বিনোদন

বলিউড ছবি ‘পদ্মাবত’-এর বিরুদ্ধে ভারতে জ্বালাও-পোড়াও

গান্ধীনগর: পদ্মাবত ছবি প্রদর্শনে বাধা দিতে মরিয়া কারনি সেনা৷ সেই রেশ ধরে গুজরাতে আক্রান্ত হল একটি মল৷ এই মলের মাল্টিপ্লেক্সে ছবি প্রদর্শন করা হতে পারে এই অভিযোগে হামলা হয়েছে৷ সংবাদ সংস্থা এএনআই জানাচ্ছে, ঘটনাস্থল আমেদাবাদের মেমনগর এলাকা৷ সেখানকার একটি মলে ঢুকে ব্যাপক তাণ্ডব চালিয়েছে ছবি বিরোধী কট্টরপন্থীরা৷

হামলাকারীদের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মলটি৷ যদিও মলের ম্যানেজার রাকেশ মেহতা জানিয়েছেন, আমাদের এখানে পদ্মাবত ছবি প্রদর্শন করা হবে না বলেই পোস্টার দেওয়া হয়েছিল৷ তারপরেও হামলা হয়েছে৷

মঙ্গলবারের পরিস্থিতি বলে দিয়েছে, পদ্মাবত ছবি মুক্তি পেলে কী ধরণের হামলা চালাতে পারে কট্টরপন্থীরা৷ ফলে বিভিন্ন মল কর্তৃপক্ষ নিজেদের সুরক্ষায় বিশেষ ব্যবস্থা নিচ্ছেন৷ এদিকে বিক্ষোভকারী সংগঠনগুলির অন্যতম কারনি সেনার দাবি, পদ্মাবত ছবি দেখালেই প্রবল প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে৷ আরও একধাপ এগিয়ে রাজস্থানের কট্টরপন্থীরা জানিয়েছেন, ছবি মুক্তি পেলেই গায়ে আগুন দিয়ে শতাধিক মহিলা জহরব্রত পালান করবেন৷ এটা করা হবে চিতোরেই৷

পদ্মাবত ছবি মুক্তি আটকাতে রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশ সরকার সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছিল৷ সেখানে মুখ পুড়িয়েছে বিজেপি শাসিত দুই রাজ্য৷ সুপ্রিম কোর্টে দীপক মিশ্রের অধীনে থাকা সাংবিধানিক বেঞ্চ জানিয়েছে, সিবিএফসি ছবি মুক্তির ছাড়পত্র দিয়েছে৷ সেই ছাড়পত্র মেনেই দেশজুড়ে মুক্তি পাবে ‘পদ্মাবত’৷ সিবিএফসির এই ছাড়পত্র দেওয়ার সিদ্ধান্তকে কোনওভাবেই বিরোধিতা করবে না সুপ্রিম কোর্ট৷

শীর্ষ আদালত এও জানিয়েছে, রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট সরকারের৷ সুপ্রিম কোর্টের নয়৷ এর পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, যদি কেউ ব্যক্তিগত ভাবে এই ছবি দেখতে না চান৷ তাহলে সেই বিষয়ে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা রয়েছে৷ কিন্তু কোনও ছবিকে এভাবে নিষিদ্ধ করা উচিত নয়৷

১৮ জানুয়ারি শীর্ষ আদালত প্রশ্ন করে, ব্যান্ডিট কুইন মুক্তি পেলে পদ্মাবত কেন পাবে না? এরপরেই ছবি মুক্তির পথ পরিষ্কার হয়ে যায়৷ কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের তারপরেও থামছে না বিক্ষোভ৷ রাজপুত কারনি সেনা ছবি মুক্তি আটকাতে সিনেমা হলের বাইরে শুরু করেছে তান্ডব৷ জায়গায় জায়গায় ছবির পোষ্টার ছিঁড়ে দিচ্ছে তারা৷ ছবি মুক্তি পেলে হলগুলিতে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার হুমকিও দিয়ে রেখেছে৷

চিতোরের রানি পদ্মিনী কে নিয়ে মেগা বাজেটের ছবি ‘পদ্মাবতী’ করেছেন সঞ্জয় লীলা বনসলী৷ ছবি শ্যুটিং থেকেই বিতর্ক ছড়ায়৷ ক্ষত্রিয় সংগঠনগুলি দাবি করে, এই ছবিতে রানি পদ্মিনীর সঙ্গে আলাউদ্দিন খিলজির প্রেমের সম্পর্ক দেখিয়ে রাজপুত জাতিকেই অপমান করা হয়েছে৷ বিতর্ক এমন আকার নেয় যে ছবির নাম পাল্টে ‘পদ্মাবত’ রাখা হয়৷

নতুন বার্তা/এমআর

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker