কলেজছাত্রী তনু হত্যার বছরপূর্তি | outside-dhaka | natunbarta.com | Top Online Newspaper in Bangladesh
বুধবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৭
webmail
Mon, 20 Mar, 2017 10:29:05 AM
কুমিল্লা প্রতিনিধি
নতুন বার্তা ডটকম

কুমিল্লা: কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্রী ও নাট্যকর্মী সোহাগী জাহান তনু হত্যাকাণ্ডের এক বছরপূর্তি হচ্ছে আজ। ২০১৬ সালের ২০ মার্চ রাতে কুমিল্লা সেনানিবাসের ভেতরের একটি জঙ্গল থেকে তনুর লাশ উদ্ধার করা হয়।

দীর্ঘ এক বছর তদন্তের পরও ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছে হত্যাকাণ্ডে জড়িতরা। ঘটনার পর থেকে তদন্তের ভার একাধিক সংস্থার হাত বদল হয়ে বর্তমানে রয়েছে কুমিল্লা অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) হাতে।

তনু হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই চলছে বিচারের দাবিতে আন্দোলন। বিচারের দাবিতে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের মানুষ নানা কর্মসূচি পালন করে। করা হয় মানববন্ধন, সড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ সমাবেশ। এত কিছুর পরও যেন টনক নড়ছে না প্রশাসনের। মামলার অগ্রগতি একই জায়গায় বারবার ঘুরপাক খাচ্ছে।

গত বছরের ২০ মার্চ রাতে কুমিল্লা সেনানিবাসের ভেতরের একটি জঙ্গল থেকে তনুর লাশ উদ্ধার করা হয়। পরের দিন তার বাবা কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট বোর্ডের অফিস সহায়ক ইয়ার হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাতপরিচয় আসামিদের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন।

থানা পুলিশ ও গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) হাত বদল হয়ে গত বছরের ১ এপ্রিল থেকে মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব পায় কুমিল্লা সিআইডি। গত বছরের মে মাসে সিআইডি তনুর জামা-কাপড় থেকে নেওয়া নমুনার ডিএনএ পরীক্ষা করে তিনজনের শুক্রাণু পাওয়ার কথা গণমাধ্যমকে জানায়। হত্যার আগে তনুকে ধর্ষণ করা হয়েছিল বলে নিশ্চিত করে তারা।

এদিকে, দীর্ঘ এক বছরেও তনু হত্যার সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত বা গ্রেপ্তার করতে না পারা, সামরিক-বেসামরিক অর্ধশতাধিক ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা, দুই দফা ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে মৃত্যুর সুস্পষ্ট কারণ উল্লেখ করতে না পারা, এমনকি ডিএনএ পরীক্ষায় তিন ধর্ষণকারীর শুক্রাণু পেলেও এ পর্যন্ত ডিএনএ ম্যাচ করে ঘাতকদের শনাক্ত করতে না পারায় মামলার ভবিষ্যৎ নিয়ে তনুর পরিবারসহ বিভিন্ন মহলে সংশয় দেখা দিয়েছে।

এ বিষয়ে তনুর মা আনোয়ারা বেগম বলেন, “দেশে অনেক চাঞ্চল্যকর ঘটনার রহস্য উদঘাটন করা হয়। তাদের সাজাও হচ্ছে। কিন্তু তনুর খুনিরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছে। তনুর হত্যাকারীরা কি এতটাই শক্তিশালী যে তাদের শনাক্ত করতে হিমশিম খেতে হবে।”

আনোয়ারা আরো বলেন, “গত এক বছরেও খুনিদের কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। আমাদের জন্য আল্লাহ্ আছেন। দুনিয়াতে এ বিচার না পেলেও পরকালে মেয়ের হত্যাকারীদের শাস্তি হবেই।”

ডিএনএ পরীক্ষার পর এর ফলাফল সম্পর্কে তাদের কিছুই জানানো হচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেন তনুর মা।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও কুমিল্লা সিআইডির সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার জালাল উদ্দীন আহমেদ বলেন, “মামলাটির তদন্ত নিজস্ব গতিতে চলছে, তাই তদন্তাধীন এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না।”

এদিকে, তনুর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আজ সোমবার জেলার মুরাদনগর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের বাড়িতে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হবে বলে জানিয়েছেন তনুর বাবা ইয়ার হোসেন।

নতুন বার্তা/এএইচ


Print
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ


শিরোনাম
Top