প্রযুক্তিহোমপেজ স্লাইড ছবি

ল্যারি পেজ, গুগল এবং অন্যান্য

এস.কে.শাওন: বর্তমান সময়ে আমাদের দৈনন্দিন জীবনের সাথে গুগল সার্চ ইঞ্জিন ওতপ্রোতভাবে জড়িত। আমরা আমাদের গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন কার্য সম্পাদনের ক্ষেত্রে গুগল ব্যবহার করি। কারণ গুগল সার্চ ইঞ্জিন অনেক কঠিন কাজকেও সহজ করে দেওয়ার ব্যাপারে বিরাট ভূমিকা পালন করে। কিন্তু কে বা কারা এর প্রতিষ্ঠাতা? সেটা হয়তো অনেকেই জানে না। চলুন আজকে জানবো গুগলের একজন সহ-প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি পেজের গল্প।

তার পুরো নাম লরেন্স এডওয়ার্ড পেজ। তবে তিনি ল্যারি পেজ নামেই পরিচিত। তার জন্ম ১৯৭৩ সালের ২৬ মার্চ যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানে। মা-বাবা কম্পিউটার সাইন্সের সাথে সম্পর্কযুক্ত থাকায় বাড়িতে কম্পিউটার সাইন্স সম্পর্কিত বই পুস্তক ছিল প্রচুর। সেজন্য ছোটবেলা থেকেই কম্পিউটার সংক্রান্ত জ্ঞান রপ্ত করে ফেলেন পেজ। ইউনিভার্সিটি অব মিশিগানে কম্পিউটার সাইন্সের ওপর স্নাতক করেন ল্যারি পেজ। স্নাতক শেষে পিএইচডি করতে যান স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে। সেখানে গিয়ে পরিচয় হয় কম্পিউটার সাইন্সের আরেক ছাত্র সার্গেই ব্রিনের সঙ্গে। তারা দু’জন একসাথে একটি গবেষণা প্রকল্পে কাজ শুরু করেন। তারপর তারা একটি সার্চ ইঞ্জিন তৈরি করেন। সেখানে সার্চ করলেই সবচেয়ে প্রাসঙ্গিক ওয়েবসাইটগুলোর লিংক চলে চলে আসতো। ইঞ্জিনটির নাম ছিল ব্যাকরাব।পরবর্তীতে ১৯৯৭ সালে পেজ এবং ব্রিন সার্চ ইঞ্জিনটির নতুন নাম দেন গুগল।

গুগল সার্চ ইঞ্জিনের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির ফলে ২০০৪ সালে তা শেয়ার বাজারে স্থান পায়। ফলশ্রুতিতে পেজ ও ব্রিন বিলিয়নিয়ারের মালিক বনে যান। অভ্যন্তরীণ জটিলতা থাকায় ল্যারি পেজকে প্রধান নির্বাহীর পদ থেকে সরে দাড়াতে হলেও ভোটাধিকারের ক্ষমতাবলে দু’জনই সমান অংশীদার ছিলেন। পেজ ২০০৫ সালে ৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড কোম্পানি কিনে নেন। সেখানেও তিনি সফলতার মুখ দেখেন।সময়ের পরিক্রমায় সার্চ ইঞ্জিন ও অ্যান্ড্রয়েডের সফলতার ফলে গুগলের বিজ্ঞাপন বাণিজ্য বাড়তে থাকে। ২০১০ সালে গুগল কোম্পানির দাম গিয়ে দাড়ায় ১৮০ বিলিয়ন ডলারে।

গুগল বড় কোম্পানি হওয়ায় পেজকে কিছু সমস্যাও মোকাবেলা করতে হয়। ফেসবুক বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তা লাভ করায় মোটা অংকের বেতনে গুগলের কয়েকজন কর্মী ফেসবুকে চাকরি নেয়। তখন অবশ্য এই সমস্যা মোকাবেলায় গুগলে কিছু বৈচিত্র্য আনেন, যাতে করে প্রতিষ্ঠানের সফলতার অগ্রগতি না থামে। ২০১১সালে এরিক স্মিট প্রধান নির্বাহীর পদ থেকে সরে দাঁড়ালে ল্যারি পেজ তাঁর আগের পদ ফিরে পান। বর্তমানে সময়ে ইন্টারনেটে সবচেয়ে বেশি ভিজিট করা সাইডটির নাম হচ্ছে গুগল। ২০১৫ সালে গুগলের জায়গায় নিয়ে আসা হয় অ্যালফাবেট। বর্তমানে অ্যালফাবেটের প্রধান নির্বাহী পদে আছেন ল্যারি পেজ। এর ফলে অ্যালফাবেটের অধীনে চলে আসে গুগলসহ এর সাথে থাকা সব কোম্পানি। এখন অ্যালফাবেটে থেকেই গুগলের অধীনে থাকা অন্যান্য কোম্পানিগুলো দেখাশোনা করেন পেজ। বর্তমানে ল্যারি পেজ উড়ন্ত গাড়ি নিয়ে কাজ করা কোম্পানিগুলোতে লগ্নি করছেন। এছাড়াও পেজ অনেক ধাতব্য কাজের সাথে জড়িত রয়েছেন।

২০১৯ সালে ফোবর্স সাময়িকীর বিশ্ব ধনীদের তালিকায় দশম স্থানে আছেন ল্যারি পেজ। বর্তমানে তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ ৫৬ বিলিয়ন ডলার। এতো সম্পদের মালিক হওয়া স্বত্বেও সাদামাটাভাবে জীবন-যাপন করেন তিনি। পেজ ২০০৭ সালে বিয়ে করেন গবেষণা বিজ্ঞানী লুসিন্ডাকে। এ দম্পতির রয়েছে দুটি সন্তান।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker