খেলাহোমপেজ স্লাইড ছবি

ক্রিকেটের ‘ব্যাডবয়’ সাব্বিরের গল্প

মঞ্জুর দেওয়ান: বিপিএলের প্রথম আসর থেকে সবার নজরে এসেছিলেন সাব্বির রহমান। বলতে গেলে বিপিএলের আবিস্কার বাংলাদেশ ক্রিকেটের এই হার্ড হিটার ব্যাটসম্যান। ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট দিয়ে অভিষেক হওয়া এই ব্যাটসম্যান এখন বাংলাদেশ দলের মিডল অর্ডারের অন্যতম ভিত্তি। দ্রুত রান তোলার জন্য বাংলাদেশ দলের ’একমাত্র’ নাম সাব্বির রহমান! কয়েক ওভারেই দলীয় স্কোরে আনতে পারে ব্যাপক পরিবর্তন।

ক্রিকেটের সবচেয়ে ছোট সংস্করণ থেকে হার্ড হিটিং তকমা নিয়ে ওয়ানডে দলে জায়গা করে নেন সাব্বির। টি-টোয়েন্টি অভিষেকের বছরই ওয়ানডে দলে জায়গা করে নেন তিনি। নির্বাচকদের আস্থার প্রতিদানও দিয়েছেন রাজশাহীতে জন্ম নেয়া এই ক্রিকেটার। একই সাথে নানান ধরনের বিতর্কের সাথেও জড়িয়ে পড়েন এই তারকা ক্রিকেটার। প্রথম বিতর্কের জন্ম নেয় ’অস্কার’ নামক একটি কোমল পানীয়’র বিজ্ঞাপনচিত্রে অংশ নিয়ে। বিতর্কিত মডেল নায়লা নাঈমের সাথে খোলামেলা বিজ্ঞাপনের পর ভক্তদের থেকে সমালোচিত হন সাব্বির। চাপের মুখে পড়ে সাব্বিরকে সব ধরনের বিজ্ঞাপনে অংশ নেয়া থেকে নিষেধাজ্ঞা জারি করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। শুধু বিজ্ঞাপনচিত্রের মধ্যেই থেমে থাকেনি সাব্বির বিতর্ক।

সাব্বিরের ড্রাইভারের মাধ্যমে জানা যায়, নায়লা নাঈমের সাথে অনিয়মতান্ত্রিক জীবন যাপন করছেন সাব্বির। এ ঘটনা জানাজানি হবার পর কম চাপে পড়তে হয়নি তাকে। তবে সবচেয়ে সমালোচিত হয়েছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক ভক্তকে কটুক্তি করে। ফেসবুক মেসেজের কারণে সাব্বিরকে দল থেকে নিষিদ্ধ পর্যন্ত করা হয়। ছয়মাসের নিষেধাজ্ঞার কারণে ঘরের মাঠে বেশ কয়েকটি সিরিজ খেলা থেকে বঞ্চিত হন এই তারকা ক্রিকেটার। তবে নিষেধাজ্ঞার চেয়ে বেশি আলোচনায় আসেন দলে নতুন করে ফিরে। বিপিএলে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে ব্যাটিং নৈপুণ্য প্রদর্শনের পরেই দলে ফিরেন সাব্বির। নিষেধাজ্ঞা শেষ হবার আগেই দলে অন্তর্ভুক্তি মেনে নিতে পারেননি অনেকেই। তাই নিউজিল্যান্ড সিরিজের চূড়ান্ত তালিকায় নাম দেখে ফুসলে উঠেন অনেক সমর্থকরা।

নিউজিল্যান্ড সিরিজে সাব্বিরকে দরকার মন্তব্য করে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েন ক্যাপ্টেন মাশরাফিও। কিন্তু নিউজিল্যান্ড সিরিজে দলের বাকিদের তুলনায় ভালো পারফর্মেন্সে জবাব দেন সাব্বির। প্রথম দুই ম্যাচে ইনিংস বড় করতে না পারলেও তৃতীয় ওয়ানডেতে দূর্দান্ত সেঞ্চুরি করেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের এই ‘ব্যাড বয়’। তবে সেঞ্চুরি করেও সমালোচনার জন্ম দিয়েছেন সাব্বির। কিন্তু ওয়ানডে ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো তিন অঙ্ক ছুঁয়ে সাব্বির যে উৎযাপনটা করলেন, সেটি একেবারেই পছন্দ হয়নি মাশরাফি বিন মুর্তজার।

ধবলধোলাই হওয়ার সিরিজে বাংলাদেশের কোনো ক্রিকেটারের মনে রাখার মতো কীর্তি এই একটাই। বাকি সব ছাপিয়ে সাব্বিরের সেঞ্চুরি নিয়ে তাই আলোচনা হওয়ারই কথা। কিন্তু সেঞ্চুরির চেয়েও যে বেশি আলোড়ন তুলেছে তার উদযাপন! এক হাতে ব্যাট আর আরেক হাতে বকবক করার ভঙ্গি দেখিয়ে সাব্বির কী বলতে চেয়েছেন, সেটি বুঝতে কোনো সমস্যা হয়নি। তবে সেটির অবশ্য ভিন্ন ভিন্ন অর্থও করা যায়। একটি অর্থ হতে পারে, ‘আমি যা বলবার তা ব্যাট দিয়েই বলব।’ অথবা ‘অনেক তো বকবক করেছ, দেখো ব্যাট দিয়েই তার কেমন জবাব দিলাম।’ প্রথম সম্ভাবনাটা আসলে বলার জন্যই বলা। যা বলবার ব্যাট দিয়েই তা বলার সিদ্ধান্ত এভাবে প্রকাশ্যে ঘোষণা করার কিছু নেই।

সাব্বির আসলে ব্যাট দিয়ে দেওয়া জবাবটাকে যথেষ্ট মনে না করে সমালোচকদের উদ্দেশে বাড়তি কিছু তীরই ছুড়ে দিতে চেয়েছেন। শৃঙ্খলাভঙ্গের কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ থাকার সময়টা শেষ হওয়ার আগেই সাব্বিরকে দলে ফেরানো নিয়ে সমালোচনাটা অযৌক্তিক কিছু ছিল না। তারপরও তাঁকে ফেরানো হয়েছে, সাত নম্বরে তাঁর কোনো বিকল্প খুঁজে না পাওয়ায়। শাস্তি ভোগ শেষ না করেই তাঁর দলে ফেরায় অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার অবশ্যই বড় ভূমিকা ছিল। সাব্বিরের সেঞ্চুরিতে মাশরাফিরই তাই সবচেয়ে বেশি খুশি হওয়ার কথা। সেটি অবশ্যই হয়েছেন। কিন্তু উৎযাপন করতে গিয়ে সাব্বিবের পাল্টা জবাব দেওয়াটা তাঁর একদমই পছন্দ হয়নি। আউট হয়ে ড্রেসিংরুমে ফেরার পর সাব্বিরকে নাকি পরিষ্কারভাবে সেটি জানিয়েও দিয়েছেন। আসন্ন বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড় প্রস্তুতি নিউজিল্যান্ড সিরিজকে ধরা হলেও প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হয়েছে টিম বাংলাদেশ।

কিন্তু ব্যক্তিগত প্রস্তুতি সেরেছেন বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার। তার মধ্যে সাব্বির রহমানের নাম সবার উপরে। মিডল অর্ডারের দায়িত্ব কতটা নিতে পারবেন তার ’ট্রেলার’ মিলেছে দ্বিতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে। কদিন বাদে আয়ারল্যান্ডে ট্রাই-ন্যাশন সিরিজ আছে। নিজেকে ঝালিয়ে নেয়ার আরোও একটি সুযোগ পাবেন মিডল অর্ডারের এই হার্ড হিটার। বিশ্বকাপ শুরুর আগে বাংলাদেশ যতগুলো ম্যাচ খেলবে তার পুরোটা জুড়েই থাকবে বিশ্বকাপ পরিকল্পনা। কন্ডিশন অনুয়ায়ী খেলোয়াড় নির্বাচন করতে হয়তো অনেক ক্রিকেটারকেই পরখ করে দেখবেন টিম ম্যানেজমেন্ট। কিন্তু সাব্বির যে এরইমধ্যে শতভাগ নম্বর পেয়ে উত্তীর্ন হয়ে আছেন সে কথা বলাই যায়। সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্ন নিয়ে ইংল্যান্ড যাওয়া বাংলাদেশের স্বপ্ন কতটা চওড়া করতে পারেন সেটাই দেখা অপেক্ষা।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker