আন্তর্জাতিক বিশ্লেষণজাতীয়স্বাস্থ্যহেলথ টিপসহোমপেজ স্লাইড ছবি

সত্য জানুন, নিরাপদে থাকুন

দশ সেকেন্ড দম বন্ধ করে রাখলে করোনার টেস্ট হয়ে যায়, গরম পানি খেলে গলার করোনা মরে, চীনের ল্যাবরোটরি থেকে করোনা ছড়াইছে, আমেরিকারও হাত আছে, গরমকালে করোনাভাইরাস মরে যাবে, সাবানের চেয়ে সেনিটাইজার ভালো ফেসবুক খুললেই দেখা মিলছে এমন সংবাদ। কোনটা গুজব আর কোনটা সত্য? কনফিউশন আর কনফিউশন ।

এমন প্রচলিত বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তর দিয়েছে আমেরিকার ইউনিভার্সিটি অফ ম্যারিলান্ডের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডক্টর মোহাম্মদ ফাহিম ইউনুস।

১ নাম্বার কনফিউশনঃ
গ্রীষ্মকাল আসার সাথে সাথে করোনা চলে যাবে

উত্তরঃ
ভুল। পূর্বরর্তী মহামারীগুলো আবহাওয়ার প্যাটার্ন অনুসরণ করে কমেনি কিংবা বাড়েনি। এখানে যখন গ্রীষ্ম, দক্ষিণ গোলার্ধে তখন শীতকাল! আবহাওয়ার সাথে করোনার সম্পর্ক নেই। ভাইরাস গ্লোবাল।

২ নাম্বার কনফিউশনঃ
মশার কামড়ে করোনা আরও বেশী ছড়াবে।

উত্তরঃ
ভুল। এই সংক্রামক ছড়ায় শ্বাসজনিক ড্রপলেটের মাধ্যমে। রক্তের মাধ্যমে নয়। মশা বা অন্য পোকা মাকড়ের কামড়ে করোনা ছড়ায় না।

৩ নাম্বার কনফিউশনঃ
দশ সেকেন্ড দম বন্ধ করে রাখতে যদি অসুবিধা না হয়, তবে করোনা হয়নি।

উত্তরঃ
ভুল। অনেক তরুণ রোগীই আছে যারা করোনায় আক্রান্ত তারা নিজেরাই দশ সেকেন্ডের বেশী সময় দম আটকে রাখতে পারে। এবং অনেক বয়স্ক ব্যাক্তি আছে যাদের ভাইরাস আক্রমন করেনি কিন্তু তারাও দশ সেকেন্ড দম ধরে রাখতে পারে না।

৪ নাম্বার কনফিউশনঃ
যেহেতু করোনার টেস্টিং কিট পাওয়া যাচ্ছে না, আমরা রক্ত দিতে পারি। ব্লাড ব্যাংক আমাদের রক্ত পরীক্ষা করে জানাবে করোনা আছে নাকি নেই।

উত্তরঃ
ব্লাড ব্যাংক করোনার পরীক্ষা করতে পারে না, কিন্তু তাই বলে আমরা যেন রক্তদান না থামাই, রক্তদান একটি পবিত্র কাজ।

৫ নাম্বার কনফিউশনঃ
করোনা ভাইরাস গলায় আটকে থাকে, তাই অতিরিক্ত পানি খেলে এইটা পেটে চলে যায়, পেটের ভিতরের এসিড পরে ভাইরাস মেরে ফেলে।

উত্তরঃ
ভাইরাস গোলা দিয়ে প্রবেশ করতে পারে ঠিকই কিন্তু সে আশ্রয় নেয় হোস্ট কোষে। পানি দিয়ে ভাইরাস তাড়ানো যাবে না। বরং অতিরিক্ত পানি খেলে সারাদিন টয়েলেটে দৌড়াদৌড়ি করা লাগতে পারে।

৬ নাম্বার কনফিউশনঃ
বলা হচ্ছে, লোকজন, ভিড় এড়িয়ে চলুন,  এইটা বাড়াবাড়ি। ওভার রিঅ্যাকশন। এই ভাইরাসে তেমন কিছুই হবে না।

উত্তরঃ
যদি আপনি দেখেন আশেপাশে বেশী ইনফেক্টেট হচ্ছে না, তাহলে এইটাই প্রমাণিত লোকসমাগম এড়িয়ে চলাটা কাজে দিচ্ছে। করোনাকে হালকাভাবে দেখার সুযোগ নেই।

৭ নাম্বার কনফিউশনঃ
প্রতিবছর সড়ক দুর্ঘটনাআনুমানিক ত্রিশ হাজার মানুষ মারা যায়। করোনায় এতো মরে নাই। শুধুশুধু করোনাকে নিয়ে এতো মাথাব্যাথা কেন?

উত্তরঃ
সড়ক দুর্ঘটনা একের থেকে অপরে ছড়ায় না। দুর্ঘটনায় প্রতি তিনদিন মৃত্যু সংখ্যা দ্বিগুণ বৃদ্ধি পায় না, সড়ক দুর্ঘটনা দুনিয়াজুড়ে আতংক কিংবা শেয়ার বাজার ধস নামায় না। করোনাতে এইসব কিছু হয়।

৮ নাম্বার কনফিউশনঃ
সাবানের চেয়ে হান্ড সেনিটাইজার ভালো। তাড়াতাড়ি করোনা মরে।

উত্তরঃ
ভুল। সাবান আর পানিতেই মূলত করোনা ভাইরাস মরে, ত্বক থেকে ভাইরাস দূর করে। শুধু তাই না, সাবান পানি খালি চোখে দেখা যায় হাতের এমন ময়লাও দূর করে। বাজারে সেনিটাইজার শেষ হয়ে গেলে তাই ভয় পাবেন না। সাবান ব্যবহার করুন।

৯ নাম্বার কনফিউশনঃ
করোনা তাড়ানোর সবচেয়ে ভালো উপায় অফিস কিংবা বাড়ির দরজার হাতল জীবাণুনাশক দিয়ে বারবার পরিষ্কার করা।

উত্তরঃ
ভুল। সাবান দিয়ে হাত ধোয়া আর কমপক্ষে ৬ ফিট দূরত্ব সবচাইতে সেরা বুদ্ধি করোনা প্রতিরোধে। যতক্ষন পর্যন্ত বাসায় করোনা আক্রান্ত রোগী নেই ততক্ষন পর্যন্ত দরজার হাতল, লিফটের বোতাম, চেয়ার, টেবিল বড় কোন ক্ষতির কারন না। গুজবে কান দিবেন না। কনফিউসড হবেন না। সত্য জানুন, নিরাপদে থাকুন।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker