খেলাহোমপেজ স্লাইড ছবি

বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে যেসব স্টেডিয়ামে

মঞ্জুর দেওয়ান: দামামা বাজতে শুরু করেছে ক্রিকেট বিশ্বকাপের। ভদ্রলোকের খেলার ১২তম আসর বসতে চলেছে এবার ইংল্যান্ডে। ২০ বছর পর আয়োজক হতে পেরে উচ্ছ্বসিত ব্রিটিশরা। পঞ্চম বারের মতো বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চলেছে ইংল্যান্ড। ৩০ মে থেকে শুরু হয়ে ১৪ জুলাই পর্যন্ত চলবে ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় এই আয়োজন। ইংল্যান্ড এবং ওয়েলসে  এই মহাযজ্ঞ চলবে দেড়মাস ব্যাপী। ইংল্যান্ড এবং ওয়েলসের ১১ টি স্টেডিয়ামে চলবে এই মহাযজ্ঞ। চলুন জেনে নেয়া যাক ২০১৯ বিশ্বকাপের সবগুলো স্টেডিয়ামের পরিচিতি।

‌দ্য ওভাল: দক্ষিণ লন্ডনের কেনিংটনে অবস্থান দ্য ওভালের। ক্রিকেট ইতিহাসের অসংখ্য স্মৃতি বহন করে এই স্টেডিয়াম। ১৮৮০ সালে এই মাঠেই প্রথম আন্তর্জাতিক টেস্ট ম্যাচের আয়োজন করেছিল ইংল্যান্ড। সারে কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবের নিয়ন্ত্রণাধীন ওভালের দর্শক ধারণক্ষমতা সাড়ে ২৫ হাজার। ৩০ মে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচ দিয়ে ২০১৯ বিশ্বকাপের স্বাদ নিবে দ্য ওভাল। এই ভেন্যুতেই দুটি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। ২ জুন খেলবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। ৫ জুনের প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড। 

ট্রেন্ট ব্রিজ: নটিংহামশায়ারের ঘরের মাঠ এটি। টেস্ট ক্রিকেটের জন্য নামডাক থাকলেও এবার বিশ্বকাপের ভেন্যু ট্রেন্ট ব্রিজ। নটিংহাম শহরের ট্রেন্ট নদীর পাদদেশে অবস্থান ‘সুন্দরী’ ট্রেন্ট ব্রিজের। সাড়ে ১৭ হাজার দর্শক ধারণক্ষমতার এই স্টেডিয়ামে মোট ৫ টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে। যার মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার ম্যাচ। ২০ জুন মাশরাফিদের প্রতিপক্ষ ক্রিকেট বিশ্বের সবচেয়ে সফল দল অস্ট্রেলিয়া। 

সোফিয়া গার্ডেন্স: ওয়েলসের যে একটি মাত্র ভেন্যু বিশ্বকাপের স্বাদ পাবে। তার নাম সোফিয়া গার্ডেন্স। ওয়েলসের রাজধানী শহর কার্ডিফে অবস্থান সোফিয়া গার্ডেন্সের। গ্ল্যামরগানের ঘরের মাঠে বসে খেলা দেখতে পারবে ১৫ হাজার ৬৪৩ জন। কার্ডিফ শহরে অনুষ্ঠিতব্য ৪ টি খেলার মধ্যে বাংলাদেশের খেলাও রয়েছে। ৮ জুন স্বাগতিক ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। 

ব্রিস্টল কাউন্টি গ্রাউন্ড: দক্ষিণ পশ্চিম লন্ডনের ব্রিস্টল শহরের নেভিল রোডে অবস্থান এই স্টেডিয়ামের। অ্যাশলি ডাউনের এই মাঠটি কাউন্টি ক্রিকেট দল গ্লসটাশায়ারের ঘরের মাঠ। মাঠটিতে মোট ৩ টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে। ১১ জুন এখানেই শ্রীলংকার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। 

এজবাস্টন: বার্মিংহামের মাঠটি কাউন্টি ক্রিকেট গ্রাউন্ড নামেও পরিচিত। ১৮৮২ সালে নির্মিত হলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের স্বাদ পায় ১৯০২ সালে। ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক মণ্ডলে পথচলা শুরু করে এজবাস্টন। বৈচিত্র্যময় গ্যালারির এজবাস্টনে একসাথে বসে খেলা দেখতে পারবে ২৫ হাজার দর্শক। সেমিফাইনালসহ মোট ৫ টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে এজবাস্টনে। 

রিভারসাইড গ্রাউন্ড: চেস্টার-লা-স্ট্রিটের ইংল্যান্ডের নতুন স্টেডিয়ামগুলোর একটি। ১৯৯৫ সালে নির্মিত স্টেডিয়ামটির আসন সংখ্যা ৫ হাজার থেকে উন্নীত হয়ে ১৯ হাজারে পৌঁছেছে। স্পন্সরশীপের জন্য রিভারসাইড গ্রাউন্ডকে এমিরেটস গ্রাউন্ড নামেও ডাকা হয়। ২০ হাজার আসনের স্টেডিয়ামটিতে মোট ৩ টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে। 

হেডিংলি: টেস্ট ক্রিকেটের ভেন্যুর জন্য বিখ্যাত হেডিংলি ইংল্যান্ডের লিডস শহরে অবস্থিত। ১৯ শতকের আগে থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সাক্ষী হয়ে আসছে হেডিংলি ক্রিকেট গ্রাউন্ড। প্রথম একদিনের আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠিত হয়েছিল ১৯৭৩ সালে। ইংল্যান্ড-শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান-পাকিস্তান ও ভারত-শ্রীলঙ্কার ম্যাচসহ মোট ৪ টি খেলার ভেন্যু হেডিংলি ক্রিকেট গ্রাউন্ড। 

লর্ডস: ক্রিকেটের তীর্থভূমি খ্যাত স্টেডিয়ামটি ইংল্যান্ডের লন্ডনে। ব্রিটিশদের সবচেয়ে বড় ক্রিকেট গ্রাউন্ড এটি। ২৮ হাজার দর্শক ধারণক্ষমতার মাঠটি কাউন্টি দল মিডলসেক্সের ঘরের মাঠ। ওয়ানডে ক্রিকেটের ১২তম আসরের পর্দা নামবে লর্ডসে। ফাইনাল মিলিয়ে মোট ৫ টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে লন্ডনে। 

ওল্ড ট্রাফোর্ড: ফুটবল দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের জন্য ওল্ড ট্রাফোর্ডের নাম শুনেছেন অনেকে। কেউ কেউ ম্যান-ইউ এর মাঠের সাথে নাম গুলিয়ে ফেলেন। কিন্তু একই নামে ক্রিকেটের মাঠ আছে তা জানেন না। জনসংখ্যার দিক থেকে ইংল্যান্ডের তৃতীয় বৃহত্তম শহর ম্যানচেস্টারে ওল্ড ট্রাফোর্ড। স্পন্সরের সুবাদে এমিরেটস ওল্ড ট্রাফোর্ড হিসেবেও পরিচিতি আছে। ২৬ হাজার আসনের গ্যালারি সম্বলিত স্টেডিয়ামটিতে সেমিফাইনাল সহ সর্বোচ্চ ৬টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে। 

 রোজ বোল: সাউদাম্পটনের হ্যাম্পশায়ারে অবস্থান রোস বোল। তবে ‘দ্য এজিয়াস বোল’ নামে বেশি পরিচিত। কাউন্টি দল হ্যাম্পশায়ারের মাঠ এটি। হোটেল সুবিধা দেয়ার দিক থেকে একমাত্র ক্রিকেট গ্রাউন্ড এটি। ২৫ হাজার আসনের স্টেডিয়ামটিতে ৫ টি খেলা আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে আয়োজক কর্তৃপক্ষ।

 

কাউন্টি গ্রাউন্ড: এবারের ক্রিকেট বিশ্বকাপের সবচেয়ে ছোট ভেন্যু এটি। সমারসেটের সবচেয়ে বড় আঞ্চলিক শহর টাউনটনে অবস্থান এই স্টেডিয়ামটির। কাউন্টি দল সমারসেটের হোমগ্রাউন্ড এটি। সীমিত আসন সংখ্যার মাঠটিতে একসাথে খেলা দেখতে পারবেন সাড়ে ১২ হাজার দর্শক। ১৭ জুন এই মাঠেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে আসা আফগানিস্তান নিবে নিউজিল্যান্ডের চ্যালেঞ্জ। ১২ জুন রয়েছে অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তানের হাই ভোল্টেজ ম্যাচ। 

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker