জাতীয়সাহিত্যহোমপেজ স্লাইড ছবি

দ্য গড অব স্মল থিংস : এক আশাহীন কঠিন পৃথিবীর প্রতিচ্ছবি

মাহমুদুর রহমান: ‘দ্য গড অব স্মল থিংস’ উপন্যাসটি অরুন্ধতী রায়ের প্রথম বই। এ বইয়ে তিনি বাস্তবতাকে সামনে রেখে দেখিয়েছেন এক আশাহীন কঠিন পৃথিবীকে। অরুন্ধতীর লেখার ভেতরে একটি স্পষ্টবাদী মানুষকে খুঁজে পাওয়া যায়। এই বইটির পরে তার অন্যান্য কাজেও তা দেখা গেছে। অর্থাৎ অরুন্ধতীর শুরুটাও এমনি স্পষ্টবাদিতা দিয়েই হয়েছিল। এখানে তিনি সমকালীন মানুষ হয়েও পেছনের গল্প বলেন। শুধু পেছনের গল্পই না, সেই সঙ্গে তিনি পাঠককে হাতিয়ে নিয়ে যান বর্তমান থেকে দূরের একটা সময়ে। গড অফ স্মল থিংস উপন্যাসটি কেবল কাহিনীর উপর নির্ভর করে রচিত নয়। এখানে ইতিহাস আছে, ঘুরেফিরে এসেছে বারবার। প্রেমের গল্পও আছে। সে সঙ্গে আছে কিছু মানুষের কথা। তাদের চিন্তা, স্বপ্ন থেকে বাস্তবাতার দিকে একটু একটু করে এগিয়ে যান লেখিকা।

হায়দার আকবর খান রনো তার ‘শতাব্দী পেরিয়ে’ বইটিতে বারবার দক্ষিণ ভারতের এক বামপন্থী নেতার কথা বলেছেন। এবং তার লেখায় স্পষ্ট যে একটা সময়ে দক্ষিণ ভারতে মার্ক্সবাদ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল। অরুন্ধতী রায়ের এই বইটি সেই সময়ের কথা বলে যখন কেরালায় মার্ক্সবাদের প্রসার ঘটেছে। ইএমএস নাম্বুরিপাদ যখন কেরালার মুখ্যমন্ত্রী এবং দ্বিতীয় দফা (‘৬৭) এবং প্রথমবার (‘৫৭) সালে মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময়ের ঘটনা। বিশ্বের প্রথম নির্বাচিত বামপন্থি সরকার গঠন করেছিলেন তিনি। কেন যেন উপমহাদেশে মার্ক্সবাদ টিকতে পারে না। নাম্বুরিপাদ এবং মার্ক্সবাদের তুমুল জনপ্রিয়তা সত্ত্বেও তা টিকলো না। দুর্ভিক্ষ এসেছিল, তারপর কমিউনিস্ট পার্টিতে বিভক্তি, উগ্র বাম বা নকশালিদের দৌরাত্ম্য এবং অন্যান্য সংকট স্থিতি দিলো না। ‘দ্য গড অব স্মল থিংসে’র প্লট এইমেনেম নামের অঞ্চলকে ঘিরে যা কিনা নাম্বুরিপাদের আদি পৈতৃক বাসস্থান।

সাম্যের গান গাওয়া নেতার নিজ শিকড়ের ভূমিতে প্রদীপের নিচে অন্ধকারের মতো জাত বর্ণের ভেদ। পার্টির নেতা এবং স্থানীয় ধনিক শ্রেণী, মাস্তানদের সঙ্গে আঁতাত, পুলিশের অত্যাচার প্রভৃতি উঠে এসছে বইয়ে। সঙ্গে আছে প্রেম, প্রেমের মৃত্যু, দুটি অবোধ মেধাবী শিশুর অবহেলায় নষ্ট হয়ে যাওয়া। এসব বিষয় লেখিকা সচেতন মানবিক দৃষ্টি দিয়ে দেখে মানতে পারেননি। উপন্যাসে বুর্জোয়া, গণতান্ত্রিক সুবিধাভোগী, আর চরমপন্থি সবারই কিছু ভূমিকা দেখা যায়। যে স্থানকে সাক্ষী রেখে যে সময়ের কথা লেখিকা বলতে চেয়েছেন তা যথার্থভাবেই পেরেছেন, এ কথা বলা যায়।

ঔপন্যাসিক ‘দ্য গড অব স্মল থিংসে’ যে ভাষাশৈলী ব্যবহার করেছেন তাও চমৎকার। প্রতিটি বিষয়, ঘটনা, সাব-প্লট ভেঙে একেবারে মূল বিষয়ের কাছাকাছি নিয়ে গেছেন পাঠককে। বিস্তারিত বর্ণনায় তার গল্প বলার ঢং পাঠককে বিমোহিত করে। মাঝে মধ্যে প্রতীকের ব্যবহার এ উপন্যাসকে দিয়েছে অন্য মাত্রা। এই উপমহাদেশে কোন রাজনীতি, কখনও ধর্ম কখনও ব্যবসার নামে মানুষের অধিকার খর্ব হয়েছে। এসেছে বিভেদ, এসেছে মৃত্যু। কখনও নানা মোড়কে সে সবকে মুড়ে উপস্থাপন করা হয়েছে সুন্দর করে। কিন্তু তার বাস্তব উন্মোচন করার চেষ্টা হয়নি। বাস্তবতার সেই প্রকৃত রূপ, এবং মানুষের জীবনের সাথে জড়িয়ে থাকা সেই সব গল্প বলেছেন অরুন্ধতী এই বইয়ে।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker