বিনোদনস্বাস্থ্যহেলথ টিপসহোমপেজ স্লাইড ছবি

স্টেইং অ্যালাইভ: যে গান বাঁচিয়েছে বহু মানুষকে

রাগিব হাসান: মনের আনন্দের জন্য, সময় কাটাবার জন্য গান শুনতে সবাই ভালোবাসে। প্রতিবছর প্রচুর গান হিট, সুপারহিট, মেগা হিট — এরকম হয়। ইউটিউবে কিংবা অন্যত্র ভাইরালও হয়। কিন্তু যদি বলি আজ থেকে ৪০ বছরের বেশি আগে হিট হওয়া একটি গান এখনো মানুষকে আনন্দ দেয়ার পাশাপাশি বাঁচিয়েও চলছে মৃত্যুর হাত থেকে?এই গানটি হল তিন ভাইয়ের ব্যান্ড বি জি’স এর সুপারহিট গান – Staying Alive!

নানা কারণে ঘটনা দুর্ঘটনায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে যায় — অনেক সময়েই কিন্তু সেই বন্ধ হয়ে যাওয়া হৃদয়কে আবারও চালু করা সম্ভব। সেজন্য হৃদযন্ত্র বন্ধ হয়ে যাওয়া অজ্ঞান মানুষটিকে Cardiopulmonary Resuscitation বা CPR চিকিৎসা দিতে হয় ঘটনাস্থলেই। সেজন্য বুকে চাপ দিতে হয় ঘনঘন (Chest compression), বন্ধ হয়ে যাওয়া হৃদযন্ত্রকে চালু করতে এই কাজটা করা লাগে। কিন্তু সেটা করতে হয় নির্দিষ্ট একটি তালে, খুবই দ্রুত। ডাক্তার ছাড়াও অনেকেই CPR প্রশিক্ষণ নিয়ে থাকে, কারণ বলা তো যায় না কখন আপনার চারপাশে কাউকে সেটা দেয়ার দরকার হয়। সমস্যা হল অনেকেরই এই ট্রেনিং বা প্রশিক্ষণ নেয়া থাকে না। সঠিকভাবে বুকে চাপ দিতে না পারলে কাজ হবে না, তাই চিকিৎসকেরা ভাবতে থাকলেন কী ভাবে সবাইকে সহজে এটা শেখানো যায়, যাতে করে প্রশিক্ষণ না থাকলেও কেউ এই ব্যাপারটা করতে পারে সঠিকভাবে।

ব্রিটিশ হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের পরামর্শ হল প্রতি মিনিটে ১০০-১২০ বার বুকে চাপ দিতে হবে CPR এর সময়ে। তো, কীভাবে এই ব্যাপারটা আম জনতার মনে ঢুকিয়ে দেয়া যায়? অনেকটা বাংলাদেশের সেই বিখ্যাত তিন আঙুলের প্রথম ভাজের একচিমটি লবণ — সেই সহজবোধ্য ওরস্যালাইনের রেসিপির মত। এমন সময়ে কারো মাথায় একটা বুদ্ধি আসল — সঙ্গীতপ্রেমী সেই মানুষটি খেয়াল করলেন, তাঁর প্রিয় Bee Gees ব্যান্ডের জনপ্রিয় গান Staying Alive! এর মিউজিকের বিটগুলো পুরোপুরি মিলে যায় সিপিআর এর এই ছন্দের সাথে। হিসাব করে দেখা গেল স্টেইং অ্যালাইভ এর মিউজিকের বিট হল ১০৪ বিট/মিনিট।

কাজেই কেউ যদি স্টেইং অ্যালাইভ গানটি গুনগুন করে গাইতে গাইতে অজ্ঞান মানুষটির বুকে চাপ দিতে থাকে সেই তালে, তাহলেই সিপিআর এর কাজটি হবে নিয়ম মেনে।স্টেইং অ্যালাইভ গানটি ডিস্কো (Disco) আমলের গান — ডিস্কোতে ধুন্ধুমার নাচের জন্য সেরকম ছন্দের তালে তালে গানটা গাওয়া — মিউজিক ভিডিওটা দেখলেই বুঝবেন খুব দ্রুত নাচের জন্য এই গানটা একেবারে মোক্ষম। এই ছন্দটা কাকতালীয়ভাবে CPR এর জন্য যে ছন্দে বুকে চাপ দিয়ে ম্যাসেজ করতে হয় তার সাথে মিলে গেছে, তাই সেই গানের তালে তালে বুকে চাপ দিতে থাকলে সঠিকভাবে সিপিআর দেয়া চলে। চিকিৎসকেরা কেবল এই ব্যাপারটা চিন্তা করেই থেমে থাকলেন না, রীতিমত গবেষণা করে দেখা হল — গবেষণায় দেখা গেল যে সিপিআর এ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চিকিৎসাকর্মীরাও এই গান মনে মনে গাইতে থাকলে তাদের সিপিআর এর মান অনেক ভাল ও যথাযথ হয়ে থাকে।

তাই অফিশিয়ালি এই গানটিকে বেছে নেয়া হল, ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশন এই গানটিকে অনুসরণ করে সিপিআর দিতে পরামর্শ দিল সবাইকে। কেবল ব্রিটেনেই নয়, আমেরিকাতেও এই ব্যাপারটা ছড়িয়ে দেয়া হল। পরবর্তিতে দেখা গেল আরো কয়েকটি গানে এই দ্রুততালের ব্যাপারটা আছে। তবে এসব গানের মধ্যে স্টেইং অ্যালাইভ গানটাই সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। সত্তর ও আশির দশকের জনপ্রিয় ব্যান্ড Bee Gees ছিল তিন ভাই এর ব্যান্ড — ব্যারি গিব, মরিস গিব, এবং রবিন গিব ছিলেন এর সদস্য। আজ এই তিন ভাইয়ের দুইজনই পরলোকগমন করেছেন, বেঁচে আছেন কেবল লিড সিঙ্গার ব্যারি গিব। কিন্তু তাঁদের এই ডিস্কো নাচের গানটির জন্য হয়তো প্রাণ ফিরে পেয়েছেন লাখ লাখ মানুষ সিপিআর এর মাধ্যমে। গানটি তাই কেবল সুপারহিট ডিস্কো মিউজিকই নয়, আজও বাঁচাচ্ছে বহু মানুষের জীবন। কয়টা গানই বা এরকম অসাধারণ কাজ করতে পারে?

গানের ভিডিওর লিংক – https://www.youtube.com/watch?v=I_izvAbhExY

Related Articles

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker