বাক্যহোমপেজ স্লাইড ছবি

মৃত্যু উপত্যকার চলমান পাথর

উপত্যকাটির নাম ‘ডেথ ভ্যালি’, তার উপরে সেখানে ঘটে এমন এক আজব ঘটনা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার এই উপত্যকায় জীবনের চিহ্ন কম। সেই কারণেই তার এমন নামকরণ। রেসট্র্যাক প্লায়া নামের সেখানকার একটি বিশুষ্ক হ্রদে ৭০০ পাউন্ডেরও বেশি ওজনের পাথরকে স্বচ্ছন্দে বিচরণ করতে দেখা যায়। প্রায়শই দেখা যায় এই সব বিশাল বিশাল সাইজের পাথর তাদের স্থান পরিবর্তন করছে।

আর তাদের এই জায়গা বদলানোর পিছনে কোনও মানুষ অথবা অন্য কোনও প্রাণীর হাতও নেই। শুকিয়ে যাওয়া হ্রদের মেঝেতে দীর্ঘ ঘষটানোর দাগ দেখে বোঝা যায়, কোথাকার পাথর কোথায় গড়িয়েছে। ডেথ ভ্যালি-তে এমন বিশ্বয়কর ঘটনাটি বিশেষজ্ঞদের নজরে আসে ১৯৪৮ সালে। কিন্তু এই রহস্যের সমাধান কিছুতেই হয়নি।

‘সেলিং স্টোন’ কেবল এক জায়গা থেকে আর এক জায়গায় সরেই যায় না, যে পথে তারা এই সরণ ঘটায় সেটাও খুবই আশ্চর্যের। হঠাৎ তীব্র বাতাস, কাদামাটি, বরফ, তাপমাত্রার তারতম্যতা বিভিন্ন বিষয় পাথরের সরে যাওয়ার পেছনে কারণ বলে বিজ্ঞানীরা মনে করলেও পাথরের চলার পথের ভিন্নতার কারণে রহস্য থেকেই যায়। পাথর গুলোর এক একটি কয়েক বছর ধরে চলে। কখনো সরল পথে, কোনটি বাঁকানো পথে পরিভ্রমণ করে।

এমনও হয় দুটি পাথর সমান্তরালে কিছুদূর পর ঠিক বিপরীত দিকে তাদের দিক পরিবর্তন করে। দীর্ঘ ৫০ বছরের গবেষণায় এখনো পর্যন্ত শুকনো লেক রেস প্রায়া, ডেথ ভ্যালির চলমান পাথরের রহস্য উন্মোচন হয়নি। আধুনিক জিপিএস ট্র্যাকিংনির্ভর স্যাটেলাইট ইমেজ থেকে পাথরগুলোর স্থান পরিবর্তনের সময় গতি সম্পর্কে ধারণা পাওয়া গেলেও তাদের স্থান পরিবর্তনের রহস্য এখনো আবৃতই রয়ে গেছে। বিশেষ করে আপস্ট্রিমে পাথরের স্থান পরিবর্তনের সঠিক ব্যাখ্যা এখনো পাওয়া যায়নি।

তথ্য সূত্র: উইকিপিডিয়া

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker