ট্রেন্ডিং খবরপ্রযুক্তিহোমপেজ স্লাইড ছবি

ফেইসবুকের “লিবরা”, যুগান্তকারী নতুন বিনিময় ব্যবস্থা নাকি আরেকটি নক অফ ক্রিপ্টোকারেন্সি?

আব্দুল্লাহ আল মুনতাসির: ক্রিপ্টোকারেন্সি বাজারে ফেইসবুকের মতো বড় প্রতিষ্ঠানের পদচারণা ভবিষ্যতের বিনিময় ব্যবস্থাকে আরও গতিশীল করবে নাকি আরও একচেটিয়া করে তুলবে তা তো সময়ই বলে দিবে। কিন্তু আপাতত আমরা জেনে নেই “লিবরা” সম্পর্কে কিছু তথ্য।

কিভাবে ব্যবহার করবেন?
ক্রিপ্টোকারেন্সি বাজারে ফেইসবুক ঢুকবে ঢুকবে বলে অনেকদিন ধরে শোনা যাচ্ছিল। অবশেষে গত সপ্তাহে এ ব্যাপারে খোলাসা করে কর্তৃপক্ষ। তারা জানায় ২০২০ সালের মধ্যে এটি চালু করার চেষ্টা করছে ফেইসবুক। এটি খুব সহজেই ব্যবহার করা যাবে যা লেনদেনকে করবে গতিশীল। মোবাইল ব্যাংকিং এর মতো কাজ করবে এটি। ফোনের সাহায্যে লেনদেনে মানুষকে অভ্যস্ত করানোই এর মুল উদ্দেশ্য। যথাযথ মূল্য পরিশোধ করে চাইলে আপনার কাছের মুদি দোকান থেকেও “লিবরা” কয়েন কিনতে পারা যাবে। আবার লিবরা কয়েন দিয়ে টাকাও তুলে নেওয়া যাবে। কিন্তু এসবের জন্য প্রথমে আপনাকে আপনার ফটো আইডি দ্বারা প্রমাণ করতে হবে যে আপনিই এই অ্যাকাউন্টের মালিক। এরপর আপনি আপনার সুবিধামতো অনলাইনে কেনাকাটা থেকে শুরু করে, উবারের বিল দেওয়া, টিকেট কাঁটার মতো বিভিন্ন কাজ করতে পারবেন। যেহেতু এই ডিজিটাল মুদ্রা প্রায় বিনামূল্যেই এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় হস্তান্তর করা সম্ভব তাই ক্রেডিট কার্ডের মতো কোন বাড়তি ফী দেওয়ার ঝামেলা নেই।

লিবরার সাথে যৌথভাবে যেসব কোম্পানি কাজ করবে তারা গ্রাহকদেরকে লিবরা ব্যবহারে উৎসাহিত করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ছাড়ের ব্যবস্থা করতে পারে, অথবা বাড়তি কিছু সুযোগ সুবিধা দিতে পারে লিবরা ব্যবহারকারীদের। আমাদের দেশের বিকাশের মতোই খুব সহজেই অন্য ব্যবহারকারীকে লিবরা কয়েন পাঠানো যাবে বা তার থেকে চাওয়া যাবে।

নিরাপদ?
সম্প্রতি ক্যামব্রিজ অ্যানালেটিকা কেলেঙ্কারির পর ফেইসবুকের কাছে এতো তথ্য এবং সম্পদ রাখা কতটুকু নিরাপদ? এই চিন্তা অনেকেরই মাথায় ঘুরছে বা ঘুরবে বলেই এটি আলদা একটি সত্তা হিসেবে কাজ করবে। ক্যালিবরা নামের আলাদা একটি কোম্পানি থাকবে যা লিবরা শক্রান্ত সকল কাজ করবে। যেন ফেইসবুকের সাথে লিবরার কোন সম্পর্ক না থাকে। ফেইসবুক চাইলেই ক্যালিবরা থেকে আপনার আমার তথ্য নিতে পারবেনা বলে আশ্বাস দেওয়া হয়।

এতো গেলো আমাদের তথ্যের নিরাপত্তা, কিন্তু এই মুদ্রার মানের তারতম্য কিভাবে রক্ষা করা হবে? ফেইসবুক একচেটিয়া ভাবে এই মুদ্রার মূল্যমান নির্ধারণ করবে না তো? লিবরা কর্তৃপক্ষ জানায় এটি শুধুমাত্র ফেইসবুক দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হবেনা। ভিসা, মাষ্টার কার্ড, ই-বে, লিফট, ইউনিয়ন স্কোয়ার ভেনচারস এর মতো বড় বড় ২৮ টি কোম্পানির সাথে ইতোমধ্যে লিবরা সংযুক্ত হয়ে গেছে এবং লিবরা আনুষ্ঠানিক ভাবে চালু হওয়ার পূর্বে আসা করছে মোট প্রায় ১০০টি বড় বড় কোম্পানি নিয়ে তাদের যাত্রা শুরু করবে। এই ১০০টি বড় বড় কোম্পানি নির্ধারণ করবে লিবরা কয়েনের মান, এর ভবিষ্যৎ ইত্যাদি। এ একেকটি কোম্পানি কমপক্ষে ১০ মিলিওন ডলার করে বিনিয়োগ করে লিবরার সাথে সংযুক্ত হবে। এই অর্থ জমা হবে “লিবরা রিজার্ভ” নামক জায়গায়। লিবরার স্থায়িত্ব বজায় রাখতে পৃথিবীর সবচেয়ে স্থিতিশীল কিছু মুদ্রা নিয়ে লিবরা রিজার্ভ তৈরি হবে। এতে থাকবে ইউএস ডলার, ব্রিটিশ পাউন্ড, ইউরো এবং জাপানিজ ইয়েন। এর ফলে যদি একটি মুদ্রার মূল্যমান কমেও যায় তাও লিবরার ওপর তার তেমন প্রভাব পড়বেনা।

বিনিয়োগকারী কোম্পানিদের তাহলে কি লাভ?
তারা তাদের বিনিয়োগ থেকে ইন্টারেস্ট পাবে শতকরা হারে। আপনি আমি যখন আমাদের অর্থ দিয়ে লিবরা কয়েন কিনবো এবং আপনার আমার মতো লক্ষ কোটি মানুষের টাকায় লিবরা রিজার্ভে বিপুল পরিমাণ অর্থ জমা হবে, তা থেকে লিবরা কোম্পানির যাবতীয় খরচাদি মিটানোর পর লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের দিবে।

এখন দেখার বিষয় ক্যামব্রিজ অ্যানালেটিকার মতো এতো বড় কেলেঙ্কারির পর মানুষ ফেইসবুকের এই উদ্যোগের দিকে কতটুকু উৎসাহিত হয়।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker