প্রযুক্তিহোমপেজ স্লাইড ছবি

অ্যাপল এর শীর্ষ পাঁচ

আবদুল্লাহ আল মুনতাসির: মোবাইল ফোন আমাদের অপরিহার্য একটি বস্তুতে পরিণত হয়েছে সে তাও অনেক দিন। ফোন ছাড়া কোথাও যাওয়া এখন চিন্তাই করা যায়না। সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে শুধু মাত্র আলাপনেই ফোনের কাজ সীমিত থাকেনি। মানুষের বিভিন্ন চাওয়ার সাথে তাল মিলাতে গিয়ে ফোন হয়েছে স্মার্ট এবং স্মার্টফোনে যোগ হয়েছে অগণিত অ্যাপ্লিকেশান। এই অগণিত অ্যাপ্লিকেশান থেকে হাজার হাজার লাখ লাখ মানুষ তার পছন্দের অ্যাপ গুলো বেছে নেয়। একেক অ্যাপ এর কাজ একেক রকম। কিছু অ্যাপ কাজের জন্য ব্যবহার করে মানুষ তো কিছু অ্যাপ চিত্ত বিনোদন এর জন্য। আপনার হাতের সময় শেষ হয়ে যায় কিন্তু অ্যাপ শেষ হয়না ফোনের।

ফোনের জগতে আইফোন এর আধিপত্য সম্পর্কে নতুন করে মানুষকে জানান দেওয়ার কিছু নেই। বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশানের সমাহার নিয়ে তাদের উৎকৃষ্ট অ্যাপ স্টোর এ সব রকম অ্যাপ ই পাওয়া যায়। সম্প্রতি অ্যাপল তাদের ২০১৮ সালের সর্বাধিক ডাউনলোড হওয়া অ্যাপ এর লিস্ট প্রকাশ করে যা আমরা আজকে তুলে ধরার চেষ্টা করছি।

১।ইউটিউবঃ গুগল এর ভিডিও শেয়ারিং সার্ভিস ইউটিউব। যে কেউ চাইলেই নিজেকে ভিডিও করে এখানে আপলোড করতে পারেন, শুধু দরকার একটি গুগল অ্যাকাউন্ট। লাখ লাখ মানুষের ভিডিও নিয়ে সমৃদ্ধ তাদের ওয়েবসাইট ইউটিউব ডট কম। শুধু যে ভিডিও আপলোড ও শেয়ার ই করতে পারবেন তা নয়। ভিডিও ভিউ এর উপর নির্ভর করে ইউটিউব থেকে আয়ও করা সম্ভব। বাইরের দেশে হাজারো লাখো মানুষ ভিডিও আপলোড করে স্বাবলম্বী হয়ে উঠছে। আমাদের দেশেও ধীরে ধীরে ইউটিউব ব্যবহার করে অনেকে স্বাবলম্বী হয়ে উঠছেন। ২০১৮ তে এই ইউটিউব অ্যাপটিই সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হয়েছে বলে অ্যাপল জানায়।

২। ইন্সটাগ্রামঃ ছবি তুলে আপলোড করা থেকে শুরু। তবে এখন ভিডিও করে, তার সাথে বিভিন্ন এনিমেশন যোগ করে/এডিট করে আপলোড করার সুযোগ রয়েছে ইন্সটাগ্রামে। ফেসবুক কোম্পানির অধীনে থাকা ইন্সটাগ্রাম ডাউনলোডের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে অ্যাপ স্টোরে।

৩। স্ন্যাপচ্যাটঃ অ্যাপ স্টোরে তৃতীয় স্থান অধিকার করে আছে মাল্টিমিডিয়া মেসেজিং অ্যাপ স্ন্যাপচ্যাট। বন্ধু বান্ধবদের সাথে ব্যক্তিগত ছবি ও ভিডিও আদান প্রদানের জন্য ব্যাপক ভাবে প্রচলিত এই অ্যাপটি   বাংলাদেশ উঠতি বয়সী ছেলেমেয়েদেরকেই বেশিরভাগ ব্যবহার করতে দেখা যায়। আমাদের দেশে এতটা প্রচলিত না হলেও ইউরোপ আমেরিকার দিকে এর জনপ্রিয়তা অনেক।

৪। মেসেঞ্জারঃ ফেসবুকের অধীনস্ত মেসেজিং অ্যাপ মেসেঞ্জার ডাউনলোডের দিক থেকে এবার রয়েছে চতুর্থ স্থানে। শুরুতে ফেসবুকের ভিতরেই ফেসবুক চ্যাট হিসেবে থাকলেও পরবর্তীতে আলাদা একটি সত্তা হিসেবে এবং আলাদা অ্যাপ হিসেবে মেসেঞ্জারকে আলাদা করে দেওয়া হয়।

৫। ফেসবুকঃ ফেসবুক সম্পর্কে আলাদা করে জানানোর কিছুই নেই, আমরা সবাই ই ফেইসবুক এর সাথে পরিচিত। গত বছরের এক নম্বরে থাকা অ্যাপ বিটমোজি অ্যাপ কে এবছর ষষ্ঠ স্থানে পাঠিয়ে প্রথম পাঁচ এ জায়গা করে নেয় ফেসবুক।

 

এই অ্যাপ গুলো ছাড়াও, মূল্য পরিশোধ করে কিনতে হয় এমন অ্যাপ এর মধ্যে এক নম্বরে রয়েছে সেলফি এডিটিং অ্যাপ “ফেইস টিউন” ও গেম এর দিক থেকে এক নম্বরে আছে হালের বিখ্যাত ” ফোর্ট নাইট”।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker