আন্তর্জাতিক বিশ্লেষণচলতি হাওয়াজাতীয়হোমপেজ স্লাইড ছবি

পরবর্তী প্রজন্মের জন্য পৃথিবী নয় একটি ভয়ঙ্কর বোমা রেখে যাচ্ছি

আরিফুল আলম জুয়েল: গত দু’মাসেরও বেশি সময় ধরে দাবানলে পুড়ছে অস্ট্রেলিয়া। এতে এখন পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছে অন্তত ১৮ জন। ভস্মীভূত হয়ে গেছে প্রায় ১২শ’ বসতবাড়ি। এছাড়া দাবানলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বন্যপ্রাণীদেরও। এক লক্ষ, দু’লক্ষ নয়, এমনকি কোটিও নয়, মারা গেছে প্রায় ৫০ কোটি প্রাণী। ভাবতে পারেন, আমি পারি না। আগুনে পুড়ার ভিডিও আমি যতবার দেখেছি ততবার নিজে নিজেই ভস্মীভূত হয়েছি। নিজেকে কোনভাবেই মানাতে পারছি না, প্রাণীগুলোর দৌড়, একটু বাঁচার আকুতি দেখে নিজেকে ঠিক রাখতে পারা সত্যিই কঠিন।

একটা পর্যায়ে প্রাণীগুলো কোন মানুষ দেখলে তাকে পরম মমতায় জড়িয়ে ধরছে, একটু শীতল পরশ পেলে কাধে মাথা রাখছে পরম আদরে। শুধু প্রাণী কেন, নিউ সাউথ ওয়েলসে শত শত মানুষ গৃহহীন হয়ে ও আগুনের তাপ থেকে বাঁচতে সমুদ্রের ধারে আশ্রয় নিয়েছেন। ঘর বাড়ি সব আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে৷ লাল হয়ে ওঠা আকাশের নিচে নৌকায় বা উপকূলে তাঁবু বানিয়ে বসবাসের অভিজ্ঞতা নিশ্চয়ই অনেক ভয়ানক। পুরো অঞ্চলই দাবানলের কবলে চলে যাওয়ার ফলে প্রাণ বাঁচাতে এলাকার মানুষ সমুদ্রের ধারে আশ্রয় নিয়েছেন। আগুনের বলয় ক্রমশ ধেয়ে আসছে সৈকতের দিকে। কিন্তু সমুদ্র সৈকত থেকে বার হওয়ার কোনও রাস্তা খোলা নেই। এ অবস্থায় নৌকা এবং বিমানে করে সেখানে আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। আহ! কি মানুষ, মানুষের সৃষ্টি বর্তমান প্রকৃতি!

দাবানলে অস্ট্রেলিয়ায় তাপমাত্রা ক্রমশ বাড়ছে। দেশটির সব স্থানে তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে উঠেছে। চুলার আগুন ছাড়াই ডিম, মাংস সেদ্ধ হয়ে যাচ্ছে। সেই সঙ্গে বয়ে চলা প্রবল ঝড়ো হাওয়া আগুনের লেলিহান শিখাকে তীব্রতর করছে। এরই মধ্যে এই ভয়াবহ খাণ্ডবদাহনে পুড়েছে প্রায় ১.৫ কোটি একর। ২০১৮ সালে ক্যালিফোর্নিয়ায় যতটা জায়গায় দাবানল লেগেছে, এটা তার প্রায় তিনগুণ। ২০১৯-এ আমাজনে আগুন লেগে যতটা বন পুড়ে গেল, তার প্রায় ছয়গুণ এটা। জলবায়ু বদলে যাচ্ছে। প্রকৃতি আমরা কলুষিত করেছি। দায়ভার আমাদেরই চোকাতে হবে। ভারসাম্য রক্ষার বদলে আমরা প্রকৃতি নৃশংসভাবে নিংড়ে নিজের ও পরের প্রজন্মের জন্যে একটি ভয়ঙ্কর বোমা রেখে যাচ্ছি।

আমাদের লোভ, আমাদের অপরাজনীতি, আমাদের লাভের অন্ধত্ব, আমাদের বিলাসিতার নির্লজ্জতা, আমাদের অপচয়ের পরিণাম আমাদের সামনে ফুটে উঠছে দগদগে ঘা হয়ে। ক্যালিফোর্নিয়ার বা অস্ট্রেলিয়ার দাবানল, পেইচিঙের বা ঢাকার বায়ুদূষণ, উড়িষ্যার বা লুইজিয়ানার ঘূর্ণিঝড় এসবেরই পরিণতি। তার ওপর বিশ্বনেতাদের গাঁড়লের মত আচরণ, যুদ্ধপ্রেমীদের উল্লাস শুধু মানুষের কষ্ট ও মৃত্যুই ত্বরান্বিত করবে। পৃথিবীতে এর আগেও অনেকবার গণবিলুপ্তি ঘটেছে প্রাণীদের। মানুষ নামক প্রাণীদের বিলুপ্তি ঘটবে কবে- কেউ বলতে পারেন! মানুষ না-থাকলেও পৃথিবী থাকবে। মানুষ না-থাকলেই বরং পৃথিবী অনেক ভালো থাকবে।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker