টেক গেজেটসটেক টকপ্রযুক্তি

উইন্ডোজ ১০ আপডেট মে, ২০১৯ এর লক্ষণীয় ফিচারসমূহ

আব্দুল্লাহ আল মুনতাসির: উইন্ডোজের আপডেট দেখলে অস্বাভাবিক রকম মেজাজ খারাপ হয় আমার মত অনেকেরই। কিন্তু আপডেট না হলে বাগ ফিক্সেস কিভাবে আসবে? তখন তো আমরাই বলব যে উইন্ডোজে অনেক সমস্যা। উইন্ডোজের নানাবিধ সমস্যা সমাধান করতে প্রায়ই কম বেশি অটোমেটেড আপডেট আমরা পেয়ে থাকি। তবে এই মে মাসে একটি বড় আপডেট এসেছে মাইক্রোসফটের পক্ষ থেকে। আপডেটটি রোল আউট করা শুরু হয়ে গিয়েছে ইতোমধ্যে, ধীরে ধীরে সব ইউজারের কাছে চলে যাবে বলে আসা করা যায়। এই আপডেটের যে ফিচারগুলো ব্যক্তিগতভাবে আমার ভালো লেগেছে তা নিচে উল্লেখ করছি।

লাইট থিম

এই আপডেটের শুরুতেই দেখতে পাবেন উইন্ডোজ একটি লাইট থিম রান করছে। সাদা রঙের ব্যাপক প্রাধান্য লক্ষ করতে পারবেন এই থিম এ। মূলত আগের ডার্ক থিমের বিপরীতে এই লাইট থিম নিয়ে আসা হয়েছে। থিমের সাথে মিল রেখে নতুন একটি ডিফল্ট ওয়ালপেপার দেখতে পাবেন যেখানে নীল রঙ আগের চেয়ে অনেক হালকা করা হয়েছে। সব মিলিয়ে লাইট থিম যথেষ্ট ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছে মাইক্রোসফট।

সার্চ বক্স ও স্টার্ট মেনু

সার্চ বক্সে এসেছে কিছুটা পরিবর্তন। সাইজ কিছুটা অ্যাডজাস্ট করা হয়েছে এবং সার্চ বক্স থেকে মাইক্রোফোনের আইকনটি সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। মাইক্রোফোন আইকনটি কেন সরিয়ে দেওয়া হয়েছে তা নিচেই জানতে পারবেন। এছাড়াও স্টার্ট মেনু আগের থেকে অনেক সিম্পল লুক দেওয়া হয়েছে। স্টার্ট মেনুতে আইটেম আনপিন করা আরও সহজ করা হয়েছে। আগের মত একটি একটি করে আনপিন করার ঝামেলা নেই। একবারে ক্যাটাগরি ধরে আনপিন করে দেওয়া সম্ভব।

কর্টানা

কর্টানা কে সার্চ বক্সের বাইরে নিয়ে এসে আলাদা একটি সত্তা দেওয়া হয়েছে। যার কারনে সার্চ বক্স থেকে মাইক্রোফোন উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে। কর্টানাকে আরও স্মার্ট করার প্রয়াসে মাইক্রোসফট লাগাতার কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহকতায় মাইক্রোসফট “সিম্যানটিক মেশিন্স” কিনে নেয় যার মাধ্যমে মাইক্রোসফট কর্টানার আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের উপর আরও দিগুণ গতিতে কাজ করবে।

ব্রাইটনেস স্লাইডার

ইউজারদের কথা অবশেষে মাইক্রোসফটের কানে গিয়েছে। অ্যাকশন সেন্টারে এখন একটি ব্রাইটনেস স্লাইডার যোগ করেছে যার মাধ্যমে অনেক সহজেই ইউজাররা উইন্ডোজের ব্রাইটনেস কমিয়ে বা বাড়িয়ে নিতে পারবে।

