বাক্যহোমপেজ স্লাইড ছবি

কালো তাজমহল নিয়ে জানা-অজানা!

রুমানা মির্জা: তাজমহলের নাম শোনেননি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। এ অপূর্ব এবং অপার্থিব স্থাপনাটির মনে পড়লেই মুঘল সম্রাট শাহজাহান এবং তার প্রিয়তমা স্ত্রী মমতাজের কথা মনে আসে। শাহজাহান তার স্ত্রী আরজুমান্দ বানু বেগম যিনি মমতাজ মহল নামে পরিচিত, তার স্মৃতির উদ্দেশ্যে এই অপূর্ব সৌধটি নির্মাণ করেন। সৌধটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছিল ১৬৩২ সালে যা সম্পূর্ণ হয়েছিল ১৬৫৩ খ্রিস্টাব্দে। এ কালো তাজমহল নিয়ে রয়েছে অনেক গল্প আর কিংবদন্তি।

সেগুলোর মধ্যই রয়েছে হয়ত আসল ঘটনা। এ সব নিয়ে মনে করা হয় আরও গবেষণার প্রয়োজন। গল্পগুলো আর কিংবদন্তি গুলো এমন ছিলো।

  • বার্তা সংস্থা ইকনা প্রকাশ করেন যে, “শাহজাহান আসলে ভারতে কয়টি তাজমহল নির্মাণ করতে চেয়েছিলেন? একটি, নাকি দুইটি। বর্তমানে ভারতের আগ্রায় যমুনা নদীর তীরে যে তাজমহলটি রয়েছে তার ঠিক উল্টো পাশেই শাহজাহান নির্মাণ করতে চেয়েছিলেন আরেকটি তাজমহল! এই তাজমহলটিই ভারতে ‘কালা তাজমহল’ নামে পরিচিত। অর্থাৎ, কালো তাজমহল। বলা হয়, কালো তাজমহলের আত্মা আছে কিন্তু দেহ নেই। সত্যিই তাই। কালো তাজমহল ইতিহাসে আছে কিন্তু বাস্তবে নেই। যে জায়গায় সম্রাট কালো তাজমহলটি তৈরী করতে চেয়েছিলেন, সে জায়গায় এখনো স্তুপীকৃত কালো পাথর পড়ে আছে অরক্ষিত অবস্থায়, অনাদরে, অবহেলায়।
  • প্রচলিত লোককথা অনুযায়ী, নিজের সমাধিস্থল হিসেবেই এই তাজমহলটি নির্মাণ শুরু করতে চেয়েছিলেন শাহজাহান।
  • সবচেয়ে আলেচিত গল্পটি পাওয়া যায় ইউরোপীয় পর্যটক জ্যাঁ ব্যাপটিস্ট টাভারনিয়ারের ভ্রমণকাহিনিতে। ১৬৪০ ও ১৬৫৫ সালে মুঘলদের তৎকালীন রাজধানী আগ্রা ভ্রমণ করেছিলেন তিনি। টাভারনিয়ার তার ভ্রমণ কাহিনিতে লেখেন, সম্রাট শাহজাহান যমুনার নদীর অপর পারে নিজের জন্য একটি সমাধিক্ষেত্রের নির্মাণকাজ শুরু করেছিলেন। কিন্তু ছেলেদের সঙ্গে লড়াই শুরু হওয়ায় তিনি তা শেষ করতে পারেননি।
  • স্থানীয় লোককথায় এটাও বলা হয়ে থাকে যে শাহজাহান যমুনার ওপর একটি সেতু বানিয়ে নদীর দুই পারে নিজের ও স্ত্রীর সমাধিকে সংযুক্তও করতে চেয়েছিলেন।
  • কালো তাজমহলের মিথ আরও ঘনীভূত হয় ১৯ শতকে এসিএল কারলেইলি নামের এক ব্রিটিশ প্রত্নতত্ত্ববিদ যমুনার পারে একটি পুকুরে কালো মার্বেল খুঁজে পাওয়ার দাবি করার পর।
  • তবে পরর্বতীতে গবেষকরা ভিন্ন মত দেন। তাদের মতে, সম্রাট শাহজাহান তাঁর প্রপিতামহ সম্রাট বাবরের তৈরি মাহতাব বাগকে সংস্কার করে তাজমহল কমপ্লেক্সের সঙ্গে মিলিয়ে দিতে স্থপতিদের অনুরোধ করেছিলেন। বলা হয়ে থাকে, এটাই পরিকল্পিত দ্বিতীয় বা কালো তাজমহল নির্মাণের স্থান ছিল। এ ছাড়া তাজমহলের মধ্যে শাহজাহানের সমাধিটির অবস্থান বিবেচনা করলেও এই ধারণা বদ্ধমূল হয় যে তিনি স্ত্রীর সঙ্গে একই সমাধিতে সমাহিত হতে চাননি। কেননা, পুরো তাজমহলের নকশায় চূড়ান্ত রকমের প্রতিসাম্য থাকলেও শাহজাহানের সমাধিটি সমাধিঘরের পশ্চিম দিকের দেয়ালের সঙ্গে সামঞ্জস্যহীনভাবে বানানো। এটা দেখে মনে করা হয়, এখানে কেবল মমতাজ মহলের সমাধি হওয়ারই কথা ছিল এবং শাহজাহানের সমাধিটি পরে যুক্ত করা হয়েছে। শাহজাহান আসলেই দ্বিতীয় কোনো তাজমহল নির্মাণ করতে চেয়েছিলেন কি না, বিষয়টি আজো রহস্য হয়েই রয়েছে। একদিকে আধুনিক গবেষকদের গবেষণা আর অন্যদিকে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা লোককথা। সব মিলিয়ে কালো তাজমহলের বিষয়টি একটি গল্প হয়ে থেকে গেছে।

গল্প যাই হোক- একটি সাদা তাজমহলের পাশে কালো তাজমহলের গল্পটি কিন্তু ভীষণ ভাবে সৌন্দর্যময়তা নিয়ে আসে। প্রাপ্ত এসব তথ্য-উপাত্ত থেকে বলা যায় যে, শাহজাহান আরেকটি কালো তাজমহল বানাতে চেয়েছিলেন নিজের সমাধির জন্য। কিন্তু ইতিহাসবিদেরা সেই সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়েছেন। কেননা, কেবল ফরাসি পর্যটক টাভারনিয়ারের লেখা ছাড়া আর কোথাও এমন দাবির পক্ষে প্রমাণ মেলেনি। প্রত্নতাত্ত্বিক খননেও যমুনার অন্য পারে এমন কোনো নির্মাণ প্রকল্পের দেখা মেলেনি। আর ব্রিটিশ প্রত্নতত্ত্ববিদের কালো মার্বেল পাওয়ার দাবিও পরে নাকচ হয়ে গেছে। কেননা, গবেষণায় প্রমাণ হয়েছে, মাহতাববাগের এক পুকুরে পাওয়া ওই মার্বেলগুলো আসলে সাদা মার্বেলই ছিল। কালের বিবর্তনে মাটির নিচে সেগুলো কালো দেখাচ্ছিল, এই যা। কিন্তু ইতিহাস যা-ই বলুক না কেন, কালো তাজমহলের ধারণাটি অনেক শিল্পীকেই অনুপ্রাণিত করেছে।

যমুনার এক পারে সাদা মার্বেলের তাজমহলে মমতাজ মহলের সমাধি এবং অন্য পারে কালো মার্বেলে সম্রাট শাহজাহানের সমাধি, এক বিশেষ সৌন্দর্য দিয়েছে। আর যমুনার ওপর দিয়ে একটা রুপালি সেতুতে এপার-ওপার যাতায়াত, এই চিত্রকল্প তাজমহলের মতো অনুপম স্থাপত্যের বিশালত্বের সঙ্গে শৈল্পিকতা প্রকাশ পেয়েছে আরও বেশি। আজও দুই তাজমহল নিয়ে লোকজনদের রয়েছে অনেক কৌতুহল। আর কালো তাজমহল নিয়ে আছে আরও বেশি রহস্য। সময়ের সাথে সাথে আরও গবেষণার মাধ্যমে নিশ্চয় রহস্য গুলো উন্মুক্ত হবে।

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker