চলতি হাওয়াট্রেন্ডিং খবরপ্রযুক্তি

কম্পিউটার গেম খেলেও টাকা আয় করা যায়!

আবদুল্লাহ আল মুনতাসির: দালানকোঠা ভরা এ শহরে খেলার মাঠে দৌড়ানোর সুযোগ কয়জনের হয়েছিল আপনাদের? ২০১৯ সালে এসে কয়জনের মনে আছে আদৌ এলাকার কোন মাঠে ফুটবল টুর্নামেন্ট খেলেছেন কিনা জীবনে? কথাও তিল পরিমাণ জায়গা ঘুরে বেড়ানোর বাকি নেই তবুও বাবা মার কাছে আমরা সবাই শুনেছি, “কি শুধু টিভি, মোবাইল নিয়ে বসে থাকিস?”। আর যাদের ঘরে কম্পিউটার ছিল তাদের অবস্থা তো আরও খারাপ। “এসব ভিডিও গেম খেলে জীবন নষ্ট করার কোনো মানে আছে? এতো গেম খেলে জীবনে কিছু করতে পারবি? গেম খেলে পেট ভরবে?” এসব প্রশ্নের উত্তর আমরা দিতে না পারলেও ইউরোপ, আমেরিকা মহাদেশের অনেক দেশ ই দিতে শুরু করেছে। প্রতিযোগিতামূলক গেমিং একটি পেশায় পরিণত হচ্ছে। এদেশেও ই-স্পোর্টস এর সাথে অনেকেই পরিচিত হতে শুরু করেছে।

এমনই এক গেম “ডটা ২”, যার অভিভাবক সংস্থা “ভ্যাল্ভ” প্রতি বছর “দা ইন্টারন্যাশনাল” নামের একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। দুনিয়ার সকল প্রান্ত থেকে খেলোয়াড় এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। উদ্দেশ্য একটাই, ই-স্পোর্টস জগতে নিজেকে অমর করে ফেলা। সাথে মোটা অংকের প্রাইজ মানি তো থাকছেই। প্রতি বছরই এই প্রাইজ মানি বৃদ্ধি পায় যা এবছর ৩ কোটি ৪০ লক্ষ মার্কিন ডলারেরও বেশিতে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। এই প্রতিযোগিতায় যে দল প্রথম হবে তারা ১ কোটি ৫৫ লক্ষ পাবে অর্থাৎ ৫ জনের দলের একেক জনের পকেটে যাবে ৩১ লক্ষ মার্কিন ডলারের মতো অর্থ। মোট ১৮ টি দল নিয়ে এবছর এই টুর্নামেন্টটি চায়নাতে অনুষ্ঠিত হয়।

ডটা ২ একটি মোবা (MOBA- Multiplayer online battle arena) গেম। এখানে এক দলে ৫ জন এবং অন্য দলে ৫ জন করে মোট ১০ জনের এক একটি ম্যাচ হয়। ১০০ টিরও বেশি চরিত্রের মধ্য থেকে ১০ জন ১০ টি চরিত্র সিলেক্ট করে। একেক চরিত্রের আবার বৈশিষ্ট্য ও বিশেষত্ব একেক রকম। কোনো চরিত্র বিপক্ষ দলের চরিত্রের সাথে যুদ্ধে পারদর্শী, তো কোন চরিত্র যোদ্ধাদের সহায়তায় পারদর্শী। কিন্তু সবার মূল লক্ষ্য একটাই, বিপক্ষ দলের ঘাটির গভীরে অবস্থিত “এনশিয়েন্ট” নামক একটি বিল্ডিং ধ্বংস করা।

এবছর “টিম ওজি” এই টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতে নেয়, দ্বিতীয় হয়েছে “টিম লিকুইড”। এই প্রথম কোন প্লেয়ার দ্বিতীয় বারের মতো এই শিরোপা জিতে, কারণ “টিম ওজি” গত বছরও এই শিরোপা জিতে। দলনেতা “ইয়োহান (নো টেইল) সান্ডস্টেইন” শুধুমাত্র বিভিন্ন টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করে ৬৬ লক্ষ মার্কিন ডলারেরও বেশি কামাই করে বর্তমানে সবচেয়ে ধনী ই-স্পোর্টস প্লেয়ারের তালিকায় ১ নাম্বারে আছে। এছাড়াও বিভিন্ন স্পন্সরের কাছ থেকে এবং বিভিন্ন অ্যাডভার্টাইজমেন্ট এর জন্য ও এসব খেলোয়াড়রা অর্থ পেয়ে থাকে।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker