টেক গেজেটসপ্রযুক্তি

Apple iOS 12.0 এর যত চমক!

আবদুল্লাহ আল মুনতাসির: ১ ট্রিলিয়ন ডলার Net Worth পার করে যাওয়া Apple Inc. ২০০৭ সাল এর ২৯ জুনে তাদের iOS এর যাত্রা শুরু করে । এটি মোবাইল ডিভাইস এর জন্য Android এর পরে সর্বাধিক ব্যবহৃত অপারেটিং সিস্টেম । Apple তাদের আইফোন, আইপ্যাড এবং আইপড এ আই অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে থাকে। তারা তাদের এই iOS এর সর্বশেষ সংস্করণ iOS 12.0 বাজারে নিয়ে আসে ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে এবং এর সাথে আসে গ্রাহক এর সুবিধা অনুযায়ী নতুন নতুন অনেক গুলো ফিচার যা আমি আজ আলোচনা করবো ।

Availability 
ব্যবহার এর পূর্ব শর্ত হল সহজলভ্যতা । যদি আপনি iPhone 5s বা তার পরবর্তীতে রিলিজ পাওয়া যে কোন আইফোন এর মালিক হয়ে থাকেন তাহলে অত্যন্ত আনন্দের সাথে জানানো যাচ্ছে যে আপনি এই iOS 12.0 ডাউনলোড করে আপনার ফোন টি আপগ্রেড করে নিতে পারেন। iOS এর এই ভার্সন টি আপনার পুরানো iPhone কে এনে দিবে এক নতুন প্রাণ।

Performance 
এই সফটওয়্যার আপগ্রেড টি আপনার ডিভাইস এর পারফরমান্স এ অনেক প্রভাব ফেলবে। পূর্বে অনেকের এ একটি অভিযোগ ছিল যে নতুন আইফোন বাজারে আসলে নতুন iOS পুরনো আইফোন গুলো তে ঠিকমত পারফর্ম করতে পারেনা। যার ফলে আগের ডিভাইস গুলো স্লো হয়ে যায়। কিন্তু আপনি জেনে খুশি হবেন যে এবার আপনার ফোন এর পারফরমান্স কমবে না বরং আগের চেয়ে অনেক ভাল কাজ করবে। এই iOS টি সব প্রয়োজনীয় অ্যাপ এর সাথে খুব সুন্দর ভাবে অপটিমাইজ করা হয়েছে যার কারনে পারফরমান্স পার্থক্য আপনার চোখে পরবে।

Features 
iOS এর এই নতুন সংস্করণ এ ছোট বড় অনেক নতুন ফিচার ই আছে যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য গুলো আমরা তুলে ধরার চেষ্টা করছি।

১। গ্রুপ নোটিফিকেশানঃ পারফরমান্স এর পরে সবচেয়ে বড় পরিবর্তন দেখা যায় নোটিফিকেশান বার এ। এখন আর আগের মত হাজারো নোটিফিকেশান এর ভিড়ে আপনার প্রয়োজনীয় ইমেইল এর নোটিফিকেশান টি হারিয়ে যাবেনা। এখন অ্যাপ ভিত্তিক নোটিফিকেশান গ্রুপ তৈরি হয়ে যাবে অটমাটিকালি। আপনার সোশাল মিডিয়া নোটিফিকেশান গুলা একটা ট্যাব এ একসাথে থাকবে, আপনার দরকারি ইমেইল গুলো আরেকটি ট্যাব এ। আপনি চাইলে আপনার পছন্দ মত কাস্টমাইজ ও করে নিতে পারবেন কন কন নোটিফিকেশান সাউন্ড করবে, কোন গুলো নিঃশব্দে চলে আসবে ফোন এ।
২। ব্যাটারি ইনফর্মেশনঃ গত ২৪ ঘণ্টায় কোন অ্যাপ কত টুকু ব্যাটারি ব্যবহার করছে থেকে শুরু করে আপনি শেষ ১০ দিন, কোন দিন কত টুকু ব্যাটারি ব্যবহার করেছেন জাতীয় সব ইনফর্মেশন এ পাওয়া যাবে এখন নতুন iOS এ।
৩। অ্যাপ কন্ট্রোলঃ কোন কোন অ্যাপ এর পেছনে আপনি কত টুকু সময় অতিবাহিত করছেন তা খুব সহজেই এখন জানতে পারবেন আপনি। এমনকি নিজের জন্য নিজেই টাইম লিমিট সেট করে নিতে পারবেন যেন সোশাল মিডিয়া তে আপনার সময় অপচয় না হয়। শুধু অ্যাপ ই না, আপনি ফোন কত বার চেক করেছেন সেটাও জানা যাবে এখন থেকে।
৪। প্যেরেন্টাল কন্ট্রোলঃ নতুন iOS এ আপনি কন্ট্রোল করতে পারবেন আপনার বাচ্চা রা কি কি অ্যাপ ব্যাবহার করতে পারবে, কোন কোন ওয়েবসাইট ব্যাবহার করতে পারবেনা। আপনি চাইলেই এগুলো সব সেটিংস থেকে সেট করে নিতে পারেন নিজের সুবিধা মতো ।
৫। Measure app: 12.0 এর একমাত্র নতুন অ্যাপ এটি। অগ্মেন্টেড রিয়ালিটি এর ব্যবহার করে অ্যাপ টি আপনাকে কম বেশি সব কিছুর সাইজ মাপতে সহায়তা করবে।
৬। Animoji / Memoji: পুরনো animoji এর ক্যারেক্টার গুলোর সাথে এরও নতুন ৪টি ক্যারেক্টার যুক্ত হয়েছে এই iOS এ। এই নতুন animoji তে যোগ করা হয়েছে wink+tongue detection. Memoji নাম এর নতুন ফিচার যোগ হয়েছে যার মাধ্যমে আপনি আপনার নিজের পছন্দ মতো একটি ক্যারেক্টার বানিয়ে নিতে পারবেন ও খুব নিখুঁত ভাবে এডিট করে নিতে পারবেন।
৭। Siri শর্টকাটঃ নতুন iOS এ আপনি কাস্টমাইজড কমান্ডস যোগ করতে পারবেন Siri এর জন্য। যার সাহায্যে Siri আপনার সেট করা কাজ গুলো করতে সক্ষম।

ছোট বড় অনেক গুলো অ্যাপ আপগ্রেড নিয়েই Apple তার iOS 12.0 সফটওয়্যার আপগ্রেড টি বাজারে নিয়ে আসে। আপনার ডিভাইস এর পারফরমান্স এ উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন এনে দিবে Apple iOS এর এই সর্বশেষ সংস্করণ টি।

 

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker