বিনোদনহোমপেজ স্লাইড ছবি

কি জাদু অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ড গেমে?

আসছে ২৬ এপ্রিল Avengers: Endgame রিলিজ পেতে যাচ্ছে দুনিয়াজুড়ে। এত বছর ধরে মারভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্স বা এম সি ইউ এই Endgame এর ঘটনাই সাজাচ্ছিল তাদের সব মুভিতে। আর মাত্র ১ মাস বাকি, গেল সপ্তাহে দ্বিতীয় ট্রেইলার দেখানো হয় সবাইকে। মারভেল এর হেড কেভিন ফাইগির মতে, ট্রেইলারের জন্য মার্কেটিং টিম শুধু মুভির প্রথম ১৫ মিনিট ব্যবহার করছে বা করতে পারবে। ডিরেক্টর যুগল অ্যান্থনি এবং যো রুসোর মতে, শুধু মাত্র ৮ মিনিটের ফুটেজ ব্যবহার করতে দেওয়া হয়েছে মার্কেটিং টিমকে।

ট্রেইলার শুরু হয় টোনি স্টারক কে দিয়ে। মহাকাশে বসে সে তার আয়রন ম্যান সুট এর হেলমেট এর সাথে কথা বলছে এবং কিভাবে সে অনেক বছর আগে অপহৃত হয়ে গিয়েছিল টেররিস্টদের হাতে তা চিন্তা করতে থাকে। তার অস্ত্র বিক্রেতা থেকে আয়রন ম্যান হয়ে উঠার গল্প মনে পড়ে তার। মহাকাশে বিলীন হয়ে যাওয়ার অপেক্ষায় থাকা টোনি কথায় কথায় বলে উঠে, “রেস্কিউ ইজ মোর ফান দেন ইট সাউন্ডস” যা আমার মতে কমিক্স এ পেপার পটস এর “রেস্কিউ” আরমর সুট এর ইঙ্গিত দেয়।

টোনি ছাড়াও বাকি সবাইকেই তাদের পুরনো দিনের কথা মনে করতে দেখা যায়। ক্যাপ্টেন আমেরিকার সৈনিক হয়ে ওঠা, হক আই এর তার মেয়ের সাথে তিরন্দাজি করা, থর এর বাবার স্মৃতি, ব্ল্যাক উইডো এর হক আই এর সাথে বন্ধুত্ব ইত্যাদি সব উঠে আসে। অ্যান্ট ম্যান কেও দেখা যায় দুনিয়াতে ফেরত চলে এসেছে, কারণ শেষ বার তাকে কোয়ান্টাম রেল্ম এ আটকে থাকা অবস্থায় দেখানো হয়েছিল। এতো বড় ক্ষতির পরও তারা হাল ছাড়বেনা। তাদের ভাষ্যমতে “ওয়াটেভার ইট টেকস” , তারা করতে রাজি। সবাইকে দেখা যায় এক নতুন সুট পরা অবস্থায়। টাইম ট্রাভেল জাতীয় কোন সুট হতে পারে, বা কোয়ান্টাম রেল্ম এর সাথে সম্পর্কিত কোনও সুট। টোনি স্টারককেও দেখা যায় তাদের সাথে হাঁটতে। Avengers: Endgame এর লোগো দেখানো হয়েছিল।লক্ষণীয় বিষয় হল পুরো ট্রেইলার জুড়ে একেক সময় ব্ল্যাক উইডোকে একেক চুলের স্টাইলে দেখা যায় যা থেকে আমরা ধরে নিতে পারি, বার বার থ্যানোস এর সাথে লড়াই করতে দেখা যেতে পারে Endgame এ।

ট্রেইলারের শেষ হয় থর যখন ক্যাপ্টেন মারভ্যালের দিকে এগিয়ে গিয়ে তার স্টর্ম হ্যামার ডাকে। প্রচণ্ড গতিতে তা উড়ে এসে ক্যাপ্টেন মারভেলের কানের পাশ দিয়ে চুল উড়িয়ে দিয়ে থরের হাতে পৌছায়। এতে ক্যাপ্টেন মারভেল সামান্যতম ভয় তো পানই না বরং থরের দিকে তাকিয়ে একটা মুচকি হাসি দেন যা দেখে থর বলে “আই লাইক দিস ওয়ান”।


গেল ২৬ মার্চ মুভি আসার ১ মাস বাকি থাকতে মারভেল তাদের অফিসিয়াল টুইটারের মাধ্যমে এই পুরো সিরিজের উল্লেখযোগ্য চরিত্র গুলো তুলে ধরে যেখানে রঙিন ছবির মাধ্যমে যারা থ্যানোস এর স্ন্যাপ এর পরে বেঁচে আছে তাদেরকে বুঝানো হয়। এবং সাদাকালো ছবির মাধ্যমে যারা ধুলোয় মিশে গিয়েছে তাদের তুলে ধরা হয়। এখানে উল্লেখ্য যে ব্ল্যাক প্যান্থারের ছোট বোন শুঁড়ি যে স্ন্যাপ এর শিকার হয়েছে তা তার সাদাকালো ছবি বুঝিয়ে দেয়। এর পূর্বে কারও জানা ছিলনা শুঁড়ি এর অবস্থা।


 

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker