খেলাহোমপেজ স্লাইড ছবি

ব্যালন ডি অ’র নিয়ে যত কথা

মঞ্জুর দেওয়ান: শুরুটা অনেকটা কল্পনা থেকে। গ্যাব্রিয়েল হ্যানটের ধারণা থেকে জন্ম নেয়া পুরস্কার আজ ফুটবল বিশ্বের অন্যতম মর্যাদার! ব্যক্তিগত অর্জন ধরতে গেলে তো কথাই নাই। ফ্রান্স ফুটবলের দেয়া পুরস্কারটি অনেক ফুটবলারের কাছে অধরা স্বপ্ন! হ্যা, ঠিক ধরেছেন, বলছি ব্যালন ডি অ’রের কথা। গ্যাব্রিয়েল হ্যানটের হাত ধরেই পদচারণা শুরু ফুটবলারদের স্বপ্নের সেই ট্রফি ব্যালন ডি অ’রের। আসুন জেনে নিই ব্যালন ডি অ’র এর শুরুর ইতিহাস-

গ্যাব্রিয়েল হ্যানট! যার ধারণা থেকে চালু হয় ব্যালন ডি অ’র পুরস্কার

ফরাসি ক্রীড়া লেখক গ্যাব্রিয়েল হ্যানটের মাথায় বিশ্বের সেরা ফুটবলারদের পুরস্কার দেয়ার ব্যাপারটি আসে। ১৯৫৬ সাল থেকে শুরু হওয়া পুরস্কারটি প্রথমে ছিলো শুধু মাত্র ইউরোপের ফুটবলাদের জন্য।
১৯৯৫ সাল থেকে ইউরোপ ভিত্তিক সকল ক্লাবের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। তবে এর মূল আকর্ষণ শুরু হয় ২০০৭ সালে। কেননা, ২০০৭ সাল থেকেই পুরস্কারটিকে বৈশ্বিক রূপ দেয় ব্যালন ডি অ’র কর্তৃপক্ষ। ব্যক্তিগত নৈপূণ্যে সমৃদ্ধ সারা বিশ্বের ফুটবলারদের বিবেচনায় রাখতে শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি।

২০১০ থেকে ২০১৫, এই ছয় বছর ছিলো ব্যালন ডি অ’রের সোনালি সময়। কেননা, এই সময়টিতেই ফিফার সাথে মিলে ফিফা বর্ষসেরা আর ব্যালন ডি অ’র এক সাথে মিলে পুরস্কারটি দিতে শুরু করে। ২০১৬ থেকে আবার ফরাসি ফুটবলের একক আয়োজনে চলতে থাকে ব্যালন ডি অ’র ।

ক্রীড়া সাংবাদিকদের ভোটে নির্বাচিত হওয়া পুরস্কারটি প্রথম জিতেছিলেন স্ট্যানলি ম্যাথিউস। ১৯৫৬ সালের পুরস্কারটি এখনো অনেক ইতিহাস বহন করে চলেছে। এরপর মেঘে মেঘে অনেক বেলা কেটে গেছে। ব্যালন ডি অ’রের ইতিহাসেও যোগ হয়েছে নতুন নতুন সব গল্প। তারা-মহাতারাদের নামে সমৃদ্ধ হয়েছে খোদ ব্যালন ডি অ’র! এই যেমন জর্জ ওয়েহা। মিলানের সাবেক তারকা প্রথম ইউরোপের বাইরের ফুটবলার হিসেবে ব্যালন ডি অ’র  জিতে আলোচনার খোরাক জুগিয়েছে বৈকি! তিনবার পুরস্কার জিতে আলোচিত হয়েছিলেন আরোও কয়েকজন। অনেক খ্যাতনামা ফুটবলারদের কাছে একবার ব্যালন ডি অ’র জিতা যেখানে সম্মানের, সেখানে তিনবার করে ব্যালন ডি অ’র জিতেছিলেন ইয়োহান ক্রুইফ, মিশেল প্লাতিনি ও মার্কো ভান বাস্তেন। ডাচ, জার্মান আর পর্তুগিজদের সবচেয়ে বেশি সফলতা দেখেছে ব্যালন ডি অ’র । ক্লাব হিসেবে সফল বার্সেলোনা। রেকর্ড ১১ বার সোনালি বলটি জিতেছে কাতালান ক্লাবটির ফুটবলাররা।

ব্যালন ডি অ’র পুরস্কার নিয়ে লিওনেল মেসি

এরপর সময়ের বিবর্তনে একক আধিপত্যও দেখেছে ফুটবল বিশ্ব। লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো নামক দুই মহা তারকার আধিপত্য দেখে ফুটবল বিশ্ব। দৈরথ কিংবা আধিপত্য যা-ই বলি না কেন; ফুটবলকে নতুন করে চিনিয়েছে এই দুই মহারথী। ২০০৯ থেকে টানা চার বছর ব্যালন ডি অ’র জিতে অনেকটা ব্যক্তিগত পুরস্কারই বানিয়ে ফেলেছিলেন লিওনেল মেসি। নিজের নামের সমার্থক শব্দ বানিয়ে ফেলা মেসি পরবর্তীতে আরোও একবার ব্যালন ডি অ’র জিতেন। পাঁচবার সোনালি বল জিতে রেকর্ডের অংশ হয়ে আছেন আর্জেন্টাইন খুদে জাদুকর। কঠোর পরিশ্রম আর মেধা দিয়ে রেকর্ড বইয়ে আছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর নামও। ব্যালন ডি অ’র পাঁচবার বগলদাবা করেছেন পর্তুগিজ যুবরাজ।

ব্যালন ডি অ’র নিয়ে রোনালদা

মেসি-রোনালদো নামক ”স্বৈরশাসকের থেকে ব্যালন ডি অ’র মুক্তি পেয়েছে এবার। ২০১৮ সালের ব্যালন ডি অ’র জিতেছেন লুকা মদরিচ। রাশিয়া বিশ্বকাপে অসাধারণ নৈপূণ্যের পুরস্কার পেয়েছেন ক্রোয়াট মিডফিল্ডার। দিন যাবে মাস যাবে, ফুটবলারাও সবুজ ক্যানভাসে ছবি আঁকবেন। আর ব্যালন ডি অ’র খুঁজে নিবে তার নতুন ‘রাজা’ কে!

এবারের ব্যালন ডি’অর জিতেছেন ক্রোয়েশিয়ার রিয়াল মাদ্রিদ তারকা লুকা মদরিচ

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker