প্রযুক্তিব্যবসা ও বাণিজ্য

অ্যাপল কে পেছনে ফেলে শীর্ষে মাইক্রোসফট!

আবদুল্লাহ আল মুনতাসির: মাইক্রোসফট কোম্পানি কে আমরা সবাই চিনি। কম্পিউটার এর সাথে পরিচিত এমন কেউ নেই যে মাইক্রোসফট উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করেননি। একচেটিয়া ভাবেই তারা অনেক বছর কম্পিউটার জগতে ব্যবসা করে আসছে এবং একটি বড় কোম্পানি হিসেবেই পরিচিত সবার কাছে। ১৯৭৫ এ পল এলেন ও বিল গেটস এর হাতে মাইক্রোসফট এর যাত্রা শুরু হয় তারপর আশির দশক এর মাঝে প্রচুর খ্যাতি লাভ করে পারসোনাল কম্পিউটার জগতে। তারপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। পারসোনাল কম্পিউটার জগতে একচ্ছত্র আদিপত্যের জোরে অনেক বছরই সবচেয়ে মূল্যবান কোম্পানি হিসেবে মাইক্রোসফট সবার উপরে থাকে। সময়ের আবর্তনে অন্য কোম্পানিরা মাইক্রোসফট কে পিছনে ফেলে এগিয়ে যায়।

২০১১ থেকেই সবচেয়ে মূল্যবান কোম্পানি এর খেতাব সফটওয়্যার জায়ান্ট অ্যাপল এর কাছে। কিন্তু গেল ৩০ নভেম্বর ২০১৮ তারিখ, দিন শেষে মাইক্রোসফট ৮৫১ বিলিয়ন ডলার বাজার মূলধন নিয়ে সবচেয়ে মূল্যবান কোম্পানি হিসেবে তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাপল কে পিছনে ফেলে দেয়। অ্যাপল যেখানে ৮৪৭ বিলিয়ন ডলার দিয়ে দিন শেষ করে। ২০১৪ এ নতুন সি ই ও হিসেবে Satya Narayana Nadella যোগ দেওয়ার পর মাইক্রোসফট এর অবস্থা আগের চেয়ে দ্রুত গতিতে এগিয়ে যেতে থাকে। টানা এত বছর পর আবার সবচেয়ে মূল্যবান কোম্পানি হিসেবে মাইক্রোসফটকে তুলে ধরতে তার চৌকশ দিক নির্দেশনা অনেকাংশেই দায়ী।

মাইক্রোসফটের সি ই ও সত্য নারায়ণ নাদেলা

কিন্তু শুধু তার অবদানই আছে তাই বললে চলবে না। অ্যাপল কিছু সময় ধরেই তাদের শীর্ষ স্থান থেকে ছিটকে পড়ছিলো। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে চায়নার চলতি “ট্রেড ওয়ার” এর প্রভাব পরে অ্যাপল এর ব্যবসায়। অ্যাপল এর আইফোন মূলত চায়নাতেই তৈরি হয় যা অ্যাপল এর মুখ্য একটি পণ্য। চায়নার সাথে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের “ট্রেড ওয়ার” এর ফলশ্রুতিতে বিনিয়োগকারীরা কিছুটা পিছন মুখি হওয়ায় সবচেয়ে মূল্যবান কোম্পানি হিসেবে বাজারের শীর্ষস্থান থেকে অ্যাপল ছিটকে পড়ে এবং মাইক্রোসফট সেই জায়গাটি দখল করে নেয়।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker