ব্যবসা ও বাণিজ্যহোমপেজ স্লাইড ছবি

ট্রেড লাইসেন্স করবেন কিভাবে?

ফাতেমা আক্তার মনিরা: Trade শব্দের অর্থ ব্যবসা আর Licence শব্দের অর্থ অনুমতি। সুতরাং ট্রেড লাইসেন্স শব্দের অর্থ ব্যবসার অনুমতিপত্র।

মুনাফা অর্জনের উদ্দেশ্য বৈধ উপায়ে অর্থনৈতিক কর্মকান্ড কে ব্যবসা বলে। যেহেতু ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে বৈধতার সম্পর্ক বিদ্যমান তাই অনুমতিপত্র গ্রহণ করা বাধ্যতামূলক। কারন বিনা অনুমতি তে যা কিছুই করা হয় তা বৈধ না বা আইন বিরোধী। আপনার যেকোন ব্যবসা শুরু করতে গেলেই ট্রেড লাইসেন্স প্রয়োজন হবে।

এই ট্রেড লাইসেন্স বাংলাদেশ সরকার সিটি কর্পোরেশন কর বিধান-১৯৮৩ এর অধীনে ইস্যু করে থাকে। সিটি কর্পোরেশন, ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা ট্রেড লাইসেন্স প্রদান করেন, সাধারনত উদ্যোক্তাদের আবেদন এর ভিত্তিতে ট্রেড লাইসেন্স প্রদান করা হয়। এই আবেদন করতে হলে উদ্যোক্তাদের বেশ কিছু নিয়ম জানা প্রয়োজন, নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

সাধারণ ব্যবসা

*একটি আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে।
*আবেদনকারীর ৩ কপি পার্সপোর্ট সাইজ এর ছবি।
*ব্যবসায় টি যদি যৌথভাবে পরিচালিত হয় তাহলে পার্টনারশিপের শর্ত সমুহ উল্লেখ করতে হবে। এক্ষেত্রে ৩০০ টাকার নন-গুডিশিয়ান স্ট্যাম্প লাগবে।

ফ্যাক্টরি ট্রেড লাইসেন্স 

*পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্রের কপি।
*প্রস্তাবিত ফ্যাক্টরির অবস্থান।
*ফায়ার সার্ভিস এর ছাড়পত্র।

লিমিটেড কোম্পানি

*আবেদনপত্র জমা।
*সার্টিফিকেট অব ইনকর্পোরেশন।

ট্রেড লাইসেন্স এর কিছু শর্ত

১.উদ্যোক্তা কে অবশ্যই ১৮ বছর বয়স এর উপরে হতে হবে।
২.একটি ট্রেড লাইসেন্স শুধুমাত্র একটি ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।
৩.একটি ট্রেড লাইসেন্স একাধিক ব্যক্তি ব্যবহার করতে পারবে না।
৪.প্রতি বছর লাইসেন্স টি নবায়ন করতে হবে, অর্থাৎ ১ বছর পর পর ট্রেড লাইসেন্স পুনরায় নবায়ন করতে হয়। এক্ষেত্রে যে প্রতিষ্ঠান থেকে ট্রেড লাইসেন্স সংগ্রহ করা হয়েছে সেই প্রতিষ্ঠান থেকেই নবায়ন কর‍তে হবে।

ট্রেড লাইসেন্স এর ফি

ব্যবসায়ের ধরন, মালিকানা, অবস্থান ইত্যাদির ভিত্তি তে ট্রেড লাইসেন্স এর ফি নির্ধারণ করা হয়। তাই একেক ব্যবসায় একেক রকম এর ফি হয়।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker