বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭
webmail
Wed, 17 May, 2017 12:39:25 PM
নিজস্ব প্রতিবেদক
নতুন বার্তা ডটকম
চট্টগ্রাম: সাদার্ন ইউনিভার্সিটিতে পুরকৌশল বিভাগের উদ্যোগে ‘কনক্রিটের কম্প্রেসিভ স্ট্রিনথ এর উপর বিভিন্ন রকম পানি ও বালির প্রভাব’ শীর্ষক সেমিনার সম্প্রতি সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। 
 
সাদার্ন ইউনিভার্সিটির প্রো-ভিসি ও পুরকৌশল বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার এম. আলী আশরাফ, পিইঞ্জ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পুরকৌশল বিভাগের প্রভাষক তসলিমা ইয়াসমিন। সেমিনারে সকল শিক্ষক এবং শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। 
 
প্রবন্ধে প্রভাষক তসলিমা ইয়াসমিন পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে ‘কনক্রিটের কম্প্রেসিভ স্ট্রিনথ এর উপর বিভিন্ন রকম পানি এবং বালির প্রভাব’ বিষয়ের উপর গবেষণালব্ধ তথ্য ভিত্তিক আলোচনা উপস্থাপন করেন। 
 
গবেষণায় পাঁচ রকম পানি যেমন টেপের পানি, কূপের পানি, ডিপ কলের পানি, পুকুরের পানি এবং রান্না ঘরের বর্জ্য পানি এবং তিন রকম বালি যেমন সিলেটের বালি, পাহাড়ি বালি এবং লোকাল বালি ব্যবহার করা হয়। সব রকম পানির pH মান, COD, BOD এবং DO যেমন বালি পানি এবং Brick Chips এবং কনক্রিটের সব উপাদানের গুণাগুণের মানগুলো বের করা হয় ল্যাবে। 
 
গবেষণায় দেখা যায়, সবচেয়ে কম স্ট্রিনথ রান্না ঘরের বর্জ্য পানির এবং টেপের পানি সবচেয়ে বেশি স্ট্রিনথ  দেয়, কারণ রান্না ঘরের বর্জ্য পানির pH মান থেকে দেখা গেছে পানিটি এসিডিক। যখন পাহাড়ি বালি ব্যবহার করা হয়, তখন রান্না ঘরের বর্জ্য পানির থেকে টেপের পানি কনক্রিট ১.৫৬ গুন বেশি কম্প্রেসিভ স্ট্রিনথ দেয়। 
 
সিলেটের বালির ক্ষেত্রে, রান্না ঘরের বর্জ্য পানির থেকে টেপের পানি মিশ্রিত কনক্রিট ১.৪২ গুন বেশি কম্প্রেসিভ স্ট্রিনথ দেয়। লোকাল বালির ক্ষেত্রে, টেপের পানি মিশ্রিত কনক্রিট ১.৩১ গুণ বেশি কম্প্রেসিভ স্ট্রিনথ দেয় রান্না ঘরের বর্জ্য পানি থেকে।
 
নতুন বার্তা/এএইচ

Print
আরো খবর
    সর্বশেষ সংবাদ


    শিরোনাম
    Top
    close