বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭
webmail
Thu, 07 Dec, 2017 04:55:19 PM
রাঙামাটি প্রতিনিধি
নতুন বার্তা ডটকম
রাঙামাটি: জেএসএস এর সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গুলিতে রাঙামাটির জুড়াছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অরবিন্দু চাকমা নিহত ও বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রাসেল মারমার উপর হামলাকারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারসহ পাহাড় থেকে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার অভিযানের দাবিতে রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের ডাকে রাঙামাটিতে আজ বৃহস্পতিবার সকাল-সন্ধ্যা হরতাল সর্বাত্মক শান্তিপূর্নভাবে পালিত হচ্ছে।
 
হরতালের শুরুতে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শহরের অভ্যন্তরে এবং দূরপাল্লার সবধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। নৌ-পথেও বন্ধ রয়েছে সকল প্রকার যাত্রীবাহি যান-বাহনগুলো।
 
সরকারি-বেসরকারি অফিস আদালত খোলা থাকলেও সাধারণ মানুষের উপস্থিতি কম লক্ষ্য করা গেলেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি অন্যান্য দিনের মতোই একই রকম রয়েছে। সরকারি নির্দেশনানুসারেই অনুষ্ঠিত হচ্ছে পরিক্ষা সমূহ। এদিকে হরতালের সমর্থনে রাঙামাটি শহরসহ প্রায় সবগুলো উপজেলা সদরেই বুধবার বিকেলে বিক্ষোভ মিছিল করেছে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা।
 
উল্লেখ্য, রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দের দাবি মঙ্গলবার একইদিনে পৃথক পৃথক সময়ে জেলার দুই উপজেলার প্রথমসারির দুইজন নেতার উপর হামলা চালিয়েছে জেএসএস এর সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার সন্ধ্যারাতে জুড়াছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অরবিন্দু চাকমাকে গুলি করে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। অপরদিকে একই দিন বিকেলে বিলাইছড়ি উপজেলা সদরে চায়ের দোকানে বসে থাকা অবস্থায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রাসেল মারমার উপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা চালিয়ে তাকে কুপিয়ে গুরুত্বর আহত করে আঞ্চলিকদলীয় সন্ত্রাসীরা।
 
উভয় ঘটনাগুলো সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি জেএসএস এর সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা ঘটিয়েছে অভিযোগ করে তাদেরকে গ্রেফতার ও অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার অভিযান পরিচালনার দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার রাঙামাটি জেলায় সর্বাত্মক হরতাল পালনের ডাক দেয় ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ। সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ নেতা দিপংকর তালুকদারের নেতৃত্বে বুধবার রাঙামাটি শহরে আয়োজিত এক বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সমাবেশে আজ বৃহস্পতিবার হরতাল পালনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছিলো।
 
ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের অভিযোগ, পার্বত্য চুক্তির বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি জেএসএস’র নেতারা পাহাড়ে আগুন জ্বলবে বলে যে হুমকি দিয়ে বক্তব্য রেখেছিলেন তারই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবারের হত্যা ও হামলার ঘটনা ঘটানো হয়েছে।
 
নতুন বার্তা/এফকে

Print
আরো খবর
    সর্বশেষ সংবাদ


    শিরোনাম
    Top
    close