ডিফল্ট অ্যাপ আনইন্সটল

উইন্ডোজ এর কিছু ডিফল্ট অ্যাপ্লিকেশন থাকে যা আমরা কখনোই ব্যবহার করিনা। এবারের আপডেটে এইসব ডিফল্ট অ্যাপ গুলো আনইন্সটল করে দেওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে মাইক্রোসফট। আপনি চাইলেই এখন ৩ডি ভিউয়ার, গ্রুভ মিউজিক, মাইক্রোসফট সলিটেয়ার কালেকশন, মুভিস অ্যান্ড টিভি, ওয়ান নোট, পেইন্ট ৩ডি ইত্যাদির মতো অপ্রয়োজনীয় অ্যাপলিকেশন আনইন্সটল করে দিতে পারবেন এই আপডেটে।

নোটপ্যাড

নোটপ্যাডে কোন কিছু আনসেভড অবস্থায় থাকলে তা একটি * চিহ্ন দিয়ে দেখিয়ে দেওয়া হবে এখন থেকে। নতুন কোন উইন্ডো খোলার জন্যও শর্টকাট যোগ করা হয়েছে। কন্ট্রোল+শিফট+N চাপলে নতুন একটি উইন্ডোতে নতুন ফাইল ওপেন হবে।

স্যান্ড বক্স

শুধুমাত্র উইন্ডোজ ১০ প্রো এবং এন্টারপ্রাইজ এর জন্য স্যান্ড বক্স সুবিধাটি রেখেছে মাইক্রোসফট। স্যান্ড বক্স চালু করলে একটি নতুন উইন্ডোজ এর প্রতিচ্ছবি দেখতে পাবেন। যেখানে কোন সন্দেহজনক অ্যাপ ইন্সটল করে চেক করে নিতে পারেন তা ক্ষতিকারক কি না। এটিতে যাই ইন্সটল করবেন তা প্রোগ্রামটি ক্লোজ করে দেওয়ার পরে চলে যাবে। পরীক্ষামূলক কাজে এর ব্যবহার অতুলনীয়।

কার্সর

ইজ অফ অ্যাক্সেস সেটিংস থেকে এখন আপনার মাউসের কার্সর ছোট বড় কিংবা পছন্দমত রঙ করে নিতে পারবেন এই আপডেটে। এতে যাদের চোখে কিছুটা সমস্যা আছে এবং ছোট জিনিষ দেখতে সমস্যা হয় তারা অনেকটা সুবিধা পাবে।

পাস ওয়ার্ড ছাড়া সাইন ইন

এখন চাইলে আপনি সাইন ইন করতে আপনার ফোন নাম্বার ব্যবহার করতে পারবেন। নিজের নাম্বার সেট করে দিলে পরবর্তীতে লগিনের জন্য নিজের ফোনে আসা কোড ব্যবহার করে লগইন করতে পারবেন। এটি আপনার অ্যাকাউন্ট সুরক্ষার জন্য নতুন এক ধাপের মতো কাজ করবে।

উইন্ডোজ আপডেট

উইন্ডোজ আপডেট সেটিংস ও আপডেট করতে বাদ রাখেনি মাইক্রোসফট। এখন থেকে উইন্ডোজ আপডেট যখন তখন চাইলেই চালু হওয়া থেকে থামিয়ে রাখা যাবে। একটিভ আওয়ার সেট করে দিয়ে ওইটুকু সময়ের মধ্যে উইন্ডোজ আপডেট শুরু হবেনা। এছাড়াও আপডেট পরে করার জন্যও বাটন সেট করা হয়েছে। ১ সপ্তাহ থেকে শুরু করে সর্বচ্চ ৫ সপ্তাহ পর্যন্ত আপডেট বন্ধ করে রাখতে পারবেন।

এগুলো ছাড়াও অন্যান্য আরও কিছু ফিচার ও বাগ ফিক্সেস তো থাকছেই।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker