বৃহস্পতিবার, ২৪ মে ২০১৮
Sun, 06 May, 2018 07:39:51 PM
নিজস্ব প্রতিবেদক
নতুন বার্তা ডটকম

ঢাকা: গাজীপুরের সিটি করপোরেশনের নির্বাচন তিন মাসের জন্য স্থগিত করেছে হাইকোর্ট। সাভারের শিমুলিয়া ইউনিয়নের ছয়টি মৌজাকে গাজীপুরের সিটি করপোরেশনের অন্তর্ভূক্ত করার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে এক রিট আবেদনের শুনানি শেষে রোববার) বিচারপতি নাঈমা হায়দারের নেতৃত্বাধীন দুই সদস্যের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

একইসঙ্গে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সচিব, ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (সিটি করপোরেশন-২),ঢাকা জেলা প্রশাসক, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ ৯ জনকে এ সংক্রান্ত একটি রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

শিমুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এবিএম আজহারুল ইসলাম সুরুজ তার এলাকার ছয়টি মৌজা গাজীপুর সিটি করপোরেশনের অন্তর্ভূক্ত করার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট দায়ের করেন।রিটে বলা হয়, ২০১৩ সালে এ ছয়টি মৌজাকে গাজীপুরের সিটি করপোরেশনের অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছিল।

পরবর্তীতে,  ২০১৬ সালে শিমুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে এ ছয়টি মৌজা শিমুলিয়ার মধ্যেই ছিল। নির্বাচনে আজহারুল ইসলাম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এখন আবার এ ছয় মৌজাকে সিটিতে অন্তর্ভূক্ত করা হলে তার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রীট করা হয়।

ওদিকে, খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের কোনো ঘাটতি দেখছেন না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা।
রোববার খুলনা সার্কিট হাউসের সম্মেলন কক্ষে সিটি নির্বাচন উপলক্ষে বিভাগীয় সমন্বয় কমিটির দুই ঘণ্টার সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেন, ভোটাররা যাতে স্বতঃস্ফূর্তভাবে এবং নিরাপদে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন তার সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে নির্বাচন কমিশন। এ লক্ষে খুলনা বিভাগের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত প্রতিষ্ঠানগুলো দক্ষতার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে। ১৫ মে’র নির্বাচন সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য হবে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, নির্বাচন পরিচালনার কাজে কোন গাফিলতি ও পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। একই সাথে কোন নিরাপরাধ ব্যক্তি যেন হয়রানির শিকার না হয় সেদিকেও তীক্ষ্ণ নজর রাখতে হবে।

বিএনপির দাবি তাদের নেতা-কর্মীদের গণগ্রেফতার করা হচ্ছে সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, গণগ্রেফতার করা হচ্ছে বিএনপির এ অভিযোগ সঠিক নয়। যাদের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে, সন্ত্রাসী, দাগী তাদের গ্রেফতার করছে পুলিশ। নির্বাচনে বিঘ্ন সৃষ্টি করতে পারে এমন ব্যক্তি ও অবৈধ অস্ত্রধারীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে।

সিটি নির্বাচনে ইলক্ট্রেনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) থাকবে কি না সে বিষয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, এ বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। পুলিশের শীর্ষ পদ এবং বিভিন্ন থানার ওসিদের বদলি করার দাবি সম্পর্কিত প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নির্বাচনে এখনও পর্যন্ত পুলিশ তাদের দায়িত্ব পালনে কোনো ব্যত্যয় ঘটায়নি। যে কারণে তাদের বদলির বিষয় নিয়ে ভাবা হচ্ছে না।

গত শনিবার রাতে নগরীর খালিশপুরের ৭নম্বর ওয়ার্ডে বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থী সুলতান মাহমুদ পিন্টুকে লক্ষ্য করে বোমা হামলা ও গুলি করার ঘটনাটিকে অপ্রত্যাশিত মন্তব্য করে তিনি বলেন, এ ঘটনায় মামলা হবে এবং পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নেবে।
নতুন বার্তা/কেকে

 


Print
আরো খবর
    সর্বশেষ সংবাদ


    শিরোনাম
    Top