বিনোদনহোমপেজ স্লাইড ছবি

ভালোবাসা দিবসের ভালো নাটক ‘মুখ ও মুখোশের গল্প’

সাইদুর বিপু: পরস্পরের প্রতি ভালোবাসা, সম্মান, ত্যাগ এবং দ্বায়বদ্ধতা থাকা লাগে প্রতিটা সম্পর্কের ক্ষেত্রে। বলা হয়ে থাকে, একটা ঘরের টিকে থাকা নির্ভর করে কয়েকটা খুঁটির উপর, তেমনি এসবই হলো সম্পর্কের মূল খুঁটি; যার উপর দাঁড়িয়ে থাকে সব সম্পর্ক। সম্পর্ক না হয় তৈরি হলো কিন্তু নিজস্ব ব্যাক্তিক গুনাবলীর খবর কে রাখে?

যদি না কেউ নিজের ভেতরে সততা ও নীতি ধরে রাখতে পারে তাহলে আর যাই হোক সেই মানুষটি কে দিয়ে কোন সম্পর্কই টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে না। আপনি প্রচন্ড ভাবে কাউকে ভালোবাসেন কিন্তু আপনার ভেতরে সততা নেই তাহলে আর যাই হোক, সেটা ভালোবাসা না। আরেকটু স্পষ্ট করে বলতে গেলে, অসৎ কিংবা নীতিহীন মানুষ কখনো ভালোবাসতে পারে না, বড়জোর ভালোবাসাবাসির দুর্বল অভিনয় করতে পারে।

আমরা প্রত্যেকেই এক ধরনের মুখোশ পড়ে থাকি। সেটা রাস্তায় চলা মানুষ থেকে শুরু করে নিজের একান্ত প্রিয়জনের সাথেও এক প্রকার মুখোশ পড়ে থাকি। একমাত্র আয়নায় যখন নিজেকে দাঁড় করাই তখন নিজের আসল চেহারা ভেসে উঠে আমাদের সামনে। তবে এখন আমরা আয়নায় ‘আসল আমি’ কে দেখার চেয়ে, অন্যের সামনে আরো কিভাবে নিজের মুখোশ ধরে রাখা যায় সেই চর্চাই করে থাকি!

পরিচালক আশাফাক নিপুনের এবারের ভালোবাসা দিবসে বানানো নাটকের গল্প অনেকটা আমাদের “এই সময়ে” চলা দুজন মানুষের ভালোবাসাবাসি নিয়ে তৈরি করা। ‘এই সময়ে’র মধ্যে মার্ক করে দেয়ার কারণটা আপনি নাটক দেখার সময় বুঝতে পারবেন, ঐটা বলে দিলে স্পয়লার হয়ে যাবে। তাই সেদিকে না গিয়ে কেমন হলো নাটকটি, বরং তাই বলি…

এই ধরনের গল্পের নাটক আপনি হয়তো আগেও দেখে থাকতে পারেন। খুব আহামরি কিংবা অনাড়ম্বর গল্পের চেয়ে খুবই সাধারণ, হয়তো আপনার চারপাশে এমন ঘটনার সাক্ষী আপনি নিজেও হয়ে থাকতে পারেন। কিন্তু অল্প পরিসরে নাটকের উপস্থাপনা ভালো। তবে খুব সম্ভবত তাড়াহুড়ো আর বাজেটের সল্পতার কারণে একটা ফ্ল্যাট আর একটি গাড়ির মধ্যেই নাটকের শ্যুটিং শেষ করতে হয়েছে। তবে তা পরিচালকের বলতে চাওয়া গল্প দর্শকের কাছে পৌছাতে বাঁধা হয়ে উঠেনি।

 

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker