আনন্দঘন পরিবেশে কানাডায় বাংলা বর্ষবরণ | expatriate | natunbarta.com | Top Online Newspaper in Bangladesh
শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৭
webmail
Mon, 17 Apr, 2017 10:17:28 AM
ম্যানিটোবা থেকে
মোহাম্মদ সাকিবুর রহমান খান
নতুন বার্তা ডটকম

উনিপেগ: কানাডার ম্যানিটোবা প্রভিন্সের রাজধানী উনিপেগ বাংলা নববর্ষ ১৪২৪ কে বরণ করে নেয় ম্যানিটোবায় অবস্থিত বাংলাদেশিরা।

স্থানীয় একটি হলরুমে এই অনুষ্ঠানের আয়োজক ছিল ম্যানিটোবাস্থ কানাডা-বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন (CBA)।



অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপিস্থিত ছিলেন ম্যানিটোবার স্পোর্টস, কালচারলার ও হেরিটেজবিযয়ক মন্ত্রী মিসেস রচিলা স্কোরিস।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উনিপেগ সাউথ এর মেম্বার অফ পার্লামেন্ট টোরি ডুগাদা।

মন্ত্রী রচিলা স্কোরিস বাঙালি ঐতিহ্যের শাড়ি পরে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন। প্রথমে অতিথিসহ সমবেত সকলকে পান্তা, ইলিশ, ভর্তা ডাল দিয়ে আপ্যায়ন করা হয়।

মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠানের শুরু হয়। বিভিন্ন ধরনের মুখোশ পরে শিশুরা, লুঙ্গি-পাঞ্জাবি মাথায় গামছা পরে পুরুষ রা আর মহিলারা বিভিন্ন রঙ-বেরঙয়ের শাড়ি পরে এই শোভাযাত্রায় অংশ নেয়।



আমন্ত্রিত অতিথি স্পোর্টস, কালচারলার ও হেরিটেজবিযয়ক মন্ত্রী রচিলা স্কোরিস কানাডায় অবস্থিত বাংলাদেশিদের প্রশংসা করে বলেন, কানাডা একটি মাল্টি কালচালার দেশ। এই দেশ সব দেশের মানুষের ভাষা ও কালচারকে লালন করতে বদ্ধ প্রতিকর। তিনি সকলকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান।   

উনিপেগ সাউথ এর মেম্বার অফ পার্লামেন্ট টোরি ডুগাদা বলেন, তার নির্বাচনী এলাকার মানুষ ৫০টা ভাষায় কথা বলেন। তিনি এই ভাষার বৈচিত্রকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, এই দেশে সব ভাষার মানুষের সমান অধিকার আছে এবং সবাই তাদের নিজ নিজ সংস্কৃতি স্বাধীনভাবে পালন করতে পারবে।

কানাডা-বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন (CBA), এর সভাপতি ডক্টর রহিদুল মন্ডল এই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের সকল ধর্মের মানুষের অংশগ্রহণকে দেখেছেন অসাম্প্রাদিয়ক বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি হিসেবে।



এর পর ফয়সাল চৌধুরীর পরিচালনায় শুরু হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে শিশুরা গান, নাচ পরিবেশন করেন। কেউ করেন কবিতা আবৃতি।

অনুষ্ঠানের অন্যতম প্রধান আকর্ষণ ছিল বিভিন্ন স্টল। এই সব স্টলে বাংলাদেশি চিরাচরিত বিভিন্ন খাবার। এই খাবারের মাঝে উল্লেখযোগ্য ছিল বিভিন্ন ধরণের পিঠা-পুলি, সিঙ্গারা, ঝালমুড়ি, অনুষ্ঠানস্থলে ভাজা গরম ভাজা পিয়াজু, বিরিয়ানি, বিভিন্ন ধরণের আচারসহ রকমারি খাদ্য পণ্য।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথির বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন এবং বিভিন্ন খাদ্য দ্রব্য কিনে খান। সারাদিনভর চলতে থাকা এই অনুষ্ঠানে প্রায় হাজার খানেক বাংলাদেশিসহ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কানাডিয়ান এবং পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মানুষ অংশগ্রহণ করেন।     

এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে বিনামূল্যে মেহেদী উৎসব এর আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শেষে আকর্ষণীয় র‌্যাফেল ড্র পরিচলনা করেন রেজা কাদেরী।

নতুন বার্তা/এএইচ


Print
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ


শিরোনাম
Top