খেলাহোমপেজ স্লাইড ছবি

ফুটবলে যত নতুন নিয়ম

মঞ্জুর দেওয়ান: জন্মসূত্রে মানুষ নতুনের পূজারী। পুরাতন জিনিসকে নতুন করে চাওয়া মানুষের অভ্যাসও বটে! সবকিছুকে নতুন মোড়কে পাবার এক বিরল প্রয়াস চলে মানব হৃদয়ে। বাদ যায়না খেলার জগতেও। পৃথিবীতে এখন পর্যন্ত যতো খেলার উৎপত্তি হয়েছে এর বেশিরভাগ খেলারই নির্দিষ্ট সময় ও নিয়মে পরিবর্তন এসেছে। দুদিন আগে আর পরে নতুন করে নিয়মের হালনাগাদ হয়েছে। সময়ের স্রোতে ধরণ পাল্টেছে খেলারও। এই যেমন ক্রিকেটের কথাই ধরুন, টেস্ট ক্রিকেট দিয়ে শুরু হওয়া সাদা পোশাকের ক্রিকেট আজ ছোট হতে হতে কোথায় এসে দাঁড়িয়েছে! ৫ দিনের খেলার পাশাপাশি এখন অর্ধদিনের টি টোয়েন্টিও হচ্ছে। পাড়া মহল্লার খেলায় এখন ছয় ওভারের খেলাও চলে। প্রযুক্তির কল্যাণে নতুন নতুন যন্ত্রের সংযোজনও কম হয়নি। এবার সেরকমই পথে হাঁটতে চলেছে পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা ফুটবল। আরোও বেশি সময় সাপেক্ষ ও নিরপেক্ষ করার লক্ষ্যে ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা খেলার ফরম্যাটে পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে।

সম্প্রতি স্কটল্যান্ডের এডিনবরায় আন্তর্জাতিক ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন বোর্ডের বার্ষিক সাধারণ সভা শেষে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আগামী ১ জুন থেকেই সব ধরনের ধরোয়া ও আন্তর্জাতিক ফুটবল ম্যাচে নতুন এ নিয়ম কার্যকর হবে বলে সিদ্ধান্ত হয় এ সভায়। ১৮৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া আইএফএবি ফুটবল ম্যাচের আইন ও নিয়ম-সংক্রান্ত ব্যাপারগুলো সুপারিশ করে থাকে ফিফাকে। ফিফাও তা অনুমোদন করে থাকে। এই সভায় সভাপতিত্ব করেন স্কটিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (এসএফএ), অ্যালান ম্যাক্রের সভাপতি এবং ফিফা এবং ইংল্যান্ড, ওয়েলস এবং উত্তর আয়ারল্যান্ডের ফুটবল সংস্থাগুলির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। এডিনবরায় অনুষ্ঠিত সভাটিতে নতুন করে চারটি নিয়ম সংযোজন করা হয়েছে।

প্রথম নিয়ম: ফিফার বার্ষিক সভায় যে চারটি পরিবর্তন অনুমোদন পায় তার একটি হলো ফুটবলার পরিবর্তন নিয়ে। অনেক সময়ই দেখা যায় ম্যাচের শেষ দিকে খেলোয়াড় বদল করতে দেখা যায়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে জিততে থাকা দল ইচ্ছাকৃতভাবে সময় নষ্টের জন্য এই কাজটি করে থাকে। মাঠ থেকে বেরিয়ে যাওয়া ফুটবলারের সেন্টার সার্কেলে আসতে অনেকটা সময় ব্যয় হতো। এই সময় ব্যয় হওয়া থেকে বেরিয়ে আসতে নতুন নিয়ম করা হয়েছে। নতুন নিয়মে সবচেয়ে কাছের টাচলাইন থেকেই ফুটবলারকে মাঠ ছাড়তে হবে।

দ্বিতীয় নিয়ম: সাধারণত ফ্রি-কিক নেয়ার সময় দু’দলের ফুটবলাররা মানবদেয়াল তৈরি করায় হুড়োহুড়ি করেন। কার আগে কে দাঁড়াবে এ নিয়ে এক প্রতিযোগিতার সৃষ্টি হয়ে যায়। গোলবারের সামনে দাঁড়ানো নিয়ে তো অনেক সময় হাতাহাতি পর্যায়েও চলে যায়। সেই সমস্যা সমাধানে নতুন নিয়ম এনেছে ফিফা। এখন থেকে অ্যাটাকিং দলের কেউ মানবদেয়াল তৈরি করতে পারবেন না। শুধু প্রতিপক্ষের ফুটবলাররাই সেখানে দাঁড়াতে পারবেন।

তৃতীয় নিয়ম: অনিচ্ছাকৃতভাবে বল লেগে গোলে ঢুকলে এখন আর গোল বলে গণ্য হবেনা। অনিচ্ছাকৃত স্পর্শে হওয়া গোল বাতিল করার ক্ষমতা দেয়া হয়েছে রেফারিকে। এখন থেকে হ্যান্ডবল মানেই ফাউল বলে গণ্য হবে। এমনকি গোলে পাস বাড়ানোর সময়েও যদি অনিচ্ছাকৃত হ্যান্ডবল হয়, তা হলেও গোল বাতিল হবে।

চতুর্থ নিয়ম: এই নিয়মটি দেখে কোচদের মুখে বিরক্তির রেখা দেখা দিতে পারে। কোচদের আগে কার্ড দেখানোর নিয়ম থাকলেও পরে কার্ড না দেখিয়ে তাদের ডাগআউট ছেড়ে যেতে বলা হত। এবার আবার কোচেদের জন্য কার্ডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। হলুদ কার্ড ও লাল কার্ড ফিরছে কোচদের ব্যাপারেও। আইএফএবির পর্যবেক্ষণে আরও একটি নিয়ম বদলানোর কথা ছিল। পেনাল্টি কিক গোলরক্ষক ঠেকানোর পর ফিরতি বল থেকে তা থেকে অন্য কোনো খেলোয়াড় গোল করতে পারেন। গেল নভেম্বরে এই নিয়ম বদলানোর কথা উঠেছিল সংস্থাটির বৈঠকে। তবে স্কটল্যান্ডের এডিনবরায় সর্বশেষ বার্ষিক সভায় সেটা বাতিল করে দেওয়া হয়।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker