জাতীয়বিনোদনহোমপেজ স্লাইড ছবি

হীরালাল সেন: উপমহাদেশের চলচ্চিত্রের পথিকৃৎ

মাহমুদুর রহমান: বাংলা সিনেমার ইতিহাস নিয়ে কোথা বলতে গেলে যার নামটি সবার আগে আসবে তিনি হীরালাল সেন। বাংলাদেশে জন্ম নেওয়া এই মানুষটিকে প্রথম বাঙালি চলচ্চিত্র নির্মাতা বলা যায়।

হীরালাল সেনের জন্ম ১৮৬৬ সালে ২ আগষ্ট মানিকগঞ্জ জেলার বগজুরি গ্রামে। পিতার নাম চন্দ্রমোহন সেন, মাতা বিধুমুখী।পিতামহ গোকুলকৃষ্ণ মুনশি ছিলেন ঢাকার জজ আদালতের নামকরা আইনজীবী।পরে তিনি কোলকাতা হাইকোর্টে আইনজীবী হিসেবে যোগ দেন। পিতা মাতার আট সন্তানের মধ্যে হীরালাল ছিলেন দ্বিতীয়। মানিকগঞ্জ মাইনর স্কুলে পড়াশোনার পাশাপাশি এক মৌলভী সাহেবের কাছে ফরাসী ভাষাও শিখতেন। ঢাকা কলেজিয়েট স্কুল ছেড়ে পিতার সাথে কলকাতা গিয়ে কলেজে ভর্ত্তি হন।

কলকাতায় উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হয়েছিলেন হীরালাল। কিন্তু সে সময় ধীরে ধীরে থিয়েটার এবং অভিনয়ের প্রতি তাঁর আগ্রহ জন্মায়। মূলত ‘স্টার থিয়েটার’-এ তাঁর যাতায়াত ছিল। এ সময় অনেকের সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয় এবং তিনি চলচ্চিত্রে আগ্রহী হন। এর পেছনে একটা গল্প আছে।

১৮৯৮ সালে প্যারিসের ‘পাথে ফ্রেরেস স্টুডিও’র একজন সদস্য, অধ্যপক স্টিভেনসনের একটি নাতিদীর্ঘ ছবি কলকাতার স্টার থিয়েটারে দেখানো হয়। The Flower of Persia  নামে একটি অপেরার সঙ্গে এটি দেখানো হয়। স্টিভেনসনের ক্যামেরা ধার করে নিয়ে হীরালাল বানান তাঁর প্রথম ছবিঃ A Dancing Scene From the Opera, The Flower of Persia. ওই অপেরারই একটি নাচের দৃশ্য নিয়ে কাজ করেছিলেন তিনি। পরবর্তীতে ভাই মতিলাল সেনের সাহায্যে লন্ডনের ওয়ারউইক ট্রেডিং কম্পানীর চার্লস আরবানের থেকে তিনি একটি ‘Urban Bioscope’ কিনে নেন। পরের বছর তিনি ভাইয়ের সাথে ‘রয়্যাল বায়েস্কোপ; কোম্পানীর গোড়াপত্তন করেন।

১৯১৩ সাল পর্যন্ত হীরালাল সেনের সিনেমা সম্পর্কিত কাজ চলতে থাকে। এ সময়ে তিনি অমরেন্দ্রনাথ দত্তের ‘ক্লাসিক থিয়েটারে’ মঞ্চস্থ নানা অপেরার দৃশ্য ক্যামেরাবদ্ধ করেন।এভাবেই তিনি তৈরি করতেন একেকটি গল্প, একেকটি চলচ্চিত্র। মনে রাখতে হবে, সে সময়ে এখনকার মতো বড় পরিসরে কাজ করা সম্ভব ছিল না।তাই হীরালাল এভাবেই শুরু করেছিলেন। প্রায় চল্লিশের বেশি চলচ্চিত্র তিনি ধারণ করেন। এর মধ্যে ‘আলিবাবা ও চল্লিশ চোর’ নামে একটি পূর্ণ দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রও ছিল।

এখানেই শেষ নয়। এখন পর্যন্ত জনা তথ্য অনুসারে হীরালালই প্রথম ব্যক্তি যিনি ভারতের রাজনৈতিক তথ্যচিত্র তৈরি করেন। “Anti-Partition Demonstration and Swadeshi movement at the Town Hall, Calcutta on 22nd September 1905” ভারতের প্রথম রাজনীতিক চলচ্চিত্র বলে গণ্য করা হয়।

এই প্রতিভাবান মানুষটির বিয়ে হয়েছিল হেমাঙ্গিনী দেবীর সাথে। তাঁদের তিন সন্তানের কথা জানা যায়। প্রথম পুত্র বৈদ্যনাথ সেন ১৯০২ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তৃতীয় সস্তান মেয়ে প্রতিভা সেন তথির বিয়ে হয় নরনাথ সেনের সাথে। নরনাথ সেনের ভাইপো দিবানাথ সেনের স্ত্রী ছিলেন কিংবদন্তির নায়িকা সুচিত্রা সেন।

রয়্যাল বায়োস্কোপ কম্পানী প্রথম ছবি বানায় ১৯১৩ সালে। কিন্তু সময় বদলে যাচ্ছিলো। জমিদার বংশের ছেলে হয়েও হীরালাল অনেক দুর্গতি আর অর্থনৈতিক সমস্যার সম্মুখীন হন। এলফিনস্টোন বায়োস্কোপ কোম্পানীর জামশদজি ফ্রেমজি ম্যাডান তাঁর থেকে অনেক বেশি সাফল্য অর্জন করেন। ফলে থেমে যায় হীরালালের যাত্রা। মরার উপর খাঁড়ার ঘায়ের মতো হীরালাল ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। ১৯১৭ সালে তাঁর মৃত্যুর কিছুদিন আগে এক অগ্নিকাণ্ডে তাঁর তৈরি সমস্ত ছবি নষ্ট হয়ে যায়।

 

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker