বিনোদনহোমপেজ স্লাইড ছবি

৯১তম অস্কারের ইতিবৃত্ত

মঞ্জুর দেওয়ান: অস্কার! চলচ্চিত্র জগতের সবচেয়ে সম্মানজনক পুরস্কার। যারা ‘প্রকৃত’ শ্রম দিয়ে সিনেমা শিল্পের কাজ করেন, তারা অস্কার অনুষ্ঠানের অপেক্ষায় থাকেন। ঘাম ঝরানো শ্রমের সর্বোচ্চ মূল্য পেতে অধীর আগ্রহ নিয়ে বসে থাকেন একাডেমি অ্যাওয়ার্ডস অব মেরিটের অপেক্ষায়। বছর ঘুরে একটি নির্দিষ্ট সময়ে আসে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। বিশ্বনন্দিত সব তারকাদের পদচারণায় মুখরিত হয় অস্কারের মঞ্চ। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও বসেছিলো অস্কারের ঝলমলে আসর। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলেসের ঐতিহ্যবাহী ডলবি থিয়েটারের আনাচে কানাচে ছিলো তারার মেলা।

বিনোদন জগতের সবচেয়ে জমকালো আয়োজনে বাহারি সব পোশাকে হাজির হয়েছিলেন নামজাদা সব তারকারা। অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের ৯১তম আসরে সেরা অভিনেতার পুরস্কার জিতে নের রামি মালেক। ‘বোহেমিয়ান র‌্যাপসোডি’ সিনেমায় অনবদ্য অভিনয় করে অস্কার জিতে নেন এই মার্কিন অভিনেতা। সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার জিতেন অলিভিয়া কোলম্যান। ‘দ্য ফেভারিট’ সিনেমায় নিজের সবটুকু নিংড়ে দেয়ার জন্য প্রথমবারের মতো অস্কার জিতেন এই ব্রিটিশ অভিনেত্রী। এবারের অস্কারের সবচেয়ে আলোচিত ব্যক্তির নাম আলফানসো কুয়ারন। মেক্সিকান সিনেমা ‘’রোমা’র নির্মাতা হিসেবে আলফানসো কুয়ারন জিতে নেন সেরা পরিচালকের পুরস্কার। একই সিনেমার জন্য সেরা বিদেশি ভাষার পুরস্কার উঠে এই মেক্সিকানের হাতে।

১৯৭০ সালের শুরুর দিকের মেক্সিকো শহরের একটি গল্প নিয়ে নির্মিত সিনেমাটি প্রথম মেক্সিকান সিনেমা হিসেবে অস্কার জিতে নেয়। পোল্যান্ডের’’কোল্ড ওয়ার’ জার্মানির ‘নেভার লুক অ্যাওয়ে’’ লেবাননের ‘ক্যাপেরনাম’ ও জাপানের ‘’সোফলিপটার্স’ কে হারিয়ে পুরস্কার জিতে রোমা। সেরা পরিচালক, চিত্রগ্রহণ ও বিদেশি ভাষার সিনেমা নিয়ে মোট তিনটি পুরস্কার জিতে নেয় আলফানসো কুয়ারনের রোমা। তারকাময় আসরে সেরা পার্শ্ব অভিনেতার পুরস্কার উঠে মাহেরশালা আলী। ড্রামা-কমেডি নির্ভর সিনেমা ’গ্রিন বুক’র জন্য অস্কার দেয়া হয় এই মার্কিন অভিনেতাকে। মাহেরশালা আলী অভিনিত এই গ্রিন বুক সিনেমাটি জিতে নেয় ৯১তম আসরের সেরা ছবির পুরস্কার। অন্যদিকে সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রীর পুরস্কার জিতে নেন রেজিনা কিং।

‘ইফ বিয়েলে স্ট্রিট কুড টক’ সিনেমায় দুর্দান্ত অভিনয়ের জন্য সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী হন মার্কিন অভিনেত্রী ও টিভি পরিচালক। ডলবি থিয়েটারের ঝলমলে আলো নিজের দিকে তাক করে জানান দেন নিজের অস্তিত্বের! অথচ শুরুটা এমন ছিলোনা। চাকচিক্যময় ও ঝলমলে এই অস্কারের শুরুটা হয়েছিলো একরকম ঘরোয়া পরিসরে। ১৯২৯ সালের ১৬ মে হলিউডের রুজভেল্ট হোটেলের ব্লজম রুমে প্রথম অস্কার অনুষ্ঠিত হয়েছিলো। সেই ঘরোয়া পরিবেশের খোলস বদলে অস্কার আজ বিনোদন জগতের সবচেয়ে আকর্ষণীয় মঞ্চ।

বিশ্বের কোটি মানুষের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে অস্কার। আসর শুরু হবার আগে থেকেই মুখে মুখে ঘুরে বেড়ায় বছরের সেরা সিনেমাগুলোর নাম। কোন কোন সিনেমা নমিনেশন পেলো। আর কোনটি সেরা চলচ্চিত্র হিসেবে পুরস্কার জিতবে, এ নিয়ে বিস্তর আলোচনায় মগ্ন থাকেন সিনেমাপ্রেমীরা। সেরা অভিনেতা অভিনেত্রী নিয়েও কম আলোচনা হয়না! চলচ্চিত্র জগতে অস্কারকে এতোটাই সম্মানের মানা হয়; প্রিয় অভিনেতা অস্কার না জিতলে ক্ষোভে ফেটে পড়েন কেউ কেউ। লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও তার উদাহরণ হতে পারে। ডি ক্যাপ্রিও’র মতো তারকা অভিনেতা এতো এতো ভালো সিনেমা উপহার দেয়ার পরও অস্কার না পাওয়ায় অনেকে অস্কারের নীতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলো!

ইতিহাসের অন্যতম সেরা ছবি ‘টাইটানিক’ সিনেমায় মোট ১৩টি বিভাগে অস্কার পেলেও পাননি ডি ক্যাপ্রিও। কিন্তু রেভেন্যান্ট সিনেমায় সেরা অভিনেতার পুরস্কার জিতে সে সমালোচনা কিছুটা ঢাকা পড়েছে! চলচ্চিত্র ইতিহাসের প্রভাবশালী ও সবচেয়ে প্রাচীনতম এই পুরস্কারের দায়িত্বে থাকে ‘’একাডেমি অব মোশন পিকচার্স অ্যান্ড সাইন্স’ নামের একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। শত শত সিনেমা ও অভিনেত্রী থেকে যোগ্যদের মনোনয়ন দেয় এই প্রতিষ্ঠানটি। ৬ হাজারেরও অধিক সদস্য সেরাদের বেছে নিতে সাহায্য করেন। তবে নমিনেশনের মূল হিসেবটি মিলাতে হয় লন্ডনভিত্তিক বহুজাতিক অর্থবিষয়ক সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান প্রাইস ওয়াটার কুপারস (পিডব্লিউসি)। মেধা মনোনের পুরস্কার হলেও অস্কার মূলত একটি গাণিতিক পদ্ধতিতে হাঁটে। ভোটের উপর নির্ভর করে কে পুরস্কার জিতবেন। আর ভোটাভুটির হিসেবের মূল দায়িত্ব বর্তায় পিডব্লিউসি’র উপর। প্রতিবছর অস্কারের তালিকা তৈরি করতে প্রায় ১৭ হাজার ঘন্টা ব্যয় করে প্রতিষ্ঠানটি।

১৯৩৫ সাল থেকে ভোটের আয়োজন থেকে শুরু করে ফলাফল তৈরি করে নমিনেশনের তালিকাটি একাডেমিতে পাঠানোর কাজ করে আসছেন তাঁরা। তবে নমিনেশনের ক্ষেত্রে একাডেমি’র সুনির্দিষ্ট নিয়ম-নীতির আলোকেই কাজ করে প্রতিষ্ঠানটি। বিখ্যাত প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এমজিএম এর শিল্প নির্দেশক সেডরিক গিবসনের নকশায় প্রস্তুত অস্কার দেয়া হয় মোট ২৪ টি ক্যাটাগরিতে। সেরা সিনেমা, সেরা মৌলিক চিত্রনাট্য, সেরা পরিচালক, সেরা অভিনেতা, সেরা অভিনেত্রী, সেরা পার্শ্ব অভিনেতা, সেরা সুরকার, সেরা মৌলিক গানসহ ২৪ টি বিভাগে অস্কার দেয়া হয়। এবারের আসরেও ছিলো বিগত আসরের সমান সংখ্যক পুরস্কার।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker