খেলাহোমপেজ স্লাইড ছবি

ক্রীড়া জগতে যত স্মরণীয় ঘটনা

এস.কে. শাওন: দরজায় কড়া নাড়ছে ২০২০ সাল। আর ২০১৯ সালের বিদায় নেওয়া এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। এরই সাথে ২০১৯ স্পোর্টস ক্যালেন্ডারের মেয়াদও ফুরিয়ে যাচ্ছে! আপনি যদি খেলাপাগল দর্শক হয়ে থাকেন, তাহলে হয়তো ২০১৯ সালের অধিকাংশ স্পোর্টস ইভেন্টে চোখ রেখেছেন। কিন্তু চলতি বছরের স্পোর্টস ইভেন্টের স্মরণীয় মূহুর্তগুলো মনে আছে তো! চলুন জেনে নেয়া যাক ২০১৯ সালের ক্রীড়াজগতের কয়েকটি স্মরণীয় ঘটনা।

ক্রিকেট: এ বছর স্পোর্টস ক্যালেন্ডারের ‘মেগা ইভেন্ট ‘ছিল ক্রিকেট বিশ্বকাপ। আর এই বিশ্বকাপের সব ম্যাচকেই যেন ছাপিয়ে গিয়েছিল ফাইনাল ম্যাচটি। কারণ ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার এই ম্যাচটি সুপার ওভারে গড়ায়।মজার ব্যাপার হলো সুপার ওভারেও দু’দল সমান স্কোর করে। তবে আইসিসির নিয়মানুযায়ী বাউন্ডারি বেশি থাকায় ইংল্যান্ড ম্যাচটিতে জয় পায়। ক্রিকেট ইতিহাসের পাতায় ধুলো ঝাড়লে এমন ম্যাচ খুঁজে পাওয়া যাবে না। সেজন্য বলা যায়,স্বরণীয় এই ম্যাচটির কথা ক্রিকেট প্রেমীরা মনে রাখবে যুগের পর যুগ!

আবিদ আলী। পাকিস্তানি ওপেনার। চলতি বছরের মার্চে অজিদের বিপক্ষে অভিষেক তাঁর। সে ম্যাচেই সেঞ্চুরী পেয়ে বসেন প্রতিভাবান এই ব্যাটসম্যান। চলতি মাসে রাওয়ালপিন্ডিতে শ্রীলংকার বিরুদ্ধে অভিষেক টেস্টেও সেঞ্চুরী করে বসেন তিনি! এর আগে পৃথিবীর কোন ব্যাটসম্যান টেস্ট ও ওয়ানডে উভয় ফরম্যাটে শতক হাঁকাতে পারেনি।

ফুটবল: লিওনেল মেসি। ফুটবল যার সংস্পর্শে এসে হয়েছে ধন্য! চলতি বছর ক্লাব ফুটবলে ব্যক্তিগত নৈপুণ্যে উজ্জ্বল ছিলেন বার্সা অধিনায়ক। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে করেন সর্বোচ্চ ১২ গোল। লা-লিগায় সর্বোচ্চ ৩৬ গোল করে জিতে নেন পিচিচি ট্রফি। তবে সবকিছুকে ছাপিয়ে গেছে মেসির ফিফা ব্যালন ডি’ অর পাওয়ার গল্পটা। কারণ রেকর্ড ষষ্ঠবারের মতো এই পুরস্কারটি জিতেন তিনি। এর আগে সমান পাঁচবার করে এ পুরস্কার জয়ের রেকর্ড ছিল ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও লিওনেল মেসির।

টেনিস: ২০১৯ অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন হিসেবে খেলতে এসেছিলেন ডেনমার্ক টেনিস তারকা ক্যারোলিন ওজনিয়াকি। তবে এ বছর তিনি তাঁর শিরোপা ধরে রাখতে পারেননি। চলতি বছর অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের নারী এককের শিরোপা জিতেছেন জাপানিজ টেনিস তারকা নাওমি ওসাকা। সেই সুবাদে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন পেল নতুন রাণী! এমনকি ক্যারিয়ারের প্রথমবারই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে উঠে শিরোপা জেতা একমাত্র টেনিসার নাওমি ওসাকা।

সাঁতার: চলতি বছর সেপ্টেম্বর মাসের ঘটনা। ৩৭ বছর বয়সী সাঁতারু স্যারাহ টমাস। ক্যান্সার থেকে বেঁচে যাওয়া এই নারী কোন প্রকার বিরতি ছাড়াই সাঁতার কেঁটে ইংলিশ চ্যানেল চারবার পাড়ি দিয়েছেন। আর এমন ঘটনা এটিই প্রথম। টানা ৫৪ ঘন্টারও বেশি সময় ধরে সাঁতার কেঁটে তিনি এই রেকর্ড গড়েন। তাছাড়াও টমাসের এই সাঁতার ৮০ মাইল দীর্ঘ হওয়ার কথা থাকলেও তীব্র স্রোত থাকায় তাকে ১৩০ মাইল সাঁতরাতে হয়েছে। তাঁর এই ইংলিশ চ্যানেল জয় করার ঘটনা তিনি ক্যান্সারের সাথে লড়াই করে বেঁচে থাকা মানুষদের উদ্দেশ্যে।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker