আলোচিত যারাজাতীয়হোমপেজ স্লাইড ছবি

সালমান খান নামে একজন শিক্ষকের গল্প

সালমান খান! নাম শুনে বলিউডের নায়ক সালমান খানের কথা মনে পড়ছে? হ্যাঁ তিনি নায়কই বটে কিন্তু বলিউডের নায়ক নন! তিনি নায়ক পৃথিবীর পরিবর্তনের।পৃথিবীর শিক্ষা খাতে অসামান্য অবদান রাখা এই নায়কের নাম সালমান খান। তিনি একজন শিক্ষক। তার স্কুলের নাম খান একাডেমি। তার স্কুলের ছাত্র মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস থেকে শুরু করে পৃথিবীর কোটি কোটি মানুষ। শুনে অবাক হবেন যে, সারা পৃথিবীব্যাপী সাড়া জাগানো মানুষ টার আছে বাংলাদেশের সাথে নাড়ির সম্পর্ক। সালমান খানের দাদাবাড়ি বাংলাদেশের বরিশালে। তাঁর বাবা ডা. ফখরুল আমিন খান ছিলেন চিকিৎসক। তাঁর দাদা আব্দুল ওয়াহাব খান ছিলেন মুসলিম লীগের নেতা এবং পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের স্পিকার। সালমানের বাবা অভিবাসী হয়ে পাড়ি জমান যুক্তরাষ্ট্রে।

খান একাডেমীতে সালমান খান

১১ই অক্টোবর ১৯৭৬ সালে লুইজিয়ানার নিউ অরলিন্স শহরে জন্ম নেওয়া সালমান ম্যাসাচুসেট্‌স ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি (এমআইটি) থেকে গণিত এবং তড়িৎ প্রকৌশল ও কম্পিউটার বিজ্ঞান—এ দুই বিষয়ের ওপর স্নাতক করেন। একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তড়িৎ প্রকৌশল ও কম্পিউটার বিজ্ঞান এর ওপর স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন সালমান। অতঃপর এমবিএ করেন হার্ভার্ড বিজনেস স্কুল থেকে।

এই বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন শিক্ষক, গবেষক, উদ্যোক্তা এবং ‘খান একাডেমী’র প্রতিষ্ঠাতা। খান একাডেমী একটি উন্মুক্ত অনলাইনভিত্তিক ও অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। “providing a high quality education to anyone, anywhere” স্লোগানে এই প্রতিষ্ঠানটি শিক্ষা নিয়ে কাজ করা শুরু করে।

ম্যাসাচুসেট্‌স ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির ১৪৬ তম সমাবর্তনে সমাবর্তন বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন সালমান

এই শিক্ষাবিদ নিজ বাসার ছোট অফিস থেকে যাত্রা শুরু করে,বিস্তৃত ধরণের প্রাতিষ্ঠানিক বিষয়সমূহ, বিশেষত গণিত ও বিজ্ঞানের উপর ৬,৫০০ এর অধিক ভিডিও তৈরি করেছেন। ২০১০ সালের মে মাস থেকে কিছু ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান তার এই প্রজেক্টে এগিয়ে আসে। এদের মধ্যে গেটস ফাউন্ডেশন এবং গুগল অন্যতম। তারপরে ২০১০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে গুগল তাদের প্রজেক্ট টেন টু দ্য হান্ড্রেড-এ খান একাডেমীকে ৫ টি প্রজেক্টের একটি হিসেবে বিজয়ী ঘোষণা করে ও ২ মিলিয়ন ডলার দেয় যাতে খান একাডেমী আরো বেশি কোর্স তৈরি করে ও সারাবিশ্বে জনপ্রিয় ভাষায় সবগুলি টিউটোরিয়ালকে অনুবাদ করে। গুগল যখন খান একাডেমীকে ২ মিলিয়ন ডলার পুরস্কার প্রদান করে তখন তাদের ভিডিওর সংখ্যা ছিল ১৬০০। ২০১০ সালে সালমান মাইক্রোসফট টেক অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন।

ফোর্বস ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদে সালমান

২০১২ সালে মার্কিন পত্রিকা টাইম এর জরিপে বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী ১০০ ব্যক্তির বার্ষিক তালিকার একটি উল্লেখযোগ্য নাম, খান একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা, সালমান আমিন খান। ফোর্বস ম্যাগাজিন তাদের প্রচ্ছদে জনাব খানকে তুলে ধরে “$১ ট্রিলিয়ন সুযোগ” নামক প্রবন্ধের মাধ্যমে।২০১২ সালের ৮ জুন অনুষ্ঠিত ম্যাসাচুসেট্‌স ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির ১৪৬ তম সমাবর্তনে সমাবর্তন বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন সালমান। ৩৫ বছর বয়সী সালমান খানই এমআইটির ইতিহাসে কনিষ্ঠতম সমাবর্তন বক্তা। ২০১২ সালের মে মাসে রাইস ইউনিভার্সিটিতেও সমাবর্তন বক্তা ছিলেন সালমান।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker