বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭
webmail
Wed, 06 Dec, 2017 03:10:58 PM
নতুন বার্তা ডেস্ক

বড়সড় প্রশ্নচিহ্নের মুখে ২০১৮ র ফুটবল বিশ্বকাপ৷ আগামী বছরের ১৪ জুন রাশিয়া-সৌদি আরব ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে ২১ তম ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ৷ এদিকে মঙ্গলবারই আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি ডোপিং এর দায়ে শীতকালীন অলিম্পিক থেকে নির্বাসিত করেছে রাশিয়াকে৷ আর খেলাধুলার মঞ্চ থেকে আজীবনের জন্য নির্বাসন দিয়েছে রাশিয়ার উপ প্রধানমন্ত্রী ভিটালি মুটকোকে৷ এই রাশিয়াতেই হচ্ছে ২০১৮ র ফুটবল বিশ্বকাপ আর এই ভিটালি মুটকোই হচ্ছেন ওই ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজক কমিটির প্রধান৷

শুধু অলিম্পিকের নয়, খেলাধুলোর ইতিহাসেও কলঙ্কজনক অধ্যায়৷ ডোপিং এর দায়ে ২০১৮ র শীতকালীন অলিম্পিক থেকে নির্বাসিত করা হল রাশিয়াকে৷ মঙ্গলবার এক ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তে ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটি আগামী বছরের দক্ষিণ কোরিয়ার পিয়ংচ্যাং অলিম্পিক থেকে নির্বাসন দিল রাশিয়াকে৷ সুইজারল্যান্ডের লুসানে এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়৷ শীতকালীন অলিম্পিক থেকে রাশিয়াকে নির্বাসন দেওয়ার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি রাশিয়ার উপ প্রধানমন্ত্রী ভিটালি মুটকো কে সারাজীবনের জন্য খেলাধূলার মঞ্চ থেকে নির্বাসিত করেছে৷ উপ প্রধানমন্ত্রী অলিম্পিক কমিটির আয়োজিত কোন খেলাধুলার মঞ্চে অংশ গ্রহণ করতে পারবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছে অলিম্পিক কমিটি৷

আর এখানেই শুরু হয়েছে আশঙ্কা আর সংশয়৷ রাশিয়াতে আগামী বছর ফুটবল বিশ্বকাপ হবে তো? উঠে গিয়েছে প্রশ্ন৷ কারণ, ব্যক্তিগত ভাবে ডোপিং নেওয়ার অভিযোগ উঠলেও একটি দেশ ও তার মন্ত্রীসভা ডোপিং এ উৎসাহ দিচ্ছে বা ডোপিং এ সরাসরি সাহায্য করছে বা প্রমাণ লোপাট করে ডোপিং লুকোবার চেষ্টা করছে, এই ধরণের অভিযোগ এই প্রথমবার৷ দু-দুটো কমিটির তদন্তে সেটা ইতিমধ্যেই প্রমাণিতও হয়েছে৷ তাই, আজীবন নির্বাসিত করা হয়েছে ভিটালি মুটকোকে৷ এই ভিটালি মুটকোই রাশিয়ান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ও আগামী বছরের ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজক কমিটির প্রধান৷ এখন আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি এই ভিটালি মুটকোকে ডোপিং এর জন্য আজীবনের জন্য খেলাধুলার মঞ্চ থেকে নির্বাসিত করার পর, তার নেতৃত্বে ফিফা কি বিশ্বকাপ আয়োজন করবে? প্রশ্ন কিন্তু উঠে গেছে৷

 
অলিম্পিকে ডোপিং নিয়ে ম্যাকলারেন কমিটির রিপোর্ট পাওয়ার পর ইতিমধ্যেই রাশিয়াকে এবছরে লন্ডনে অনুষ্ঠিত অ্যাথলিটস বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন থেকে নির্বাসিত করা হয়েছে৷ ম্যাকলারেন রিপোর্টে বলা হয়েছে, সরকারের সাহায্যেই রাশিয়ার অ্যাথলিটদের পর্যায়ক্রমে ডোপিং এর ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ যা ক্ষমাহীন অপরাধের মধ্যেই পরে৷ যেভাবে একটি দেশ নিজের প্রতিযোগীদের ডোপিং করতে সাহায্য করছে বা কখনও বাধ্য করছে তা নজিরবিহীন এবং অলিম্পিকের ঐতিহ্যের প্রবল বিরোধী৷

ম্যাকলারেন রিপোর্টের পর স্কমিড রিপোর্টেও ওই এক সরকারী ভাবে ডোপিং এর কলঙ্কজনক অধ্যায় ধরা পরে৷ স্কমিড রিপোর্টে উঠে আসে, কিভাবে অ্যান্টি ডোপিং সিস্টেমকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে রাশিয়া সরকার খেলোয়ারদের ডোপিং করতে সাহায্য করেছে৷ কখনও আবার খেলোয়ারদের বাধ্যও করছে সরকার ও তার খেলার কমিটিগুলি৷

আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির অ্যান্টি ডোপিং কমিশনের চেয়ারম্যান স্যামুয়েল স্কমিড নিজে এই ডোপিং কান্ডের তদন্ত করেন৷ ম্যাকলারেন রিপোর্ট পাওয়ার পরই নড়ে চড়ে বসে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি৷ একটি সরকারের সাহায্যে কিভাবে ডোপিং এ সমস্ত আইন অমান্য করে খেলার ইতিহাসকে কলঙ্কিত করা হয়েছে ও হচ্ছে তা দেখে অবাক হয়ে যায় অলিম্পিকের অ্যান্টি ডোপিং কমিশন৷ তারপরই অ্যান্টি ডোপিং কমিশনের চেয়ারম্যান স্যামুয়েল স্কমিড নিজে এই তদন্তে নামেন৷

তদন্তে যা উঠে আসে তাতে চক্ষু চড়কগাছ হয়ে যায় আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির অ্যান্টি ডোপিং কমিশনের৷ একটি দেশ ডোপিং এর সমস্ত শর্ত, সমস্ত আইন ভেঙে ডোপ করছে ও করতে সাহায্য করছে দেখে হতবাক হয়ে যান কমিশনের সদস্যরা৷ তদন্তে উঠে আসে রাশিয়া সরকারের স্পোর্টস মিনিস্টিরিই এই ডোপিং এর সঙ্গে সরাসরি যুক্ত৷ অলিম্পিকের ইতিহাসে এই ধরণের নজিরবিহীন কলঙ্কিত অধ্যায় এর আগে খুব কম এসেছে৷ প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন এর ডেপুটি, রাশিয়ান উপ প্রধানমন্ত্রী ভিটালি মুটকো রয়েছেন স্পোর্টস মিনিস্টি্রর দায়িত্বে৷ সরাসরি রাশিয়ান সরকারের ভূমিকা প্রমাণ হয়ে যায় আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির অ্যান্টি ডোপিং কমিশনের তদন্তে৷

আর এই ভিটালি মুটকোই হলেন ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজক কমিটির প্রধান৷ পদাধিকার বলে গোটা বিশ্বকাপ আয়োজনটাই তার হাতে৷ ফুটবলের নিয়ামক সংস্থা ফিফাও কঠোরভাবে ডোপিং এর বিরুদ্ধে৷ এখন প্রশ্ন এটাই, যে দেশের বিরুদ্ধে সরকারি মদতে ডোপিং এর ভূমিকা প্রমাণ হয়ে গেছে সেই দেশে কি ফুটবল বিশ্বকাপ করবে ফিফা? যে দেশের বিরুদ্ধে ও তার উপ প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ডোপিং এর সমস্ত নিয়মকানুনকে বুড়ো আঙুল দেখাবার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণ হয়ে গেছে সেখানে কি আদৌ বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজন করবে ফিফা? প্রশ্ন কিন্তু উঠে গেছে৷

সরকারি মদতে রাশিয়ার ডোপিং কেলেঙ্কারির ঘটনা সামনে আসার পরই রাশিয়ার ২০১৪ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের পুরো দলটাকেই তদন্তের আওতায় আনা হয়েছে৷ ফিফার অ্যান্টি ডোপিং কমিটির কড়া নজরে আছে রাশিয়ার ২০১৮ র বিশ্বকাপ ফুটবল দলও৷ তবে, ২০১৮ র ফুটবল বিশ্বকাপ রাশিয়াতে আদৌ হবে কিনা, সে নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ কঠোর ভাবে ডোপিং এর বিরুদ্ধে লড়া ফিফা কি এমন একজনের নেতৃত্বে বিশ্বকাপ আয়োজন করবে যার বিরুদ্ধে সরকারি ব্যবস্থাকে কাজে লাগিয়ে ডোপিং করানোর অভিযোগ প্রমাণ হয়ে গেছে? প্রশ্ন কিন্তু উঠতে শুরু করেছে৷

তবে, আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি এই সিদ্ধান্তের ভার পুরোপুরি ফিফার উপরেই ছেড়ে দিয়েছে৷ ফুটবল বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এত তাড়াতাড়ি বিশ্বকাপ অন্য কোন দেশে সরানো সম্ভব হবে না৷ তাই মনে করা হচ্ছে, আপাতত ভিটালি মুটকোকে আয়োজক কমিটির প্রধানের পদ থেকে সরিয়েই বিশ্বকাপ আয়োজন করার উদ্যোগ নেবে ফিফা৷

তবে, রাশিয়ান প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন যেভাবে ডোপিং এর সমস্ত অভিযোগের বিরুদ্ধে তাঁর মন্ত্রীসভাকে সমর্থন করছেন এবং যুদ্ধং দেহি মনোভাব নিয়েছেন তাতে এই লড়াই যে এত সহজে থামবে না, তা পরিস্কার৷ আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির কোন সিদ্ধান্তই সহজে মানছে না রাশিয়া সরকার৷ তাই ফুটবল বিশ্বকাপ নিয়ে ফিফার সিদ্ধান্তও যে রাশিয়া সহজে মেনে নেবে এমনটাই ভাবছে না ফিফা৷

বিশ্বকাপের মঞ্চে মেসি, রোনাল্ডোর খেলা দেখা নিয়ে এভাবে জটিলতা সৃষ্টি হবে, তা ভাবতেও পারেন নি ফিফা কর্তারা৷ আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি সিদ্ধান্তের ভার ফিফার উপরেই ছেড়ে দিয়েছে৷ কারণ অলিম্পিক কমিটির মতোই ফিফাও কঠোর ভাবে ডোপিং এর বিরুদ্ধে৷ তাই আগামী বছরের ফুটবল বিশ্বকাপ নিয়ে ফিফা কি সিদ্ধান্ত নেয় তার জন্যই অপেক্ষা গোটা বিশ্বের৷

নতুন বার্তা/এমআর


Print
আরো খবর
    সর্বশেষ সংবাদ


    শিরোনাম
    Top
    close