ট্রেন্ডিং খবরপ্রযুক্তিহোমপেজ স্লাইড ছবি

মোবাইল ফোনের টেন ইয়ারস চ্যালেঞ্জ

আব্দুল্লাহ আল মুনতাসির: সোশ্যাল মিডিয়ার দিনে মানুষের মনোযোগ আকর্ষণ করার মতো জিনিষের অভাব নেই। একটা দেখতে দেখতেই অন্য আরেকটা নতুন জিনিষের আবির্ভাব ঘটে। তাই সবাই চায় সর্বশেষ ট্রেন্ড এর সাথে চলতে। ট্রেন্ড এমনি একটি জিনিষ যা সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনাকে এনে দিবে খ্যাতি। আর ২০১৯ সালে এসে খ্যাতি কার না চাই বলুন? ট্রেন্ড এর সাথে না চললে তো আপনি “কুল” হতে পারবেন না। সোশ্যাল মিডিয়াতে দাম থাকলো কোথায় আপনার যদি “কুল” আর “জোস” ই হতে না পারলেন? লাইক শেয়ার না পেলে কি চলে বলুন? এই কুল হওয়ার নেশায় কিছুদিন পর পরই নতুন নতুন যে ট্রেন্ড আসে যার মধ্যে একটি হল (#10yearschallenge) টেন ইয়ারস চ্যালেঞ্জ। মূলত এখানে ২০১৯ সালে এসে কোন একজন বা একটি জিনিষ ২০০৯ সালে কেমন কেমন ছিল তার একটি ছবি তুলে ধরা হয়। আজকে আমরা প্রযুক্তির এক অভাবনীয় নিদর্শন, মোবাইল ফোনের কিছু ছবি তুলে ধরব আপনাদের কাছে। দেখে নেওয়া যাক কতটুকু পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে এখনো আমাদের সাথে আছে প্রযুক্তির এই অংশ গুলো।

যেহেতু ২০১৯ মাত্র শুরু হয়েছে এবং এখন মোবাইল মার্কেটে এ বছরের উপহার গুলো আসেনি, তাই আমরা গেলো বছরের ভাল কিছু ব্র্যান্ড তুলে ধরার চেষ্টা করছি।

স্যামসাং – গত বছরের সবচেয়ে আলোচিত ফ্ল্যাগশিপ মোবাইল ছিল স্যামসাং নোট ৯। অ্যান্ড্রয়েড জগত কাঁপিয়ে দেওয়া এই ফোনের সব সময় তো এই অবস্থা ছিলনা। ২০০৯ সালে “আই ৭৫০০ গ্যালাক্সি” ফোনের সাথে এই সিরিজের সূচনা হয়। ৩.২ ইঞ্চি ডিসপ্লে থেকে শুরু হয়ে এখন ৬.৪ ইঞ্চি পর্যন্ত চলে এসেছে ২০১৯ এ। স্মার্ট ফোন মার্কেট শেয়ারের দিক থেকেও স্যামসাং এখন এক নম্বরে। এই আধ্যাত্মিক যন্ত্রের জনপ্রিয়তা কমতে না কমতেই গ্যালাক্সি এস ১০ এর বাতাস বইতে শুরু করেছে।

আই ৭৫০০ গ্যালাক্সি vs নোট ৯

 আইফোন – অ্যাপল কোম্পানির ফ্ল্যাগশিপ হিসেবে গত বছর আইফোন এক্স এস একটি অসাধারণ ফোন ছিল। আইওএস ১২ এর সাথে অ্যাপল এর নিজস্ব এ ১২ বায়োনিক চিপ মিলে দুর্দান্ত পারফরমান্সের নিদর্শন দেখায় এ ফোন। ২০০৯ সালে আইফোন ৩জি এস এর সাথে অ্যাপল প্রচুর জনপ্রিয়তা অর্জন করে। অন্যান্য ফোনের ডিজাইন, স্টাইল কোন কিছুর তোয়াক্কা না করে অ্যাপল তার নিজস্ব দুনিয়া বানাতে থাকে।

আইফোন ৩জি এস vs আইফোন এক্স এস

হুয়াওয়ে – চাইনীজ জায়ান্ট হুয়াওয়ে ফোন অনেক বছর ধরেই বানাচ্ছে। চাইনীজ মার্কেটে ভাল চাহিদা থাকলেও ইউরোপ, আমেরিকা তথা মেইনস্ট্রিম মার্কেটে তেমন সফলতা অর্জন করতে পারেনি এত বছর। হঠাৎ একটি দুটি ভাল ফোন ও অল্প সময়ের জনপ্রিয়তায় কেটে যাচ্ছিল। কিন্তু গত বছর সকল মোবাইল রিভিউয়ারকে চমকে দেয় আন্ডার রেটেড আতংক “হুয়াওয়ে মেট ২০ প্রো”। আর এ ফোনের পূর্বপুরুষ ছিল হুয়াওয়ে এর প্রথম অ্যান্ড্রয়েড ইউ ৮২২০।

ইউ ৮২২০ vs মেট ২০ প্রো

সনি – সনি এক্সপিরিয়া এক্স যি ৩ সাথে নিয়ে এক রকম টিকে থাকার লড়াই করছে সনি। স্মার্ট ফোন মার্কেটে এত বেশি প্রতিযোগিতা এসে গিয়েছে যে টিকে থাকা মুশকিল হয়ে পরছে। সনি এরিক্সন এক্সপিরিয়া এক্স ১০, ২০০৯ সাল হিসেবে যথেষ্ট স্টাইলিশ ছিল বলে আমি মনে করি।

সনি এরিক্সন এক্সপিরিয়া এক্স ১০ vs সনি এক্সপিরিয়া এক্স যি ৩

নোকিয়া – এক সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় মোবাইল নোকিয়া এখন সেরা ৫ স্মার্ট ফোন নির্মাণকারী তালিকায়ও জায়গা পায়না। ২০০৯ সালে এন ৯৭ খুবই ইউনিক স্টাইলের মোবাইল ছিল। কিন্তু ২০১৯ এ নোকিয়া ৮.১ নিয়ে বাজার ধরে কুলিয়ে উঠতে পারছেনা।

এন ৯৭ vs নোকিয়া ৮.১

 

শাওমি, অপো, ভিভো এর মত এখনকার বিখ্যাত ফোন গুলো আমরা আর তুলে ধরিনি যেহেতু ২০০৯ সালে এদের যাত্রা শুরু হয়নি।

 

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker