রোববার, ২০ আগস্ট ২০১৭
webmail
Sat, 12 Aug, 2017 11:24:16 PM
খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
নতুন বার্তা ডটকম

খাগড়াছড়ি: প্রবল বর্ষনে খাগড়াছড়ি জেলায় পাহাড় ধ্বসের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। দীঘিনালা উপজেলায় পাহাড় ধ্বসে ৫টি বসতঘর চাপা পড়েছে। তবে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। ঝুকিপুর্ণ স্থান থেকে লোকজনকে সরে যেতে সন্ধ্যায় সদর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষথেকে পৌর শহরে মাইকিং করা হয়েছে। দীঘিনালার পাহাড় ধ্বসে ক্ষতিগ্রস্থ ১৮ পরিবার স্থানীয় রশিক নগর দাখিল মাদ্রাসায় আশ্রয় নিয়েছেন।
 
অন্যদিকে  বৃহস্পতিবার থেকে দুই দিনের প্রবল বর্ষনে খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা উপজেলার মেরুং ইউনিয়নের ৫টি গ্রাম পাহাড়ী ঢলে প্লাবিত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে এসব গ্রামের ৬ শতাধিক পরিবার।

শনিবার সকাল থেকে মাইনী নদীর পানি অস্বাভাকিভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় নদীর দু‘কূল উপচে আশপাশের নিচু এলাকা তলিয়ে যায়। ছোটমেরুং বাজার ও আশপাশের সড়কে পানি উঠায় খাগড়াছড়ির দীঘিনালার সাথে রাঙ্গামাটির লংগদু উপজেলার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে । মেরুং বাজারের ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক বাবুল সওদাগর জানান, বন্যার পনিতে বাজারের ১০০ দোকান এখন পানির নিচে। 

বেতছড়ি, হাজাছড়া, মেরুং বাজার ,সোবাহানপুর, চিটাগাংগ্যাপাড়া ও ছদকছড়া এলাকা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় ৩টি আশ্রয় দেড় শতাধিক পরিবার আশ্রয় নিয়েছেন। অনেকে আত্বীয় স্বজনের বাড়ী আশ্রয় নিয়েছেন।

দীঘিনালা উপজেলা চেয়ারম্যান নব কমল চাকমা এবং  ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী  ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) মো. মাহফুজুর রহমান ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেছেন। প্রশাসনের পক্ষথেকে আশ্রয়কেন্দ্রে শুকনা খাবার এবং ত্রাণ বিতরণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

নতুন বার্তা/ কেকেআর
 


Print
আরো খবর
    সর্বশেষ সংবাদ


    শিরোনাম
    Top