প্রযুক্তিহোমপেজ স্লাইড ছবি

OnePlus 6T: দা ফ্ল্যাগশিপ কিলার!

আবদুল্লাহ আল মুনতাসির : ফ্ল্যাগশিপ কিলার খ্যাত “ওয়ান প্লাস” ব্রান্ড টি বরাবর ই সাধারণ মানুষের প্রশংসা কুঁড়িয়ে থাকে তাদের তুলনামূলক কম দামে হাই স্পেসিফিকেশনের মোবাইল ফোন বানানোর ক্ষমতার জন্য। এবারও তার কোন ব্যতিক্রম ঘটেনি। গেল অক্টোবর ২০১৮ এর ২৯ তারিখ তারা তাদের নতুন ফোন “ওয়ান প্লাস ৬টি” বাজারে আনার ঘোষণা দেয়। সবকিছু ঠিক মত গেলে নভেম্বর এর ৬ তারিখ থেকে বিভিন্ন শো রুম থেকে কিনতে পাওয়া যাবে ফোনটি।

আমার মত অনেকেই আছেন যারা একটি কথায় বিশ্বাসী। মিনিমাম কস্ট, ম্যাক্সিমাম বেনিফিট। এবং এটাই ওয়ান প্লাস ব্রান্ডের বৈশিষ্ট্য। আপনার কষ্টার্জিত টাকা দিয়ে আপনি একটা নতুন স্মার্টফোন কিনতে চান, কিন্তু বাজেট কিছুটা কম হওয়ায় কিনতে পারছেন না ভাল ফোন গুলো? এমনই সমস্যার সমাধান হিসেবে ওয়ান প্লাস ব্রান্ডটির আবির্ভাব যারা বরাবর ই চেষ্টা করে আপনাদেরকে আপনাদের বাজেটে সর্বচ্চ ফোনটি উপহার দিতে। যেখানে তাদের কোম্পানির ট্যাগ লাইনই “নেভার সেটেল” সেখানে আপনি তাদের কাছে ভাল ফোন আশা করতেই পারেন।

তাদের “ওয়ান প্লাস ৬” এর নতুন ভার্শন হিসেবে আসা এই “ওয়ান প্লাস ৬টি” মডেলটিতে আগের অনেকগুলো বৈশিষ্ট্যের দেখা পাওয়া গেলেও থাকছে নতুন অনেক পরিবর্তন। আসুন দেখে নেওয়া যাক কি থাকছে আমাদের এবারের ফ্ল্যাগশিপ কিলার এ।

Display

ডিসপ্লে হিসেবে এই ফোনে থাকছে ২৩৪০x১০৮০ রেজোলিউশান এর অপটিক এমোলেড টাচস্ক্রিন। বাজারের অন্যান্য ১০৮০পি ডিসপ্লের চেয়ে আই ডিভাইস এর পারফরমেন্স তুলনামূলক ভাবে অনেক ভাল। বলা যায় এই বাজেটে এর চেয়ে ভাল ১০৮০ ডিসপ্লে প্যানেল পাওয়া এক রকম অসম্ভব। ফুল এইচডি এই ডিসপ্লেটি আগের মডেলের ৬.৩ থেকে উন্নীত করে ৬.৪ ইঞ্চি করা হয়েছে। আগের ফোনের নচ কে আরও ছোট করে টিয়ারড্রপ শেপ দেওয়া হয়েছে এবং নিচের দিকের বেযেল ও আরও ছোট করা হয়েছে।

Build

ডুয়াল সিম এর সুবিধা সম্পন্ন ওয়ান প্লাস ৬টি এর ফ্রন্ট এবং ব্যাক দুই পাশেই থাকছে গ্লাস ও চারিদিকে থাকছে মেটাল বডি। ডুয়াল সিম থাকায়, থাকছেনা এক্সটারনাল স্টোরেজ এর ব্যবস্থা। কিন্তু ১২৮ গিগাবাইট ও ২৫৬ গিগাবাইট ইন্টারনাল স্টোরেজ, এই দুইটি ভার্শন থাকায় মনে হয়না এক্সটারনাল স্টোরেজের অভাব বুঝতে পারবেন। থাকছে আগের মতই ৬/৮ জিবি র‍্যাম, এডরিনো ৬৩০ জিপিইউ ও স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ অক্টা কোর প্রসেসর। এনড্রয়েড ৯.০ পাই এর উপর চলবে তাদের নিজস্ব অক্সিজেন ওএস এর স্কিন। থাকছে ইউএসবি টাইপ সি এবং ডাউনওয়ার্ড ফেসিং স্পিকার। ফিঙ্গারপ্রিন্ট রিডার কে পেছন থেকে সামনে এনে ডিসপ্লে এর নিচে রাখা হয়েছে যা এই ফোনের অন্যতম আকর্ষণ। কিন্তু এক মিনিট এর নীরবতা পালন করতে হবে আমাদের কারণ হেডফোন জ্যাক কে নির্মম ভাবে হত্যা করা হয়েছে এ ফোনে। ওয়েলকাম টু ২০১৮।

Camera

ক্যামেরা নিয়ে তেমন কিছু বলার নেই কারণ সনি এর সেন্সর বরাবর ই ভালো। রিয়ার এ থাকছে ১৬ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ও ২০ মেগাপিক্সেলের সেকেন্ডারি ক্যামেরা যা এই বাজেটের ফোন হিসেবে অসাধারণ পারফরমান্স দিবে। ফ্রন্ট এ থাকছে ১৬ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। ৪কে রেজোলিউশান পর্যন্ত ভিডিও ধারণ এর পাশাপাশি থাকছে ৭২০পি ৪৮০এফপিএস এর সুপার স্লোমোশন ভিডিও ধারণের সুবিধা।

Battery

ব্যাটারি লাইফ নিয়ে নিশ্চিন্তে থাকতে পারেন যেহেতু আগের ৩৩০০ mAh ব্যাটারি এর পরিবর্তে ব্যাবহার করা হয়েছে ৩৭০০ mAh এর ব্যাটারি যা ১০৮০পি ডিসপ্লে এর সাথে দিবে আপনাকে অসাধারণ ব্যাটারি অভিজ্ঞতা। আর যদি চার্জ কমেই যায় তাহলে থাকছে সুপার ফাস্ট ড্যাশ চারজিং এর সুবিধা। যদিও ওয়ারলেস চারজিং এর সুবিধা রাখা হয়নি তবে এই দামে ওয়ারলেস চার্জিং দিচ্ছেই কয়টি কোম্পানি?

Price

ফোনটি পাওয়া যাবে মিরর ব্ল্যাক ও মিডনাইট ব্ল্যাক এই দুটি রঙ এ। ৬জিবি রাম, ১২৮জিবি স্টোরেজের দাম ৫৪৯ মার্কিন ডলার; ৮জিবি রাম, ১২৮জিবি স্টোরেজের দাম ৫৭৯ মার্কিন ডলার এবং ৮জিবি রাম, ২৫৬জিবি স্টোরেজের দাম ৬২৯ মার্কিন ডলার করে রাখা হয়েছে।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker