রোববার, ২২ এপ্রিল ২০১৮
Sun, 08 Apr, 2018 08:17:50 PM
শরীয়তপুর প্রতিনিধি
নতুন বার্তা ডটকম
শরীয়তপুর: আগামী জাতীয় সংসদ (একাদশ) নির্বাচনে শরীয়তপুর-২ (নড়িয়া-সখিপুর) আসনে বিএনপি’র মনোনয়ন পেতে ব্যাপক ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন, শরীয়তপুর জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি, ঐতিহ্যবাহী মুন্সী পরিবারের কৃতি সন্তান (অবিভক্ত বাংলার আইন সভার সদস্য খান সাহেব আ. আজিজ মুন্সী’র নাতী), বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও সমাজ সেবক আলহাজ মো. জাকির হোসেন মুন্সী। তিনি এখন আলোচনার শীর্ষে।      
দলীয় ও স্থানীয় সূত্রমতে, শরীয়তপুর-২ (নড়িয়া-সখিপুর) আসনে এবার পরিবর্তনের হাওয়া বইছে। আর জনমুখী নানা ইতিবাচক কর্মকান্ড আর সুখে-দুঃখে দলীয় নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষের পাশে থাকা বারবারের নির্বাচিত সাবেক সফল জনপ্রতিনিধি আলহাজ¦ মোঃ জাকির হোসেন মুন্সী দলীয় মনোনয়নের বিষয়ে বিভিন্ন ভাবে এগিয়ে আছেন। আগামী নির্বাচনে এই আসনে যারা বিএনপি’র ধানের শীষ প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশী তাদের মধ্যে তিনি অন্যতম। তাকে নিয়ে এ আসনের দলীয় নেতাকর্মী সহ সাধারণ মানুষ স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে। বিভিন্ন ইতিবাচক কর্ম আর বিচক্ষণ নেতৃত্বগুণে ইতিমধ্যে এ আসন বাসীর আস্থা ও ভালাবাসা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। তারা এবার তাকেই এমপি হিসেবে পেতে চান। তিনি এলাকায় নানান কর্মকান্ডে আত্মনিয়োগ করছেন। দলীয় কর্মসূচির পাশা-পাশি সামাজিক ও সেবামূলক কর্মকান্ডে তাকে যোগ দিতে দেখা গেছে। এলাকার সাধারণ মানুষের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন।
 
এ ব্যাপারে এই আসনের অনেকেই বলেন, জাকির হোসেন মুন্সী এ আসনের জনসাধারণকে যেভাবে বুকে জড়িয়ে নিয়ে, তাদের সুখে-দুঃখে পাশে থাকেন, তা সত্যি অভূতপূর্ব। এছাড়া সে হাসি মুখে অনেকেরই মন জয় করে নিয়েছেন। এলাকার জনগণও তাকে সাদরে গ্রহণ করছেন। তাই আমরা তাকেই এমপি হিসেবে পেতে চাই। এদিকে বিগত নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় এবার তিনি দলীয় মনোনয়ন পাবেন বলে ব্যাপক ভাবে আশাবাদী তার সমর্থকরা। তিনি এখন আলোচনার শীর্ষে।    
  
এ ব্যাপারে জাকির হোসেন মুন্সী বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ এলাকার মানুষের পাশে থেকে তাদের আশা-আকাঙ্খার কথা জেনেছি। স্বাধ্যমত তাদের সেবা করেছি। তবে দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয় তাহলে বিজয়ের ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী। তবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও দেশনায়ক তারেক রহমানের নির্দেশ পেলেই আমি নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহী। তিনি আরও বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া আবারও ক্ষমতায় এসে এদেশের জনগণের কাঙ্খিত গণতন্ত্র ফিরিয়ে দেবে। এজন্য দলের প্রতিটি নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধভাবে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার দাবির আন্দোলনে শরিক হতে হবে।
  
অন্যদিকে, জাকির হোসেন মুন্সী বিগত নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় এবার তিনি দলীয় মনোনয়ন পাবেন বলে আশাবাদী তার সমর্থকরা। তারা বলেন, তিনি বারবার নির্বাচিত সাবেক জনপ্রতিনিধি। এছাড়া বিগত দিনে দলের জন্য তার অনেক ত্যাগ রয়েছে। তাই তিনিই এবার মনোনয়নের দাবিদার। তার ত্যাগ ও ব্যক্তিগত ক্লিন ইমেজের কারণে তিনি মনোনয়ন পেলেই এমপি নির্বাচিত হবেন।       
 
এদিকে জানাগেছে, মো. জাকির হোসেন মুন্সী দেশের খ্যাতনামা বেসকারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক। তিনি নড়িয়া তথা শরীয়তপুরের ঐতিহ্যবাহী মুন্সী পরিবারের কৃতি সন্তান। তার দাদা খান সাহেব আ. আজিজ মুন্সী অবিভক্ত বাংলার আইনসভার সদস্য ছিলেন। বড় ভাই আজিজুল হক মুন্সী নড়িয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। আর তিনি নিজে নওপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের বারবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন।
 
এছাড়াও তার বংশে বর্তমানেও একাধিক জনপ্রতিনিধি রয়েছেন। তাই তিনি দলীয় মনোনয়ন পেয়ে এমপি নির্বাচিত হয়ে পদ্মায় ভাঙন কবলিত মানুষের উন্নয়নে কাজ করতে চান। এছাড়াও তিনি তার নির্বাচনী এলাকায় নিয়মিত দলীয় কর্মসূচিসহ পথসভা, মতবিনিময় ও গণসংযোগ এবং সামাজিক অনুষ্ঠানেও যোগ দিচ্ছেন। আর তিনিই দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় সাধারণ মানুষের পাশে রয়েছেন। পদ্মায় ভাঙন কবলিতদের নিয়মিত খোঁজখবরও রাখেন তিনি।   
 
নতুন বার্তা/এফকে

 


Print
আরো খবর
    সর্বশেষ সংবাদ


    শিরোনাম
    Top