সোমবার, ২৯ মে ২০১৭
webmail
পানামা: পানামার ম্যানগ্রোভ অরণ্যগুলোর বিপদ ঘনিয়েছে পরিবেশের দরুণ নয়৷ এখানকার মানুষজন গরু পোষেন আর গরুর চামড়া ‘ডাই' বা রং করার প্রিয় উপাদান হলো ম্যানগ্রোভ গাছের ছাল৷ তাও ধারাবদলের চেষ্টা চলেছে৷ পানামার দক্ষিণ উপকূলে চিরিকি প্রদেশ৷ সেখানকার ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট বা শ্বাসমূল অরণ্য গ্রামগুলিকে সাগরের বান থেকে রক্ষা করে; ম্যানগ্রোভ শিকড়ের ফাঁকে-ফোকরে বহু
ঢাকা: মাত্র তিন থেকে পাঁচ ইঞ্চি লম্বা এই পাখিগুলির চেহারা, খাবার-দাবার, আচার-আচরণ, সবই অসাধারণ৷ ফুলের মধু খায় মৌমাছিদের মতো; পিছন দিকে উড়তে পারে পোকামাকড়ের মতো; আবার হাজার হাজার মাইল পরিভ্রমণ করে... বিশ্বের সবচেয়ে ছোট পাখি ট্রকিলিডে পরিবারের ক্ষুদ্রতম সদস্য এই ‘বি হামিংবার্ড’ বা মৌমাছি হামিংবার্ড, ঠোঁট সুদ্ধু মাত্র দুই ইঞ্চি লম্বা, ওজনে
ঢাকা: হুম, খুবই গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন এখন৷ অন্তত খাওয়ার পানি বয়ে নেয়ার জন্য প্লাস্টিক বোতল ব্যবহারের প্রয়োজন বোধহয় খুব বেশ দিন আর থাকবে না৷ বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করেছে এক ভিন্ন পন্থা, যা দেখতে ‘স্মার্ট’ আর পান করতেও মজা৷ বলছি, খাওয়ার যোগ্য ছোট ছোট পানির বলের কথা৷ দেখতে অনেকটা পিংপং বলের মতো এসব পানিবাহী
ঢাকা: চওড়া করা হবে যশোর রোড৷ সেই কারণে কেটে ফেলতে হবে রাস্তার দুই ধারের প্রায় চার হাজার গাছ, যাদের বয়স গড়ে ৩০০ বছর৷ শুরু হয়েছে সেই গাছ বাঁচানোর লড়াই৷ রাহুল দে বিশ্বাস৷ একজন সমাজকর্মী৷ ১৫ এপ্রিল, বাংলা বছরের প্রথম দিন, বনগাঁ থেকে হাবড়া – যশোর রোড ধরে ৩০ কিলোমিটার রাস্তা হাঁটলেন
ঢাকা: ষাটের দশকের বেশ জনপ্রিয় একটা গানের শুরুটা এমন – ‘নেবনা সোনার চাঁপা কনকচাঁপা পেলে।’ কনকচাঁপা যারা চেনেন তাদের কাছে বেপারটা তেমনই। এমনই এর রূপ-মাধুর্য্। বলা হচ্ছে ‘কনকচাঁপা’ ফুলের কথা। ‘কনকচাঁপা’ অচনাসিয়াই(Ochnaceae)পরিবারে ছোট বৃক্ষ জাতীয় গাছ। বোটানিক্যাল নাম ‘অচনা অবতুসাতা’(Ochna obtusata), ‘অচনা ইন্টিগেরিমা’(Ochna Integerrima)নামেও পরিচিত। বাংলাদেশে এ গাছটি প্রায় দুর্লভ। ঢাকাতে
ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জীববৈচিত্র্য টিকিয়ে রাখার জন্য কৃষি, শিল্পসহ সকল ক্ষেত্রে ব্যবহারযোগ্য পানির প্রাপ্যতা জরুরি। তিনি বলেন, নদীমাতৃক বাংলাদেশে সুপেয় পানির গুরুত্ব অপরিসীম। ভূ-গর্ভস্থ পানির অত্যাধিক ব্যবহার, লবণাক্ততা বৃদ্ধি, জনসংখ্যা বৃদ্ধি, নগরায়ন ও শিল্পায়ন, মারাত্মক পরিবেশ দূষণ, পানি প্রবাহে কৃত্রিম বাধা সৃষ্টি ও জলবায়ু পরিবর্তন সুপেয় পানির উৎসকে ক্রমশঃ
উত্তর গোলার্ধের মানুষরা শীতের ছয় মাস বৃষ্টি, বরফ আর আঁধারিতে কাটানোর পর বসন্তের জন্য যেন মুখিয়ে থাকেন৷ সেই আকুলতা অভিব্যক্তি পেয়েছে এই পাঁচটি ক্লাসিক ক্যানভাসে৷ আপেলগাছের সাদা ফুল আর চেরি গাছের গোলাপি ফুল - এই মিলিয়েই তো বসন্ত৷ প্রথমে ফুল, পরে ফল৷ বসন্তে সেইরকম একটি ফুলের বাগানের ছবি এঁকেছেন ব্রিটিশ চিত্রকর
সুইজ: সুইজারল্যান্ডের বিজ্ঞানীরা বলছেন, সারা বিশ্বে মাকড়সাগুলো কী পরিমাণ খাদ্য গ্রহণ করে সেই হিসেব তারা বের করেছেন। বাজল্ বিশ্ববিদ্যালয়ের জীববিজ্ঞানীরা বলছেন, মাকড়সারা প্রতি বছর ৪০০ থেকে ৮০০ মিলিয়ন টন খাবার খায়। এর বেশির ভাগটাই পোকামাকড়। প্রতি বছর মানুষও প্রায় একই পরিমাণ মাংস খেয়ে থাকে। ড. মার্টিন নিফলার চার দশক ধরে গবেষণা চালিয়ে এই
ঢাকা:  ফারাক্কা ও গাজলডোবা বাঁধ ভেঙে দেয়ার দাবি তুলেছে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) ও জাতীয় নদী রক্ষা আন্দোলন। একইসঙ্গে জাতিসংঘ পানি প্রবাহ আইনের ভিত্তিতে গঙ্গা ও তিস্তা অববাহিকায় আঞ্চলিক পানি ব্যবহার চুক্তি নিশ্চিত করার দাবি জানান তারা।   সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে তারা এ দাবি জানায়।     সংবাদ সম্মেলনে
ঢাকা: বজ্রপাত রোধে সারা দেশে ১০ লাখ তালগাছ রোপণ করা হবে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া। শুক্রবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জাতীয় দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবস ২০১৭ উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় একথা বলেন মন্ত্রী। এছাড়া বজ্রপাত পূর্ব সংকেত জানার জন্য ভিয়েতনাম থেকে অত্যাধুনিক যন্ত্র আনা হবে বলেও
ঢাকা: আরেকটা ‘গাইসাল’ হয়ে যেতে পারতো ‘লাল গ্রহের অচেনা মুল্লুকে! বড়সড় অ্যাক্সিডেন্ট ঘটতে যাচ্ছিল মঙ্গলে! হতে পারত বড়সড় ‘রক্তপাত’! থরথর করে কেঁপে উঠতে চলেছিল গোটা মঙ্গল-মুলুল্লুক! ঘোর অমঙ্গল ঘটতে চলেছিল এই ব্রহ্মাণ্ডে আমাদের ‘পড়শি গ্রহ’ মঙ্গলের চাঁদ ‘ফোবস’-এর! চুরচুরিয়ে ভেঙে যেতে পারতো নাসার মহাকাশযান ‘মাভেন’! অল্পের জন্য বেঁচে গেল পৃথিবীও, হঠাৎ করে
ঢাকা: সিলেট বিভাগের হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলায় অবস্থিত এই উদ্যান নানা পাখি আর বন্যপ্রাণীর আবাসস্থল৷ এখানে প্রায় ১৪৯ প্রজাতির পাখি, ২৪ প্রজাতির স্তন্যপায়ী, ১৮ প্রজাতির সরীসৃপ এবং ৬ প্রজাতির উভচর প্রাণীর সন্ধান মিলেছে৷ প্রায় ২৪৩ হেক্টর জায়গা জুড়ে বিস্তৃত সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান রঘুনন্দন পার্বত্য বনভূমির অংশ৷ জুম চাষ করতে করতে এক
ঢাকা: সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কাকে নাকচ করে দিয়েছেন বিশেষজ্ঞ ও আলোচকেরা। তারা বলেছেন, যত দিনে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়বে, তত দিনে বাংলাদেশ উপকূল রক্ষার কৌশল রপ্ত করে ফেলবে। দেশের ১৭ শতাংশ এলাকা ডুবে যাওয়ার যে কথা বলা হচ্ছে, সেটাও সত্য নয়। রোববার সংসদ ভবনের আইপিডি মিলনায়তনে
ঢাকা: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ভিসি অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেছেন, “সত্য অনুসন্ধান ও প্রকাশের লক্ষ্যে এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।” তিনি বলেন, “শিক্ষার্থীদের সত্যকে ধারণ করতে হবে এবং সমাজে সত্য প্রতিষ্ঠার জন্য অব্যাহত প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে।” বৃহস্পতিবার আরসি মজুমদার আর্টস মিলনায়তনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলা বিভাগ আয়োজিত ‘ডক্টর
কাঠমুন্ডু: নেপালে দু বছর আগে যে ভূমিকম্প হয়েছিল তাতে বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ হিমালয়ের মাউন্ট এভারেস্টের উচ্চতা কমে গেছে কিনা - তা নতুন করে মেপে দেখার উদ্যোগ নিয়েছে ভারতের জরিপ বিভাগ। ভারতের সার্ভেয়ার জেনারেলর বলেন, সেই ভূমিকম্পে এভারেস্টের উচ্চতা কমে গেছে বলে কিছু বিজ্ঞানী বিশ্বাস করেন। ভারতের একটি জরিপে ৬২ বছর আগে বলা
মেলবোর্ন: অস্ট্রেলিয়ার প্রাণঘাতী মারাত্মক কুমির কিংবা বিষাক্ত মাকড়সা- বিষয়ে আপনি হয়তো শুনেছেন কিংবা অনেক বইতেও পড়েছেন। কিন্তু এটা জানেন কি? সেখানে এমন ধরনের গাছ রয়েছে যার কারণে আপনি চাইবেন আপনার যেন দ্রুত মৃত্যু ঘটে! ‘ড্রেনড্রকনাইড মরইডেস নামক’ এ ধরনের প্রাণঘাতী গাছ অস্ট্রেলিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রেইনফরেস্টে দেখতে পাওয়া যায়। এটি ‘আত্মহত্যার গাছ’
খুব অপ্রত্যাশিত জায়গায় এদের জন্ম, বা গজিয়ে ওঠা৷ কিন্তু বর্ণ ও বৈচিত্রে এরা অন্যন্য৷ আমরা অনেকেই হয়ত এদের দিকে খেয়াল করি না৷ তাই আসুন এই ছবিঘরের মাধ্যমে তাদের দিকে ফিরে তাকাই ক্ষুদ্র বিস্ময় অরণ্যের মাটির দিকে ভালোভাবে তাকালে, গাছের গুড়িতে বা স্যাঁতস্যাঁতে দেয়ালে এদের দেখা পাবেন৷ এদের সর্বত্রই দেখা যায়৷ এদের উজ্জ্বল বর্ণ
রাজশাহী: রাজশাহী এলাকার পদ্মা নদীতে পরিযায়ী (অতিথি) পাখি মরে ভাসছে। বিগত কয়েক দিন ধরে এ ধরনের মৃত পরিযায়ী পাখি পদ্মায় ভেসে থাকতে দেখা যাচ্ছে। এলাকাবাসীর ধারণা, শিকারির বিষটোপ খেয়ে পরিযায়ী পাখি মারা পড়ছে।   জানা যায়, শীত মৌসুমে ঝাঁকে ঝাঁকে বাংলাদেশে আসে এসব অতিথি পাখি। রাজশাহীর নদী-নালা, খাল-বিল ও হাওর-বাঁওড়ে বিচরণ করে এসব
নীলফামারী: নীলফামারী জেলার সৈয়দপুরে মাঠে মাঠে সরিষার আবাদ। এখন অপরুপ সৌন্দর্য বিলাচ্ছে সরিষা ফুলের হলুদ সমারোহ। শীতের শিশির ঝরা ফুলের পাঁপড়িতে শীতের সকালে রোদের ঝিলিক আর বাতাসে সরিষা ফুলের সৌরভ ছড়াচ্ছে চারদিকে। একদিকে বোরো বীজতলা তৈরির কাজ চলছে পুরোদমে। তাই কৃষকের এখন ব্যস্ততার কমতি নেই। শিশির ঝরা সকাল সরিষা ক্ষেত মাড়িয়ে
নতুন এক গবেষণায় উঠে এসেছে ক্ষিপ্রগতির জন্য বিখ্যাত বণ্য প্রাণী চিতাবাঘ বিলুপ্ত হবার পথে। সম্প্রতি প্রকাশিত এক গবেষণায় বলা হচ্ছে প্রাণীটির সংখ্যা উল্লেখযোগ্যহারে কমছে। গবেষণাটির হিসেব অনুসারে, বিশ্বজুড়ে বনে জঙ্গলে এখন মাত্র মাত্র ৭ হাজার ১শ'টি দ্রুতগামী চিতা টিকে আছে। বন্যপ্রাণীদের জন্য সংরক্ষিত এলাকার বাইরেই ৭৭ শতাংশ চিতার বসবাস এবং এ কারণে মানুষের
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আজকের আবহাওয়া
সারাদেশের তাপমাত্রা


শিরোনাম
Top