বিদেশ

আযান শুনে ভাষণ থামালেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী

দিল্লি: ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ মোদি আযানের শব্দ শুনে ভাষণ থামিয়ে দিলেন।

শনিবার সন্ধ্যায় দিল্লিতে বিজেপি’র সদরদফতরে দলীয় নেতা-কর্মীদের সভায় ভাষণ দেয়ার সময় পাশের একটি মসজিদ থেকে আসা মাগরিবের আযানের শব্দ শুনে ভাষণ বন্ধ করে দেন। তাকে এ সময় বেশ কিছুক্ষণ ধরে নীরব হয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

মোদি বলেন, আযানের জন্য দু’মিনিট থামা হচ্ছে। তার পাশাপাশি দলীয় সদস্য সমর্থকরাও এ সময় সকলেই নিশ্চুপ হয়ে থাকেন। আযান শেষ হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী পুনরায় ভাষণ দেয়া শুরু করেন।

প্রধানমন্ত্রী উত্তর-পূর্ব ভারতের তিন রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি ভালো ফল করার পর তিনি দলীয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দিচ্ছিলেন।

মোদি ভাষণ দেয়ার সময় মঞ্চে বিজেপি’র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রাজনাথ সিং, পররাষ্ট্র মন্ত্রী সুষমা স্বরাজ, অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিসহ বিজেপির সিনিয়র নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এর আগেও আযান শুনে তার ভাষণ থামিয়েছিলেন। কিন্তু তা ছিল নির্বাচনি সমাবেশে ভাষণ দেয়ার সময়। এবার বিজেপি’র দলীয় সদর দফতরেও ভাষণ দেয়ার সময় আযান শুনে ভাষণ থামিয়ে দিলেন তিনি।

২০১৬ সালে পশ্চিমবঙ্গের পশ্চিম মেদিনীপুরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নির্বাচনি সমাবেশে ভাষণ দেয়ার সময় সমাবেশস্থল থেকে কিছুটা দূরের এক মসজিদ থেকে আযানের আওয়াজ শুনে ভাষণ বন্ধ করে দিয়েছিলেন। এ সময় তিনি নিজেই শুধু নীরব হয়ে থাকেননি, সমাবেশে উপস্থিত দলীয় সমর্থকদেরও চুপ থাকার জন্য আহ্বান জানান। উপস্থিত জনতার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘ক্ষমা করবেন, আমাদের জন্য কারো উপাসনায় সমস্যা হওয়া উচিত নয়। এজন্য আমি কিছু সময় বিরতি দিয়েছি।’

নতুন বার্তা/এমআর

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker