জাতীয়হোমপেজ স্লাইড ছবি

চমক হাসানের যত চমক

বাশার আল আসাদ: একজন চমক হাসান যার নাম শুনলেই সবার মনে অংকের কথা চলে আসে। তিনি যেন একটি অংকের মেশিন। জটিল যতোই অংক হোক না কেন চমক হাসান চমক দেখিয়েই তা নিমিষেই সমাধান করে দিবে। আজ আমরা আলোচনা করবো বাংলাদেশের গণিতের বিষ্ময় তরুণ চমক হাসানের চমক দেখানো তার অংকের যতো গল্প। চমক হাসান একজন অনলাইন শিক্ষক। তিনি বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তড়িৎ কৌশলে বিএসসি শেষ করে যুক্তরাষ্ট্রে ইউনিভার্সিটি অফ সাউথ ক্যারোলাইনাতে পিএইচডি করেন। তার গবেষণার বিষয় মূলত মেটাম্যাটেরিয়াল ব্যবহার করে ব্রডব্যান্ড অ্যান্টেনা এবং সেন্সর ডিজাইন।

তাকে যেকোন ডিজাইনেই ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিকস ব্যবহার করতে হয়। তাই মূলত ইলেক্ট্রোম্যাগ্নেটিকস পড়াতে চেয়েছিলো শুরুতে। কিন্তু ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিকস বুঝতে ভেক্টর ক্যালকুলাস সম্বন্ধে ভালো ধারণা থাকা দরকার। আর তারও আগে জানা দরকার ক্যালকুলাস আসলে কী। সেই চিন্তা থেকেই ক্যালকুলাস দিয়ে শুরু করেছে চমক হাসান। তিনি ভালোবাসেন গণিত। অবসরে গণিতের উপর ভিডিও তৈরি করেন, বই লেখেন- গণিতের আনন্দ মানুষের কাছে ছড়িয়ে দিতে। একসময় সামনাসামনি সেটা করলেও প্রবাসে থাকার কারণে এখন তাঁর মাধ্যম অনলাইন। ইউটিউবে চমক হাসানের চ্যানেলে গেলে ভিডিওগুলো পাওয়া যাবে। ‘গণিতের রঙ্গে’, ‘চটপট গণিত’ আর ‘ক্যালকুলাসের অ-আ-ক-খ’ এই তিন পর্বে ভাগ করা যায় তাঁর ভিডিওগুলোকে। এর মধ্যে গণিতের রঙ্গে পর্বের ভিডিওতে চমক নিজেই ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে অঙ্ক শেখান। আর চটপট গণিত পর্বে শিক্ষার্থীদের করা প্রশ্নের উত্তর দেন। ক্যালকুলাসের অ-আ-ক-খ পর্বে চমক ক্যালকুলাস শেখান।

গণিতের প্রতি চমকের আগ্রহ ছোট্টবেলা থেকেই। তবে নবম-দশম শ্রেণিতে পড়ার সময় মুহাম্মদ জাফর ইকবাল ও ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদের লেখা ‘নিউরনে অনুরণন’ বইটি চমককে গণিতের প্রতি বিশেষ আগ্রহী করে তোলে। সে সময় তিনি চিন্তা করতে থাকেন কীভাবে মজা করে গণিত শেখানো যায়। এরপর বুয়েটে ভর্তি হয়ে যখন গণিত অলিম্পিয়াডের সঙ্গে যুক্ত হন তখন প্রথমবারের মতো শিক্ষকতার সুযোগ তৈরি হয়। সে সময় অলিম্পিয়াডের পক্ষ থেকে শিক্ষার্থীদের নিয়ে একটা ক্যাম্প করা হয়েছিল যেখানে গণিতের একটা অংশ শেখানোর দায়িত্ব পান তিনি। সেই থেকে শুরু, এরপর পিএইচডি করতে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যাওয়ার পর গণিত শেখানোর বিষয়টা মিস করতে থাকেন চমক। এর সমাধান হিসেবে তিনি বেছে নেন ইউটিউবকে। গত বছরের শুরুর দিককার কথা এটা সেই থেকে এখনো চলছে চমকের ইউটিউবে গণিত শেখানো।

ইউটিউবে ভিডিও প্রকাশ করার পর থেকেও বিভিন্ন মাধ্যমে তিনি শিক্ষার্থীদের প্রতিক্রিয়া পাচ্ছেন। যেমন যুক্তরাষ্ট্রে পড়ছেন এমন একজন নাকি তাঁর ভিডিও দেখার পর আগ্রহী হয়ে ‘মেজর’ বিষয় হিসেবে ইঞ্জিনিয়ারিং ছেড়ে গণিত নিয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে শুরু করে শহর সব জায়গার শিক্ষার্থীরা চমককে নানা ভাবে জানান তার ভিডিও দেখার পর থেকে তারা গণিত ভালো বোঝা শুরু করেছে এবং গণিতে ভালো ফল করছে। ভবিষ্যতে গণিত অলিম্পিয়াডে অংশ নেয়ার কথাও চমককে জানান অনেক সময় শিক্ষার্থীরা।

গণিতের মানুষ চমকের বাড়ি কুষ্টিয়ায়। তাই লালনের স্পর্শ লেগেছে তাঁর গায়েও। তবে স্কুল কলেজে থাকতে মঞ্চে না গাইলেও বুয়েটে গিয়ে করেছেন সেটাও। এখন তিনি নিজে গান লিখে তাতে সুর দিয়ে নিজেই গান। পাশাপাশি গাইতে পছন্দ করেন লালন সহ অন্যান্যদের গানও। গণিত অলিম্পিয়াড উৎসবের গান ‘আয় আয় আয় গণিতের আঙিনায়’ চমকের লেখা ও সুর করা।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker