ক্রিকেটখেলাট্রেন্ডিং খবর

বিপিএল সমাচার

এস.কে.শাওন: চলমান বঙ্গবন্ধু বিপিএলে এখন পর্যন্ত ১৬টি ম্যাচ মাঠে গড়িয়েছে। এবারের আসরে পারফরম্যান্সের বিচারে বোলারদের চেয়ে ব্যাটসম্যানরাই এগিয়ে রয়েছেন। অর্থাৎ বলা চলে রান বন্যায় ভাসছে বিপিএল! আর বোলারদের ক্ষেত্রে বলা যায়, প্রত্যাশা অনুযায়ী প্রাপ্তির হিসাবটা মিলছে না! চলুন জেনে নেই বঙ্গবন্ধু বিপিএলে কে বা কোন দল এগিয়ে রয়েছে।

টি-২০ ক্রিকেট মানেই চার ছক্কার ধুন্ধুমার লড়াই। বিপিএলে চট্টগ্রাম পর্ব যেন সেই লড়াইটা দেখছে দর্শকরা। বিশেষ করে কয়েকটি ম্যাচে রান উঠেছে দুশোরও অধিক। যারা এ ম্যাচগুলো মাঠে বসে দেখেছেন তাঁদের টিকিটের টাকা নিশ্চয়ই উশুল হয়ে গেছে। বিপিএলে এই মূহুর্তে সর্বোচ্চ রানের খাতায় সবার আগে নাম চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের চ্যাডউইক ওয়ালটনের। ৭ ইনিংসে তাঁর সংগ্রহ ২৪০ রান। নামের পাশে রয়েছে ২টি ফিফটি। 

ওয়ালটনের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৭১* রান। ৭ ইনিংসে ২৩৫ রান করে দ্বিতীয় অবস্থানে আছেন তাঁরই সতীর্থ ইমরুল কায়েস। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের এ ওপেনারোরও ২টি অর্ধশতক রয়েছে। মাত্র ৪ ইনিংসে ২২৪ রান করে তৃতীয় স্থানে আছেন খুলনা টাইগার্সের রাইলি রুশো। এবারের আসরে এখন পর্যন্ত সেঞ্চুরী হয়েছে একটি। শতকের মালিক সিলেট থান্ডারের আন্দ্রে ফ্লেচার। ৫৭ বলে ১০৩* রানের ইনিংসটি ১১ চার ও ৫ ছক্কায় সাজানো। বোলিংয়ে সর্বোচ্চ উইকেট চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের মেহেদী হাসান রানার। তিনি পাঁচ ইনিংসে ৬.৪৭ ইকোনমিতে ১৩টি উইকেট নিয়েছেন।

দ্বিতীয় অবস্থানে আছেন তাঁরই সতীর্থ রুবেল হোসেন। জাতীয় দলের এই বোলার ৮.০৪ ইকোনমিতে ৬ ইনিংসে শিকার করেছেন ৮টি উইকেট। সবচেয়ে মজার ব্যাপার কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের সৌম্য সরকার দলের হয়ে নিয়মিত বোলিং করছেন। এমনকি উইকেটও পাচ্ছেন। ৪ ইনিংসে ৭ উইকেট নিয়ে তিনি আছেন তৃতীয় স্থানে। আর এই আসরে এখন পর্যন্ত সেরা বোলিং ফিগার ঢাকা প্লাটুনের থিসারা পেরেরার। কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে ম্যাচটিতে তিনি ৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৩০ রানের খরচায় নিয়েছিলেন ৫টি মূল্যবান উইকেট। যা নাকি ঢাকাকে ম্যাচ জেতাতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে দলীয় সর্বোচ্চ রান চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের। কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে ম্যাচটিতে ওরা ৪ উইকেটে ২৩৮রান সংগ্রহ করে। আর পুরো এক ম্যাচে সর্বোচ্চ ৪৬০ রান চট্টগ্রাম ও কুমিল্লার এই ম্যাচটিতেই। কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স এই ম্যাচটিতে ৭ উইকেটে ২২২ রান সংগ্রহ করে। ৭ ম্যাচে ৫ জয় নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

৪ ম্যাচে ৩ জয় নিয়ে পয়েন্ট তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে মুশফিকের খুলনা টাইগার্স। রাজশাহী রয়্যালস আছে তৃতীয় স্থানে। ৩ ম্যাচে তাঁদের জয় ২টি। কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স ও ঢাকা প্লাটুনের পয়েন্ট সমান চার। তবে রানরেটে এগিয়ে থাকায় কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স আছে ৪ নাম্বারে। আর ৫ ম্যাচে সমান ১ টি করে জয়ে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে আছে সিলেট থান্ডার ও রংপুর রেঞ্জার্স।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker