলিছে
স্বাধীনতা তুমি স্বাধীনতা তুমি রবি ঠাকুরের অজর কবিতা, অবিনাশী গান। স্বাধীনতা তুমি কাজী নজরুল ঝাঁকড়া চুলের বাবরি দোলানো মহান পুরুষ, সৃষ্টিসুখের উল্লাসে কাঁপা- স্বাধীনতা তুমি শহীদ মিনারে অমর একুশে ফেব্রুয়ারির উজ্জ্বল সভা স্বাধীনতা তুমি পতাকা-শোভিত শ্লোগান-মুখর ঝাঁঝালো মিছিল। স্বাধীনতা তুমি ফসলের মাঠে কৃষকের হাসি। স্বাধীনতা তুমি রোদেলা দুপুরে মধ্যপুকুরে গ্রাম্য মেয়ের অবাধ সাঁতার। স্বাধীনতা তুমি মজুর যুবার রোদে ঝলসিত দক্ষ বাহুর গ্রন্থিল পেশী। স্বাধীনতা তুমি অন্ধকারের খাঁ
ঢাকা: বাংলা ভাষার উন্নতি হচ্ছে না। এ নিয়ে গবেষণাও হচ্ছে না। প্রতিনিয়ত অন্য ভাষার নতুন হাজারও শব্দ আমরা উচ্চরণ করছি। যার বাংলা প্রতিশব্দ নেই। নেই এ নিয়ে বাঙালিদের উদ্বেগও। এতে উদ্বিগ্ন বিতর্কিত ও নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। মঙ্গলবার তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তবে তার মতামতের বিরোধীতাও করেছে কেউ কেউ। তসলিমার
সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্‌র ‘নয়নচারা’ গল্পটিতে দুঃখ আরো গভীর। এতো গভীর যে সেখানে চোখ বেয়ে যে কান্না ঝরে পড়বে এটাও সম্ভব নয়; চোখের পানি ভেতর থেকেই শুকিয়ে গেছে, কষ্টের তাপে। সাধারণ বাঙালীর জীবনে খাদ্যের প্রাচুর্য কবে ছিল জানি না, এমনকি আধুনিক কালেও তো প্রাচুর্যের সন্ধান পাওয়া দুষ্কর। ‘নয়নচারা’র পটভূমিটা দুর্ভিক্ষের। দুর্ভিক্ষের নয়, মন্বন্তরের।
আরো খবর
দেশে-বিদেশে
ব্রুনাই দারুস সালাম। ‘ব্রুনাই – শান্তির স্থান’ বাংলা অনুবাদ করলে দেশটির নাম এই দাঁড়ায়। `সুলতান ...
পৃথিবীর মানচিত্রে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার ছোট্ট দেশ ব্রুনাই খুব পরিচিত নয় এমন ধারণা অনেকেই করে থাকেন। ...
চলতি হাওয়া
‘বিয়ে? এখনই? এটা নিয়ে আমরা পরে কথা বলি?' ‘এই তো বেশ আছি, এ রকমই থাকলে হয় ...
স্মার্টফোনের যুগে এসএমএস-এর মতো এত সহজ যোগাযোগের মাধ্যম কিছু হতেই পারে না। তবে টেক্সটিং ব্যাপারটা ...
ভালোবাসা আছে, কিন্তু কমিটমেন্ট নেই৷ বিবাহিত হয়েও প্রাক্তন প্রেমীর খোঁজ৷ মেয়ে হোক বা ছেলে, বিবাহিত ...
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সোনার তরী কবিতার শেষ স্তবকটি মনে পড়ে? একটি অপসৃয়মান তরণীর মতো কবি ক্রমশ ...
সমাপ্তির গল্পটা বেশ মিষ্টি প্রেমের তাই না? ঝাল-নুনের বিয়েটা শেষমেশ সুখী গৃহকোণের প্রতিশ্রুতি দিয়ে গল্প ...
পুরানো সেই দিনের কথা..


শিরোনাম
Top