বাণিজ্য বার্তা

অনুষ্ঠিত হলো ৫ম ডিজিটাল মার্কেটিং সামিট

বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের উদ্যোগে আয়োজিত হলো পঞ্চম ডিজিটাল মার্কেটিং সামিট। মেঘনা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে উপস্থিত ছিল দেশের গণ্যমান্য ডিজিটাল প্রফেশনালসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রের প্রায় ৪০০ অতিথি। এবছরের সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্য ছিল “ডেল্ভিং ডীপ ইনটু ডিজিটাল”। কন্টেন্ট ম্যাটারস-এর পৃষ্ঠপোষকতায় এবং দি ডেইলি স্টারের সহযোগিতায় সংগঠিত এ অনুষ্ঠানটি শনিবার ঢাকার হোটেল লে মেরিডিয়ানে অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলন শেষে সন্ধ্যায় সেখানে অনুষ্ঠিত হয় ডিজিটাল মার্কেটিং অ্যাওয়ার্ড এর দ্বিতীয় আসর যেখানে ১৬ টি শ্রেনীতে এ বছরের শ্রেষ্ঠ ডিজিটাল ক্যাম্পেইন গুলোকে পুরষ্কৃত করা হয়।

২০১৪ সাল থেকে শুরু হওয়া এ সম্মেলনটি দেশের ডিজিটাল মার্কেটিং প্রফেশনালদের তথ্য ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের জন্য সর্বোচ্চ প্ল্যাটফর্ম হিসেবে সর্বজনবিদিত।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ব্র্যান্ড ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক শরিফুল ইসলাম। তিনি বলেন, “ডিজিটাল ধারণার মাধ্যমে আমরা এখন যেকোন ব্র্যান্ডকে ভাঙতে বা গড়তে পারি। আমরা বর্তমানে একটি বিস্তৃত ডিজিটাল ইকোসিস্টেমের পৃষ্ঠভাগে দাঁড়িয়ে আছি। এই সম্মেলনের মাধ্যমে আমরা বিশ্বব্যাপী প্রচলিত বিভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরার এবং প্রত্যেকের মাঝে কিছু প্রশ্ন উত্থাপন করার চেষ্টা করছি যা এই নতুন ধারণার সাথে খাপ খাওয়ানোর একমাত্র উপায়।”

ডিজিটাল মার্কেটিং সামিটের এই ৫ম আসরে উপস্থিত ছিলেন আন্তর্জাতিক ৫ জন বিশিষ্ট বক্তা, যারা ডিজিটাল মার্কেটিং ক্ষেত্রের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। এছাড়াও আলোচনার আসরে ছিলেন ২২ জন দেশীয় বিশেষজ্ঞ যারা দেশের ডিজিটাল মার্কেটিং বর্তমান পরিস্থিতি ও ভবিষ্যত রূপরেখার উপর আলোকপাত করেন। একাধিক প্যানেল আলোচনা, ব্রেকআউট সেশন, ইনসাইট সেশন এবং কেইস স্টাডি প্রেজেন্টেশন সেশনগুলো সামিটের পুরো পরিবেশকে একটি একদিনের পাঠশালার রূপ প্রদান করে। দেশের গণ্যমান্য ডিজিটাল মার্কেটিং বিশেষজ্ঞরা আলোচনাগুলোতে অংশগ্রহণ করেন এবং তাদের আলোচিত বিষয়বস্তুগুলোর মাঝে উল্লেখযোগ্য ছিল – কীভাবে একটি কার্যকর ডিজিটাল কৌশল প্রণয়ন করা যায়, ডিজিটাল বিজ্ঞাপন খাতে বাজেট তৈরি, ক্রমবর্ধমান ডিজিটাল গ্রাহক ও তাদের সাথে সুষ্ঠু যোগাযোগ স্থাপন প্রক্রিয়াসহ আরও অনেক কিছু।

সম্মেলনে কি নোট উপস্থাপন করেন যুক্তরাজ্যের দ্য নাম্বার ওয়ান এজেন্সির প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক উবাহ বাটলার, ফিলিপাইন এর ডেন্টসু এজিস নেটওয়ার্ক-এর কান্ট্রি সিইও ডঃ ডোনাল্ড প্যাট্রিক লিম, নিভিয়া ইন্ডিয়া প্রাঃ লিঃ এর এক্সপোর্টস অ্যান্ড ই-কমার্সের বানিজ্যিক পরিচালক যোগেশ শ্রফ, পাইরাল কন্টেন্ট সলিউশন্স (স্ক্যাটার) – এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী কর্মকর্তা রাজন শ্রীনিবাসন এবং নিয়েলসেন ইন্ডিয়ার নির্বাহী পরিচালক ডলি ঝা।
ইনসাইট সেশনগুলো পরিচালনা করেন রবি আজিয়াটা লিমিটেডের চিফ ডিজিটাল সার্ভিস অফিসার শিহাব আহমেদ এবং ১০ মিনিট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও আয়মান সাদিক। কেস স্টাডি প্রেসেন্ট করেন এস্কিমি এশিয়ার বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার অ্যাগ্নে সভেতনিকাইতে।

এছাড়াও ছিল কন্টেন্ট ম্যাটারস এবং চ্যাটলিডস কর্তৃক পরিচালিত ২টি ব্রেকআউট সেশন। কন্টেন্ট ম্যাটারসের ব্রেকআউট সেশনটিতে ছিলেন গ্রে বাংলাদেশের কান্ট্রি হেড অ্যান্ড ম্যানেজিং পার্টনার সৈয়দ গাউসুল আলম শাওন, ইন্ডেপেন্ডেন্ট ইউনিভারসিটি বাংলাদেশের অ্যাডজাঙ্কট ফ্যাকাল্টি ও ডিজিটাল মার্কেটিং এর ওপর পিএইচডি ডিগ্রিপ্রাপ্ত তানভীর ফারুক, এবং কন্টেন্ট ম্যাটারসের ডিরেক্টর ও জি টিভির ম্যানেজিং ডিরেক্টর আমান আশরাফ ফয়েজ। চ্যাটলিডসের ব্রেকআউট সেশনটিতে বক্তা হিসেবে ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির সিইও সাদাব মাহবুব।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker