প্রযুক্তিহোমপেজ স্লাইড ছবি

দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় পাঁচটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ

আবদুল্লাহ আল মুনতাসির: স্মার্টফোন হাতে নেই এমন মানুষ পাওয়া এখন দুষ্কর। উঠতি বয়সের ছেলেমেয়ে থেকে শুরু করে চাকুরীজীবী মধ্যবয়স্ক পর্যন্ত সবারই প্রয়োজনীয়তায় পরিণত হয়েছে স্মার্টফোন। এমনকি ইট পাথরের শহরে যেখানে খেলার জায়গার কোন অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া দায় সেখানে ছোট শিশুদের খেলার খোরাক ও হয়ে উঠেছে এই স্মার্টফোন। বিভিন্ন রকম গেমস দিয়ে শিশুদের মন ভোলানোর চেষ্টা করছেন বাবা মা রা। একটি স্মার্টফোন আপনার জীবনের অনেক সমস্যাই সমাধান করে দিতে সক্ষম। দৈনন্দিন জীবনযাপনের ক্ষেত্রে অনেক কাজেই আমাদের স্মার্টফোনের প্রয়োজন হয়। এই ধরুন কর্মস্থলে যাওয়ার পথে জরুরি কোন ইমেইল আসলো আপনার কাছে, স্মার্টফোন হাতে থাকলে নিমেষেই পড়ে ফেলে উত্তর দিতে পারবেন। দরকারি ফাইল ফোন থেকে অফিস পাঠিয়ে দিতেও এখন আর অফিসে উপস্থিত থাকার প্রয়োজনীয়তা নেই, আছে গুগল ড্রাইভ/ড্রপ বক্সের মত অনেক ক্লাউড স্টোরেজ সার্ভিস। আর রাস্তা ঘাট চিনে রাখার দিন তো শেষই হয়ে গেছে গুগল ম্যাপ্স এর বদৌলতে।

আজকে আমরা এমনি ৫টি নিত্যপ্রয়োজনীয় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ এর কথা তুলে ধরার চেষ্টা করব যা আপনার জীবনকে করে তুলবে সহজ।

রিদ্মিক (Ridmik) কিবোর্ডঃ আমাদের মাতৃভাষা বাংলা এবং এই বাংলা ভাষা পেতে অনেক কাঠখড় পুড়াতে হয়েছে আমাদের। এমনকি আজ যে লিখা পড়ছেন আপনারা, এটাও বাংলায় লিখা। বাংলা ভাষার মর্যাদার কথা মাথায় রেখে আমরা আজকে রিদ্মিক কিবোর্ড এর কথা সবার প্রথমে বলছি। রিদ্মিক কিবোর্ড অ্যাপটি আপনি গুগল প্লে স্টোরে পেয়ে যাবেন যার সাহায্যে আপনি খুব সহজেই ফোন থেকে বাংলা লিখতে পারবেন। রিদ্মিক কিবোর্ড ডাউনলোড করে চালু করলেই অ্যাপটি কিভাবে ইন্সটল করতে হবে বা কিভাবে ব্যবহার করতে হবে এমন সব তথ্য পেয়ে যাবেন অ্যাপ এর মধ্যেই। বাংলা লিখতে তেমন কোন দক্ষতার প্রয়োজন হবেনা এই অ্যাপটি থাকলে। ইংরেজিতে লিখলে তা স্বয়ংক্রিয় ভাবে বাংলায় পরিণত করতে সক্ষম এই কিবোর্ড।

নটিন (Notin) অ্যাপঃ প্রায়ই দেখা যায় দরকার এর সময় কাগজ কলম হাতের কাছে খুঁজে পাওয়া যায়না। দরকারি ছোটখাটো কথা টুকে রাখার জন্য হাতের কাছে ফোনের অ্যাপ নটিন ই যথেষ্ট। সাধারণত স্মার্টফোনের সাথে যে ছোটখাটো জিনিষ লিখে রাখার অ্যাপ গুলো আসে তাতে লিখে আমরা নিজেরাই ভুলে যাই। এই নটিন অ্যাপটি আপনার লিখা নোটিফিকেশান আকারে আপনার নোটিফিকেশান বার এ রেখে দিবে যা পরবর্তীতে ফোন দেখলে চোখে পড়তে বাধ্য।

গুগল ড্রাইভ (Google Drive) অ্যাপঃ বড় বড় ফাইল বা অনেকগুলো ছবি সাধারণত একসাথে ইমেইলে পাঠানো যায়না। শুধু মাত্র একটি গুগল অ্যাকাউন্ট থাকলেই গুগল ড্রাইভে ১৫ গিগাবাইট পর্যন্ত ফ্রি ক্লাউড স্টোরেজ পাবেন আপনি। গুগল ড্রাইভ অ্যাপটি ব্যবহার করে আপনারা জরুরি যে কোন রকম অফিশিয়াল ফাইল থেকে শুরু করে ছবি, চলচ্চিত্র ইত্যাদি এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় ইন্টারনেটের মাধ্যমে স্থানান্তর করতে পারবেন।

উবার (Uber) অ্যাপঃ বিশ্বের বড় বড় দেশগুলোর মত বাংলাদেশেও উবার ব্যবসা শুরু করেছে। আগের বাস, অটো রিক্সার মত সার্ভিসটি পুরনো না হলেও অল্প সময়ের মধ্যে যথেষ্ট জনপ্রিয়তা কুড়িয়েছে উবার। আপনার অবস্থান ও আপনার গন্তব্য অ্যাপটির মধ্যে সেট করে দিলেই মোটর সাইকেল, গাড়ি থেকে শুরু করে মাইক্রোবাস পর্যন্ত ভাড়া করতে পারবেন খুব সহজেই। খরচ তুলনামূলক বেশী হলেও সাধারণত প্রায়ই ডিস্কাউন্ট বা ছাড় দিয়ে থাকে যার জন্যও খরচ মোটামুটি সাধ্যের কাছাকাছি চলে আসে।

স্টিচ ইট (Stitch It) অ্যাপঃ দরকার অদরকারে প্রায়ই দেখা যায় প্রয়োজনীয় আলাপন এর ছবি ফোনে এ স্ক্রিনশট হিসেবে রাখার প্রয়োজন হয়। অথবা কোন কিছু মোবাইল এ সার্চ করার পর তা স্ক্রিনশট নিয়ে রেখে দেওয়ার প্রয়োজন হয়। কিন্তু পরে এই স্ক্রিনশট গুলো একসাথে করে দেখা অনেক ঝামেলা হয়ে পরে। কয়েকটি স্ক্রিনশট একসাথে যোগ করে এডিট করার জন্য এই অ্যাপটি খুবই কার্যকরী। সাধারণত কয়েকটি স্ক্রিনশট সামঞ্জস্য রেখে একসাথে যোগ করে বা কেটে ছোট করে একটি কথোপকথন এর রূপ দিতেই অ্যাপটি ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

এ ছাড়াও আরও হাজারো অ্যাপ এর সমাহার নিয়ে প্লে স্টোর তো সাজানো আছেই আপনাদের প্রয়োজনীয়তা মিটাতে। আমরা শুধু সেই অ্যাপ গুলোই তুলে ধরার চেষ্টা করেছি যেগুলো সাধারণত আগে থেকেই ফোনে ডাউনলোড করা থাকেনা।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker