জাতীয়তরুণ ভাবনাহোমপেজ স্লাইড ছবি

রাষ্ট্রপতির বক্তব্য থেকে আমাদের যা শেখা উচিত!

সাইদুর বিপু: “একজন রাজনীতিবিদ কে অবশ্যই আগে একজন কবি হতে হবে”
কথাটা বলেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ক্ষমতাধর এবং জনপ্রিয় যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক ৩৫ তম রাষ্ট্রপতি অথবা পৃথিবীর ইতিহাসের অন্যতম নমনীয় চরিত্রের অধিকারী জন এফ কেনেডি । তিনি তার প্রত্যেকটা ভাষণেই থাকতো কবিতার ব্যবহার। এই জন্যই তার কথা শুনতে কেউ কখনো বিরক্ত বোধ করতো না বরং অনেকখানি আগ্রহ নিয়ে বসে থাকতো তার কথা শুনতে…

আমাদেরও একজন আছে এমন একজন, অতি সাধারণ অনেকটা আম জনতার মতোই । যিনি রাষ্ট্রপতি হওয়ার পর তার সবচেয়ে বড় আক্ষেপ প্রোটোকলের কারনে সে লুঙ্গি পড়তে পারেন না । এখনো কিশোরগঞ্জ গেলে টং দোকানের চা খেতে তিনি গ্রামের আর সবার মাঝে লুঙ্গি আর ফতুয়া পরে বসে যান । আড্ডা দেন, খোশগল্পও করেন, একে অন্যের খোঁজ নেন । অনেকটা যেমন কেউ ঢাকায় চাকুরী করতো, ছুটিতে বাড়ি গিয়েছে । ব্যাক্তিগত ভাবে তার এই সহজ সরল ও প্রাণবন্ত ব্যক্তিত্বকেই আমার বেশি ভালো লাগে । অথচ আমাদের দেশের সার্বিক দিক বিবেচনা করে এখানে সহজ সরল ও প্রাণবন্ত থাকাটাই সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং কাজ ।

আর এই চ্যালেঞ্জিং কাজটাই নিয়মিত করে যাচ্ছেন তিনি বিশেষ করে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানের বক্তৃতায় ফুটে উঠে । শনিবার তিনি খুব অল্প কিন্তু খুবই উপযোগি কথা বলে গিয়েছেন আমাদের দেশের রাজনীতি নিয়ে । কথাগুলো একদমই স্বাভাবিক এবং কার্যকরী কথা । খুব সহজেই চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন আমাদের বর্তমান রাজনীতি ও তার পারিপার্শ্বিক পরিবেশ নিয়ে ।

গত শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫১তম সমাবর্তনে আবদুল হামিদ বলেন, “আমাদের গ্রামে প্রবাদ আছে গরিবের বউ নাকি সবারই ভাউজ (ভাবি)। রাজনীতিও হয়ে গেছে গরিবের বউয়ের মতো। যে কেউ যে কোনো সময় ঢুকে পড়তে পারে, বাধা নাই। আমি যদি বলি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিজিক্সের লেকচারার হইতাম চাই, নিশ্চয়ই ভিসি সাহেব আমারে নেবেন না। বা কোনো হাসপাতালে গিয়া বলি, এতদিন রাজনীতি করছি, হাসপাতালে ডাক্তারি করতে দেন। বোঝেন অবস্থাটা কী হবে? এগুলো বললে হাসির পাত্র হওয়া ছাড়া আর কিছু হবে না । যদি বলি এত বছর রাজনীতি করছি ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে সুপারিন্টেন্ডেন্ট এর পদ দিতে পার। সেখানে আমাকে দিবে? কিন্তু রাজনীতি গরিবের ভাউজ । সবাই… ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ি ডাক্তারি পড়ি… ভিসি সাহেবও অবসরের পর রাজনীতি করবেন। যারা সরকারি চাকরি করেন… জজ সাহেব যারা আছেন ৬৭ বছর চাকরি করবেন। রিটায়ারের পর বলবেন, ‘আমিও রাজনীতিবিদ’। আর্মির জেনারেল হওয়া সেনাপ্রধান হওয়া, সরকারি সচিব, প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি, কেবিনেট সেক্রেটারি রিটায়ার কইরা বলেন, ‘আমি রাজনীতি করবো।’ কোন রাখঢাক নাই। যার ইচ্ছা, যখন ইচ্ছা তখনই রাজনীতি ঢোকে… চাকরি করে যা করার করছে। এরপর বলছে রাজনীতি করবো। আমার মনে হয় সকল রাজনৈতিক দলকে এটা চিন্তা করা উচিত। হ্যাঁ এক্সপার্টের দরকার আছে। অনেক সময় বলা হয় পেশাভিত্তিক পার্লামেন্ট। হ্যাঁ পেশাভিত্তিক করেন। এমবিবিএস পাস করে সরাসরি রাজনীতি করেন। কোনো অসুবিধা নেই। ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ে চাকরিতে না ঢুকে সরাসরি রাজনীতিতে ঢোকেন । ৫৯ বছর, ৬৫ বছর ৬৭ বছর পুলিশের ঊর্ধ্বতন ডিআইজি, আইজিরাও রাজনীতি করবেন। মনে মনে কই, রাজনীতি করার সময় এই পুলিশ তোমার বাহিনী দিয়ে পাছার মধ্যে বাড়ি দিছো । তুমি আবার আমার লগে আইছো রাজনীতি করতে। কই যামু ? রাজনৈতিক দলগুলোকে এসব ব্যাপারে চিন্তা-ভাবনা করতে হবে। এই যে রাজনীতিবিদদের সমস্যা এই সমস্যার কারণও এটা। বিজনেসম্যানরা তো আছেই… শিল্পপতি-ভগ্নিপতিদের আগমন এভাবে হয়ে যায়। এগুলো থামানো দরকার” ।

ছাত্রজীবন থেকে রাজনীতির শিক্ষা নেওয়ার উপর জোর দিয়ে আবদুল হামিদ বলেন, “এক্সপার্টের প্রয়োজন আছে। এক্সপারটাইজ হিসেবে তাদের মতামত নেন। তাদের কমিটি করে দেন, উপদেষ্টা করে দেন । “ডাইরেক্ট রাজনীতির মধ্যে আইসা তারা ইলেকশন করবে, মন্ত্রী হয়ে যাবে এটা যেন কেমন কেমন লাগে। যার জন্যেই আমার মনে হয় আমাদের দেশের রাজনীতির গুণগত পরিবর্তন হচ্ছে না”।

উনার প্রত্যেকটা বক্তব্যই একেকটা ক্লাস । তবে তা কোন উচ্চমার্গীয় কোন কিছু নয় একদম সহজ সরল ভাষায় কঠিন কথা গুলোও তুলে ধরেন । সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অতিরিক্ত ব্যবহারের জন্য সামাজিকতায় দূর হয়ে যাওয়া থেকে শুরু করা তার নিজের বৌ এর সাথে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া কে নিয়ে ঘটে যাওয়া খুনসুটিও বলে অবলীলায় ।

এখন কথা হলো এক জাতি আছে যারা এটা তিনি কেনো করলেন, তিনি তার লেভেল, ক্লাস মেইন্টেইন করে চলেন না আরো  অনেক কিছু বলতে শুনি থেকে তার বিরুদ্ধে । আচ্ছা যাদের এতো অভিযোগ তাদের  জিজ্ঞেস করি “এই যে ভাটির মানুষটা যার লেভেল যিনি বুঝনে না, যিনি ক্লাস মেইন্টেইন করে চলেন না কিন্তু যোগ্যতা আছে রাষ্ট্রপতি হওয়ার। যারা সমালোচনা  শুরু করছেন তাদের কি আছে সেই যোগ্যতা ?”

যদি উত্তর না হয় তবে বসে পড়ুন, আর র‍্যাঞ্চোর মতো শিক্ষা নিন সব জায়গা থেকে । তার এই সহজ সরল কথা গুলোর ভিতর লুকিয়ে থাকে অনেক শিক্ষা সেগুলো কে আহরণ করুন আর কাজে লাগান । জীবন সুন্দর হবে…… আপনিও পরশ্রীকাতরতা থেকে বেঁচে গিয়ে ওপারে জান্নাত বা স্বর্গ  কিছু একটা তো পাবেনই।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker