শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৭
webmail
Sun, 06 Nov, 2016 07:22:02 PM
নাসিরনগরে প্রতিমা ভাঙচুর
নিজস্ব প্রতিবেদক
নতুন বার্তা ডটকম

ঢাকা: পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক বলেছেন, “ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িতদের অতি দ্রুত বিচারের আওতায় আনা হবে।”

রোববার দুপুরে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের সম্মেলন কক্ষে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান ধর্মের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে একথা বলেন আইজিপি।

পুলিশ মহাপরিদর্শক বলেন, “এ ধরনের ঘটনা খুবই দুঃখজনক ও অনভিপ্রেত। এ সব ঘটনায় আমাদের অবস্থান ‘জিরো টলারেন্স’। সরকারও এ সম্পর্কে অত্যন্ত সজাগ ও তৎপর রয়েছে। এ ন্যাক্কারজনক ঘটনায় আমরা অত্যন্ত মর্মাহত।”

একটি মহল অপপ্রচার চালিয়ে ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্ট করার গভীর ষড়যন্ত্র করছে বলেও মন্তব্য করেন আইজিপি।

নাসিরনগরের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রতি সহমর্মিতা জানিয়ে আইজিপি বলেন, “পুলিশ প্রশাসন আপনাদের পাশে রয়েছে। আপনাদের নিরাপত্তা দেয়া আমাদের দায়িত্ব।”

তিনি বলেন, “ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় রাখার জন্য সব ধর্মের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে প্রতিটি উপজেলা, জেলা এবং বিভাগীয় শহরের সম্প্রীতি কমিটি গঠনের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সবাই মিলে সর্বাত্মকভাবে এ ধরনের ঘটনা প্রতিরোধ করা হবে।”

সভায় উপস্থিত হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান নেতৃবৃন্দ দেশের যেকোনো স্থানে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারী ঘটনা ঘটলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ, মাঠপর্যায়ের পুলিশ প্রশাসনকে এ ধরনের ঘটনা প্রতিরোধে সতর্ক ও সজাগ থাকার নির্দেশনা প্রদান, নাসিরনগরের ঘটনায় স্থানীয় প্রশাসনের দায়দায়িত্ব নিরুপন, মামলার সুষ্ঠু তদন্ত এবং প্রকৃত দোষীদের আইনের আওতায় এনে দ্রুত বিচারের ব্যবস্থা করার দাবি জানান।

নেতৃবৃন্দ ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলার ঘটনা সংক্রান্ত মামলাগুলো মনিটরিং করার জন্য পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সে একটি মনিটরিং সেল গঠনেরও দাবি জানান।

সভায় পুলিশের এসবি’র অতিরিক্ত আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, অতিরিক্ত আইজিপি ফাতেমা বেগম, ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া, এসবি’র ডিআইজি মাহবুব হোসেন, সিআইডি’র ডিআইজি ভানুলাল দাস, পিবিআই’র ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার, সিটি এসবি’র ডিআইজি মল্লিক ফখরুল ইসলাম, ডিআইজি (মিডিয়া এন্ড প্ল্যানিং) এ কে এম শহিদুর রহমান, র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্ণেল মো. আনোয়ার লতিফ খান উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের সভাপতি শুদ্ধানন্দ মহাথের, সহসভাপতি রনজিত কুমার বড়ুয়া ও মহাসচিব ড. প্রণব কুমার বড়ুয়া, বাংলাদেশ বুদ্ধিষ্ট ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অশোক বড়ুয়া, বাংলাদেশ খ্রিষ্টান এসোসিয়েশনের সভাপতি নির্মল রোজারিও, বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি জয়ন্ত সেন দীপু, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তাপস কুমার পাল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কিশোর রঞ্জন মন্ডল, খ্রিষ্টান অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব হেমন্ত আই কোড়াইয়া, ইসকন বাংলাদেশের সভাপতি সত্যরঞ্জন বাড়ৈ, সংস্কৃতিকর্মী পীযূষ বন্দোপ্যাধায় ও ড. অরূপ রতন চৌধুরী, কন্ঠ শিল্পী সুবীর নন্দী উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া দৈনিক ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত, দৈনিক বর্তমান পত্রিকার উপদেষ্টা সম্পাদক স্বপন কুমার সাহা, ডিবিসি নিউজ এর সম্পাদক প্রণব সাহা, দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক সন্তোষ শর্মা, এটিএন বাংলার নির্বাহী সম্পাদক ভানু রঞ্জন চক্রবর্তী ও কাজল দেবনাথ উপস্থিত ছিলেন। -বাসস

নতুন বার্তা/এইচএস


Print
আরো খবর
    সর্বশেষ সংবাদ


    শিরোনাম
    Top
    close