বিনোদনহোমপেজ স্লাইড ছবি

জনি ডেপ সম্পর্কে আপনি যা নাও জানতে পারেন

তাহজীর ফাইয়াজ চৌধুরী: জনি ডেপ এই নামটি শুনলেই যে ইমেজটি চোখের সামনে ভেসে আসে সেটি হচ্ছে পাইরেটস অব দ্যা ক্যারিবিয়ান চলচ্চিত্রের সেই এক দুর্ধর্ষ জলদস্যু। জনি ডেপ নিজের সব ব্যতিক্রমধর্মী চরিত্রের জন্য সব সময় দর্শকদের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। তার জীবনের অনেক ঘটনাই সকলে জানেন। কিন্তু এমন অদ্ভুত কিছু ঘটনা জনি ডেপের জীবনে ঘটেছে যা সকলের অজানা। আজ আমরা সেই সব অজানা গল্প সামনে নিয়ে আসবো যা পাঠকদের শিহরিত করবে।

পড়াশোনা ছেড়ে রকস্টার হওয়া জনি ডেপ একজন স্কুল ড্রপ আউট ছিলেন। তিনি পনেরো বছর বয়সেই তার পড়াশুনার পাঠ চুকিয়ে দেন। এর পিছনে কারনও ছিলো। তিনি একজন রকস্টার হতে চেয়েছিলেন। রকস্টার হওয়ার স্বপ্ন তার মধ্যে দানা বাধে যখন তার বয়স বারো বছর। বারো বছর বয়সে তিনি প্রথম গিটার হাতে নেন এবং ঠিক তখন থেকেই তারমধ্যে রকস্টার হওয়ার উন্মাদনা কাজ করে। তার ধ্যান জ্ঞান হয়ে পরে গান। পড়ালেখার আগ্রহ চলে যায়। কিন্তু তার মা-বাবা চেয়েছিলেন ছেলে পড়াশোনা করুক তার ছেলেকে জোর করে স্কুলে পাঠান তারা। যতই স্কুলে পাঠানো হোক জনি ডেপের মন তার গিটারেই পরে থাকে। শুনতে অদ্ভুত লাগলেও সত্য যে তাকে স্কুল ড্রপ করে গিটারে মনোযোগী হতে আগ্রহ যুগিয়েছিলেন তার নিজ স্কুলের প্রিন্সিপাল। কি খুব অবাক লাগছে? কিন্তু এটা সত্য ঘটনা।

তিনি মাত্র ২০ বছর বয়সে লরি আন আলিসনকে বিয়ে করেন। তখন তার আর্থিক অবস্থা খুবই খারাপ ছিলো। তাই তিনি নিজের এবং নিজ সংসার পরিচালনার জন্য একটি বলপেন কোম্পানিতে ছোট্ট একটি কাজ নেন, যা দিয়ে তিনি জীবিকা নির্বাহ করতেন। তিনি তার স্ত্রীর সাথে মাঝেমধ্যেই বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়াতেন এবং এই ঘুরে বেড়ানোর মাঝেই তার হঠাৎ একদিন পরিচালক নিকোলাস কেজের সাথে দেখা হয়। নিকোলাস তাকে অভিনয়ে মনোযোগী হতে বলেন এবং পরবর্তীতে ১৯৮৪ সালে তাকে একটি স্বল্প বাজেটের ছবি ‘এ নাইটমেয়ার অন ইলম স্ট্রিট’ এ অভিনয়ের সুযোগ করে দেন।

মূলত তখন থেকেই কেজের সাথে ডেপের বন্ধুত্ব শুরু হয়। জনি ডেপ অনেকের সাথে ডেট করেছেন। তার অর্ধ ডজনের মত বাগদত্তাও ছিলো কিন্তু অধিকাংশ প্রেমই পরিণয়ে পৌছাতে পারে নি। জনি ডেপের প্রথম বিয়ে হয় ১৯৮৩ সালে লরি আন আলিসনের সাথে এবং দ্বিতীয় বিয়ে হয় ২০১৫ সালে এম্বার হেয়ার্ডের সাথে। তার দুটি বিয়ের বয়সই ছিলো মাত্র দুই বছর করে। কিন্তু তার সবচেয়ে দীর্ঘদিনের প্রেমিকা ফ্রেঞ্চ গায়িকাএবং অভিনেত্রী ভেনেসা প্যারাডাইসের সাথে তার সম্পর্ক বারো বছর সময় পর্যন্ত স্থায়ী ছিলো এবং তাদের ঘরে একটি ছেলে এবং একটি মেয়ে হয়েছিলো। তাদের বিচ্ছেদের পেছনের কারন হিসেবে ডেপের এম্বার হেয়ার্ড এর প্রতি আকর্ষণ অনুভব করাকে দায়ী বলে মনে করা হয়। তবে এম্বারের সাথেও তার বিয়ে বেশিদিন টেকে নি। তাই বলাই যায় তার জীবনে পরিণয় সুখকর ছিলো না।

কখনো কাউকে কুকুর নিয়ে ভ্রমণ করার জন্য জেলে যেতে শুনেছেন? জনি ডেপের জীবন মনে হয় তার চরিত্রগুলোর মতই অদ্ভুত। হ্যা! ঠিকই বলছি, জনি ডেপ কুকুর নিয়ে ভ্রমণের জন্য জেলে গিয়েছিলেন। জনি ডেপ এবং তার তৎকালীন স্ত্রী এম্বার হেয়ার্ড তখন পাইরেটস অফ দ্যা ক্যারিবিয়ান মুভির শুটিং এ অস্ট্রেলিয়ায় গিয়েছেন। অস্ট্রেলিয়ান সরকার বায়োসিকিউরিটি আইনের কঠোরতার জন্য অনেক জনপ্রিয়। তারা চায় না তাদের দেশে রোগবালাই বা অবৈধ মাদকদ্রব প্রবেশ করুক। আর কুকুর নিয়ে ভ্রমণের ক্ষেত্রে তারা অনেক কঠোর। কুকুর নিয়ে ভ্রমণের ক্ষেত্রে কুকুরের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে সেই সার্টিফিকেট সরকারকে দেখাতে হয় যে কুকুর কোনো ধরনের জীবাণু ছড়াবে না। কিন্তু ডেপ দম্পতি কুকুরের স্বাস্থ্য পরীক্ষার কাগজ ঠিকঠাক না করেই অস্ট্রেলিয়ায় কুকুর নিয়ে যায়। এতে তাদের জেলে যেতে হয় এবং কঠোর শাস্তি হবে বলে জানানো হয়। ডেপ দম্পতি এরপর একটি ভিডিও ক্লিপের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকদের কাছে নিজেদের ভুলের জন্য ক্ষমা চান এবং তাদের শাস্তি মৌকুফ করা হয়।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker